চাঁদপুর, বুধবার ৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৯। শয়তান উহাদের উপর প্রভাব বিস্তার করিয়াছে; ফলে উহাদিগকে ভুলাইয়া দিয়াছে আল্লাহর স্মরণ। উহারা শয়তানেরই দল। সাবধান! শয়তানের দল অবশ্যই ক্ষতিগ্রস্ত।


 


 


 


জনগণ যদি নেতা নির্বাচনে ভুল করে তাতে জনগণেরই দুর্গতি বাড়ে।


-প্লেটো।


 


 


যাবতীয় পাপ থেকে বেঁচে থাকার উপায় হলো রসনাকে বিরত রাখা।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
পালবাজারে তরকারির আড়তদারদের দখলে বকুলতলা সড়ক
প্রতিবাদ করতে গিয়ে পৌরসভার কর্মচারী লাঞ্ছিত, দু পক্ষের সংঘর্ষে আটক ১
গোলাম মোস্তফা
০৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের পালবাজারের কাঁচামালের কিছু অসাধু আড়তদারের দৌরাত্ম্য দিন দিন বেড়েই চলছিলো। তারা গায়ের জোরে জনগণের চলাচলের রাস্তা দখল করে মালামাল লোড-আনলোড করে থাকে। অথচ তাদের দোকানঘর থাকে ফাঁকা। বাজারের ভেতরে বকুলতলা সড়ক এবং বাজারের সামনে প্রধান সড়কটির এ অবস্থা অনেকদিন যাবৎ। এতে সড়কে যানবাহনতো চলাচল দূরের কথা মানুষজন হাঁটতেও পারতো না। সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ করতে গিয়ে ওইসব আতড়দার ও তাদের কর্মচারীদের দ্বারা লাঞ্ছিত হয়েছে বহুবার। এবার লাঞ্ছিত হলো খোদ চাঁদপুর পৌরসভার একজন স্টাফ। আর এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল মঙ্গলবার সকালে পৌরসভার স্টাফ ও কাঁচামালের আড়তদার-কর্মচারীদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে এক দোকান কর্মচারীকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে অবশ্য পালবাজারের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ও মেয়রের সাথে সমঝোতা বৈঠকে শর্তসাপেক্ষে এ ঘটনা মীমাংসা হলে ওই কর্মচারীকে পৌরসভার কর আদায়কারীর জিম্মায় ছাড়িয়ে আনা হয়।



গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে এ ঘটনাটি ঘটে। জানা গেছে, অন্যান্য দিনের মতো গতকালও জনগণের চলাচলের রাস্তা বকুলতলা সড়ক দখল করে কাঁচা তরকারি লোড-আনলোড করছিল আড়তদাররা। তখন সড়কের উপর থেকে মালামাল সরানোর কথা বলতে গিয়ে পৌরসভার এক কর্মচারীকে লাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনায় পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ ১ জনকে আটক করে।



ঘটনা সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল সকাল থেকে চাঁদপুর শহরের পালবাজারের পশ্চিম পাশের বকুলতলা সড়কটি দখল করে কাঁচা মালের আড়তদাররা মালামাল লোড-আনলোড করে আসছিলো। এ অবস্থায় উক্ত সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে মানুষ খুবই ভোগান্তিতে পড়ে। তাদের সাথে ব্যবসায়ীদের কথা কাটাকাটি হয়। এ সমস্যার বিষয়টি ওই ভুক্তভোগী পৌরসভায় গিয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে অবহিত করে।



এ অভিযোগের ভিত্তিতে পৌরসভার বাজার শাখার একজন কর্মচারী ঘটনাস্থলে গিয়ে কাঁচা তরকারির আড়তদারদের রাস্তা থেকে মালামাল সরিয়ে তাদের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের ভেতরে নিয়ে যেতে অনুরোধ করেন। পাশাপাশি এ সড়ক দিয়ে জনগণের চলাচলের জন্যে রাস্তা ফাঁকা করে দেয়ার অনুরোধ জানান। কিন্তু কে শুনে কার কথা। উল্টো পৌরসভার ওই কর্মচারীকে কজন কাঁচামালের আড়তদার ও কর্মচারী নাজেহাল এবং লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনাটি চাঁদপুর পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জেনে ঐক্যবদ্ধভাবে ঘটনাস্থলে গেলে কাঁচামালের আড়তদারদের সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পযার্য়ে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে কাঁচামালের আড়ত মেসার্স আজমীর ট্রেডার্সের মালিক মোঃ মফিজ আহত হন।



এদিকে তাৎক্ষণিক মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জকে এ ঘটনা সম্পর্কে অবহিত করেন। ওসি নাসিম উদ্দিন ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠালে পুলিশের উপস্থিতিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। তখন সকল আড়তদার সড়ক থেকে কাঁচা তরকারি সরিয়ে নেন। সে সময় ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আজমীর ট্রেডার্সের ম্যানেজার সেলিমকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।



এদিকে ঘটনার পরপরই পালবাজারের কজন ব্যবসায়ীর উদ্যোগে পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা হয়। সে সমঝোতার ভিত্তিতে আটক সেলিমকে ছেড়ে দেয়া হয়।



আটকের বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই পলাশ বড়ুয়া বলেন, পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে ব্যবসায়ীদের সৃষ্ট ঝামেলার বিষয়ে আজমীর ট্রেডার্সের ম্যানেজার সেলিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে আনা হয়, আটক করা হয়নি। পরে তাকে পৌরসভার প্রধান কর আদায়কারী তৌহিদুল ইসলাম চপলের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়। এ বিষয়ে পালবাজারের কোনো ব্যবসায়ী মন্তব্য করতে রাজি হননি।



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৩৬৬
পুরোন সংখ্যা