চাঁদপুর, সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


০৩। যাহারা নিজেদের স্ত্রীগণের সহিত যিহার করে এবং পরে উহাদের উক্তি প্রত্যাহার করে, তবে একে অপরকে স্পর্শ করিবার পূর্বে একটি দাস মুক্ত করিতে হইবে, ইহা দ্বারা তোমাদিগকে উপদেশ দেওয়া যাইতেছে। তোমরা যাহা কর আল্লাহ তাহার খবর রাখেন।


 


 


 


গণতন্ত্রের উৎসবের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে এর নির্বাচন।


-এইচ. জি. ওয়েলস।


 


 


অতিথি সৎকারকারীর অসুবিধা উৎপাদন করিয়া অতিথির বেশিদিন অবস্থান করা উচিত নয়।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলবে নদীতে ফেলে মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা
রেদওয়ান আহমেদ জাকির
১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব সেতুর উপর থেকে ধনাগোদা নদীতে ফেলে মোঃ ইরফাত (১৬) নামে দশম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। গত ১৬ নভেম্বর শনিবার রাত প্রায় সাড়ে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে থানায় অভিযোগ করেছেন ছাত্রটির বাবা পৌরসভার দক্ষিণ বাইশপুর এলাকার মোঃ সফিক মিয়া।



ছাত্রটির মা রিনা বেগম জানান, ওই রাতে আমার ছেলে ইরফাত তার পড়ার কক্ষে পড়ছিল। মোবাইলে কার সাথে যেন কথা হয়। এরপর আমাকে কিছু না বলেই ঘর থেকে সে বেরিয়ে যায়। ভেবেছিলাম বাইরে গেছে। অনেকটা সময় পেরিয়ে গেলে ঘরে না ফেরার কারণে খোঁজাখুঁজি শুরু করি। ঘন্টা তিনেক পরে ভেজা শরীরে বাড়িতে ফিরে এসে আমার ছেলে হাউমাউ করে কাঁদতে থাকে এবং বিষয়টি আমাদের বলে।



ইরফাতের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাকে একটি অপরিচিত নম্বর থেকে ফোন করে চটপটি খাওয়ার কথা জানিয়ে সেতুর উপর আসতে বলে। কে তাকে ফোন দিলো তা সে খুঁজতে থাকে। এমন সময় দু'জন অপরিচিত লোক তার সামনে আসে এবং তার সাথে কথা বলে। তখন সে তাদেরকে বলে, আপনারা কারা আমিতো আপনাদের চিনি না। তারা তখন আমাকে কথা বলতে বলতে সেতুর রেলিংয়ের কাছে নিয়ে পা ধরে উল্টো করে নদীতে ফেলে দেয়।



নৌকার মাঝি সফিক বলেন, ওই সময় আমি লাইট দিয়ে মাছ ধরতে ছিলাম। হঠাৎ পানিতে শব্দ শুনে এগিয়ে গিয়ে তাকে দেখে উদ্ধার করি। ছেলেটি অসুস্থ হওয়ায় তাকে মতলব সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাই।



মতলব দক্ষিণ থানার ওসি স্বপন কুমার আইচ বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 



 



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৪৩৪৯৭
পুরোন সংখ্যা