চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


০৪। কিন্তু যাহার এ সামর্থ্য থাকিবে না, একে অপরকে স্পর্শ করিবার পূর্বে তাহাকে একাদিক্রমে দুই মাস সিয়াম পালন করিতে হইবে; যে তাহাতেও অসমর্থ, সে ষাটজন অভাবগ্রস্তকে খাওয়াইবে; ইহা এইজন্য যে, তোমরা যেনো আল্লাহর ও তাহার রাসূলে বিশ্বাস স্থাপন করো। এইগুলি আল্লাহর নির্ধারিত বিধান; কাফিরদের জন্য রহিয়াছে মর্মন্তুদ শাস্তি।


 


 


 


খাদ্য খাওয়া ও খাওয়ানোর চেয়ে খাদ্য উৎপাদনই মহত্তর কাজ।


-তাবিব।


 


 


যার দ্বারা মানবতা উপকৃত হয়, মানুষের মধ্যে তিনি উত্তম পুরুষ।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
সমাপনী ও বার্ষিক পরীক্ষার সময় টুর্নামেন্টের আয়োজনে অভিভাবকরা ক্ষুব্ধ
মাদকবিরোধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধক মাদকসেবী!
ফরিদগঞ্জজুড়ে সমালোচনার ঝড়
চাঁদপুর কণ্ঠ রিপোর্ট
১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ফরিদগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের এক সময়ের সভাপতি খাজে আহম্মদ মজুমদার এখন উপজেলাজুড়ে মাদকসেবী হিসেবে আলোচিত-সমালোচিত। বিশেষ করে তার ইয়াবা সেবনের ভিডিও চিত্রটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হওয়া এবং এ নিয়ে স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর পুরো জেলাব্যাপী এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ফরিদগঞ্জ থেকে ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ওই চিহ্নিত মাদকসেবীর বিরুদ্ধে নিন্দা ও প্রতিবাদ আসতে থাকে। এদিকে এই মাদক সেবনের অভিযোগে খাজে আহম্মদ মজুমদারকে ফরিদগঞ্জ মনতলা হামিদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদ থেকে অপসারণ করে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড।



কিন্তু দেখা গেলো যে, এই চিহ্নিত মাদকসেবীকে উদ্বোধক করে উপজেলার ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নে মাদকবিরোধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করে তারই অনুসারী কিছু যুবক। এ ইউনিয়নের নয়াহাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে 'এনপিএল নয়াহাট প্রিমিয়ার লীগ চতুর্থ আসর উদ্বোধন' নামে আয়োজিত এ টুর্নামেন্টের উদ্বোধক করা হয় খাজে আহম্মদ মজুমদারকে। এটি গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল। এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ব্যাপক মাইকিংও করা হয়। সেখানে উদ্বোধক হিসেবে খাজে আহম্মদ মজুমদারের নাম ঘোষণা করা হয়। এ মাইকিং শুনে জনগণ হতবাক হন। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, চিহ্নিত এবং কুখ্যাত মাদকসেবীই যখন মাদক বিরোধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধক, তাহলে এটা আবার কেমন ধরনের মাদক বিরোধী ক্রিকেট টুর্নামেন্ট! বিষয়টি নিয়ে অনেকেই নানা ব্যঙ্গ বিদ্রুপ ও উপহাস করতে থাকে। তাছাড়া সবচেয়ে বড় যে বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে এলাকাবাসীর কাছে, সেটি হচ্ছে- এখন চলছে পিইসি ও সমমানের পরীক্ষা এবং ক'দিন পরেই শুরু হবে প্রাইমারি ও হাইস্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা। এ সময়ে কোনো টুর্নামেন্টের আয়োজন বোকামি এবং নির্বুদ্ধিতার পরিচয় ছাড়া আর কিছুই নয়। তাই স্থানীয় জনগণ অনেকটা বিদ্রুপাত্মকভাবে বলছেন, আসলে মাদকসেবীদের তো তেমন হুঁশ জ্ঞান থাকে না, তাই কখন পরীক্ষা বা কখন পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সময়, তা তাদের জানা থাকার কথা না।



এই নানাবিধ ক্ষোভ থেকে ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের ক্ষুব্ধ জনগণ বিক্ষুব্ধ হয়ে রোববার সন্ধ্যার সময় নয়াহাট স্কুল মাঠে নির্মিত তথাকথিত ওই মাদক বিরোধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভেঙ্গে ফেলে। এ নিয়ে এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১০৭৭৫০৩
পুরোন সংখ্যা