চাঁদপুর, মঙ্গলবার ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৫ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৮। যে দিন আল্লাহ পুনরুত্থিত করিবেন উহাদের সকলকে, তখন উহারা আল্লাহর নিকট সেইরূপ শপথ করিবে যেইরূপ শপথ তোমাদের নিকট করে এবং উহারা মনে করে যে, ইহাতে উহারা ভালো কিছুর উপর রহিয়াছে। সাবধান! উহারাই তো প্রকৃত মিথ্যাবাদী।


 


 


দুর্বলের পক্ষে সবলের অনুকরণ ভয়াবহ। -দ্বিজেন্দ্রনাথ ঠাকুর।


 


 


 


দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত জ্ঞান চর্চায় নিজেকে উৎসর্গ করো।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
কচুয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়
প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় শিক্ষক এমদাদের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে
মোহাম্মদ মহিউদ্দিন
০৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


কচুয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় শিক্ষক এমদাদ উল্যার সম্পৃক্ত থাকার সত্যতা পাওয়া গেছে।



গত ১ নভেম্বর রোববার ওই বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির বাংলা বার্ষিক পরীক্ষা ছিল। শিক্ষক এমদাদ উল্যাহ পরীক্ষার পূর্ব রাত্রে তার কাছে প্রাইভেট পড়া শিক্ষার্থীদের পাস করিয়ে দিতে গাইড বইয়ে ১১টি প্রশ্নপত্র দাগিয়ে দেন। তথ্যটি ফাঁস হওয়ার পরদিন রোববার পরীক্ষার শুরুর ১ ঘণ্টা পূর্বে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মূল প্রশ্নপত্রের সাথে গাইডে দাগিয়ে দেয়া প্রশ্নের হুবহু মিল পেয়ে পরীক্ষা স্থগিত করেন।



এ বিষয়ে গতকাল সোমবার বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে চাঁদপুর জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ গিয়াস উদ্দিন ২ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করেন। টিমের সদস্যরা হচ্ছেন উপজেলা ইন্সপেক্টর লিটন দাস ও সুমন খান। তদন্ত টিম কচুয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে এসে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে শিক্ষক এমদাদ উল্যার সম্পৃক্ত থাকার সত্যতা পেয়েছে। সত্যতা খুঁজে পাওয়ার বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপায়ন দাস শুভ নিশ্চিত করেছেন।



ইতিপূর্বে শিক্ষক এমদাদ উল্যার বিরুদ্ধে তার প্রাইভেট পড়ানো শিক্ষার্থীদেরকে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার পূর্বে প্রশ্নপত্র ফাঁস করে দেওয়ার অভিযোগ উঠে।



এদিকে প্রশ্নপত্র ফাঁস করে দেয়ার প্রেক্ষিতে অভিভাবকদের মাঝে প্রচ- ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তারা দুর্নীতির সাথে সম্পৃক্ত শিক্ষক এমদাদ উল্যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছেন।



 



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৪০৫৭
পুরোন সংখ্যা