চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৬। আমি নূহ এবং ইব্রাহিমকে রাসূলরূপে প্রেরণ করিয়াছিলাম এবং আমি তাহাদের বংশধরগণের জন্যে স্থির করিয়াছিলাম নুবূওয়াত ও কিতাব, কিন্তু উহাদের অল্পই সৎপথ অবলম্বন করিয়াছিল এবং অধিকাংশই ছিল সত্যত্যাগী।


 


 


অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলব দক্ষিণ থানার ওসিকে আদালতে তলব
স্টাফ রিপোর্টার
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


আইন বহির্ভূত কাজ করায় মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) স্বপন কুমার আইচকে আদালতে তলব করা হয়েছে। ১১ নভেম্বর সোমবার তিনি সিজেএম কোর্টে জবাব দিতে হাজির হন মর্মে কোর্ট সূত্রে জানা যায়।



সিজেএম কোর্টের এও এবং পেশকার মঞ্জুর ইসলাম পৃথকভাবে জানান, বিচার প্রার্থী মাছুয়াখাল গ্রামের আবুল বাশারের মেয়ে রহিমা তার স্বামী ঘিলাতলী গ্রামের মোঃ আলী আরশাদের ছেলে মোঃ সাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মোহরানা ইদ্দৎ মুদ্দৎ হাওলাতসহ যাবতীয় পাওনা বাবদ মোট ৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা খোরপোশের জন্য সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা করেন। মামলা নং-৫৩/২০১৯ (০৩-০৯-২০১৯)। এরপর থেকেই তার প্রাক্তন স্বামী মোঃ সাইদুল ইসলাম থেকে সুযোগ-সুবিধা নিয়ে মতলব দক্ষিণ থানার ওসি স্বপন তার অফিসিয়াল নাম্বার (০১৭১৩-৩৭৩৭১৫) থেকে রহিমার মামলা পরিচালনাকারী ভগি্নপতি মোঃ মামুনুর রশীদকে টেলিফোন করে বেশ কয়েক বার মামুনের মাধ্যমে রহিমাকে মামলা তুলে নিয়ে তার অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে বলেন। সেই সাথে রহিমার এই মামলা তুলে নেয়া ও গালমন্দ সহ বিভিন্নভাবে জীবনের প্রতি হুমকি প্রদান করেন। বেশ কয়েকবার এরূপ হুমকি দেয়ার ফলে তিনি এগুলো ফোনে রেকর্ড করে রাখেন এবং তার জীবন অনিশ্চিত বিধায় তিনি এই টেলিফোনগুলোর কল রেকর্ডের সিডি সহ একটি মিস মামলা করেন সিজেএম কোর্টে। তখন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোবাইল রেকর্ড শুনে নিশ্চিত হয়ে ওসি স্বপনকে ব্যাখ্যা দানের জন্য ১১ নভেম্বর সোমবার হাজির হওয়ার জন্য কোর্ট হতে নির্দেশ দেন। সে নির্দেশনা অনুযায়ী ওসি স্বপন কোর্টে হাজির হয়ে তার এই কাজ করা ভুল হয়েছে এবং তিনি ২০-০৯-২০১৯ তারিখে এই প্রার্থী রহিমার প্রাক্তন স্বামী সাইদুলের নিকট হতে চুরির বিষয়ে ১টি অভিযোগ প্রাপ্ত হয়ে উভয় পক্ষকে মিলিয়ে দেয়ার জন্যেই এই ফোন করেন বলে কোর্টে জানান। তখন কোর্ট জিজ্ঞেস করে, ওই চুরির ঘটনার ব্যাপারে থানায় কোনো মামলা বা জিডি করা হয়েছে কিনা? তখন ওসি স্বপন জানান, কোনো জিডি বা চুরির মামলা করা হয়নি। কোর্ট তখন জানায় যে, এ ব্যাপারে মামলা বা জিডি করা বাধ্যতামূলক ছিলো। সেটি না করে ওসি স্বপন আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়েছেন। তাই আগামী ১৭ই নভেম্বর তাকে লিখিত কারণ ও ব্যাখ্যা নিয়ে কোর্টে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয়।



এ ব্যাপারে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি শেখ জহিরুল ইসলাম জানান, আমরা প্রায় অর্ধশতাধিক আইনজীবী ওই ওসি স্বপনের বিরুদ্ধে কোর্টে শাস্তি দাবি করেছি। সেই সাথে তাকে যাতে এখানে দায়িত্ব পালন করতে দেয়া না হয় সে ব্যাপারে কোর্টের প্রতি সিদ্ধান্তের দাবি জানানো হয়। মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) স্বপন কুমার আইচের কাছে এই ঘটনার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হ্যাঁ আদালতে আমাকে ডেকেছে। আমি আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই সেই শ্রদ্ধাবোধ থেকেই পরবর্তী তারিখেও কোর্টে হাজির হবো।



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৪৫৭৩৬
পুরোন সংখ্যা