চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭১-সূরা নূহ্


২৮ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২০। যাহাতে তোমরা চলাফেরা করিতে পার প্রশস্ত পথে।


২১। নূহ্ বলিয়াছিল, হে আমার প্রতিপালক! আমার সম্প্রদায় তো আমাকে অমান্য করিয়াছে এবং অনুসরণ করিয়াছে এমন লোকের যাহার ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তাহার ক্ষতি ব্যতীত আর কিছুই বৃদ্ধি করে নাই।


 


assets/data_files/web

দুজন চাটুকার একসঙ্গে বেশি দূর ভ্রমণ করতে পারে না।


-জন ব্রো।


 


 


 


যিনি বিশ্বমানবের কল্যাণ সাধন করেন, তিনিই সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ।


 


 


ফটো গ্যালারি
ডাকাতিয়ায় কচুরিপানার জট, নৌ চলাচল ব্যাহত
মিজানুর রহমান
১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


কচুরিপানার জটে ঢেকে গেছে চাঁদপুর নদীবন্দরের ডাকাতিয়া নদী। কচুরিপানার জটের কারণে এপার-ওপার খেয়া পারাপার, চরাঞ্চলের ট্রলারসহ বন্দরে ব্যবসায়ীদের পণ্যবাহী বিভিন্ন নৌযান চলাচলে প্রতিবন্ধকতার পাশাপাশি ব্যাহত হচ্ছে নৌ চলাচল। গন্তব্যে পৌঁছতে বিলম্ব হচ্ছে নৌযানগুলোর।



স্থানীয়রা জানায়, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব ও নিম্নচাপের ঝড় বৃষ্টির ফলে চাঁদপুর সেচ প্রকল্প বেড়িবাঁধের ভেতর থেকে প্রচুর পরিমাণে কচুরিপানা ডাকাতিয়া নদীতে নেমে আসে। সেই কচুরিপানা শহরের ইচলিঘাট থেকে লন্ডনঘাট, নতুনবাজার খেয়াঘাট, চৌধুরীঘাট, ৫নং ঘাট, পুরাণবাজার ৩নং কয়লাঘাট, ১নং ঘাট, ভূঁইয়ারঘাট, ট্রলারঘাট, পুরাতন লঞ্চঘাট, মাছঘাট ও বড় স্টেশন মোলহেড পর্যন্ত ডাকাতিয়ার কয়েক কিলোমিটার নদীপথ এখন কচুরিপানায় ঢেকে গেছে। যার কারণে ওইসব খেয়াঘাটে ও বন্দরঘাটে নৌযান চলাচলে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে।



কচুরিপানার জটে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে ট্রলার, স্পিডবোট ও মালবাহী জাহাজ চালকরা। অতিরিক্ত কচুরিপানার কারণে অনেক সময় ভেঙ্গে পড়ছে ট্রলারের পাখা। এছাড়া পাঁচ মিনিটের খেয়া পার হতে সময় লাগছে এখন এক ঘণ্টারও বেশি। এতে নৌপথে যোগাযোগ বন্ধ হওয়ার উপক্রম হচ্ছে। খেয়া পারাপারেও বিঘ্ন ঘটছে।



গতকাল বুধবার বিকেলে ভূঁইয়ার ঘাটের খেয়া যাত্রী চাঁদপুর শহরের কোড়ালিয়ার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর (৪২) জানান, খেয়াঘাটে এখন কচুরিপানার বিপুল জট লেগে আছে। ৫ মিনিটের নদী পথ ঘন্টাখানেক সময় নিয়েছে ডাকাতিয়া নদী পার হতে। ট্রলারঘাটের মাঝি কাশেম মিয়া জানান, ফুল স্পীডে ইঞ্জিন চালিয়েও কচুরিপানায় নৌকা আটকে যাচ্ছে। নৌকা দুলিয়ে আর লগি দিয়ে কচুরিপানা ঠেলে যাত্রী পারাপার করতে হচ্ছে। নদীর ভাটার সময় কচুরিপানার বুক চিরে নৌ চলাচল বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ছে।



কচুরিপানার জটের এই সমস্যা দূরীকরণে চাঁদপুর বিআইডব্লিউটিএকে উদ্যোগ নিতে চাঁদপুর শহরবাসী এবং ব্যবসায়ীরা অনুরোধ জানিয়েছেন।



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫৫০১৬
পুরোন সংখ্যা