চাঁদপুর, সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৯-সূরা হাশ্র


২৪ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩। আল্লাহ উহাদের নির্বাসনের সিদ্ধান্ত না করিলে উহাদিগকে পৃথিবীতে অন্য শাস্তি দিতেন; পরকালে উহাদের জন্য রহিয়াছে জাহান্নামের শাস্তি।


 


 


 


assets/data_files/web

অবসরকে দর্শনশাস্ত্রের জননী বলা যায়। -টমাস হবর্স।


যে মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞ নয়, সে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ নয়।


 


 


ফটো গ্যালারি
বেশি কষ্ট পাই যখন দেখি নিজের জেলায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করা হয়
-----------------------------জীবন কানাই চক্রবর্তী
গোলাম মোস্তফা
০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক জীবন কানাই চক্রবর্তী বলেছেন, সারাদেশের কোথায় কী ঘটছে, সেটি দেখে অনেক কষ্ট পেলেও বেশি কষ্ট পাই যখন দেখি নিজের জেলায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করা হয়। তিনি বলেন, চাঁদপুরের সত্যিকারের মুক্তিযোদ্ধাদের নাম বেশি উচ্চারণ হয় না, অথচ ভুয়াদের নিয়ে বেশি মাতামাতি হয়। তিনি দুঃখ করে বলেন, চাঁদপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা সঠিক না, ৪৮ বছরেও মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা হচ্ছে, এটা দুঃখজনক।



তিনি চাঁদপুর মুক্ত দিবস প্রসঙ্গে বলেন, সেদিন মিত্র বাহিনীর ট্যাংক নিয়ে আমি চাঁদপুরে ঢুকি। অথচ আমি জীবিত থাকাবস্থায়ই এ মিত্র বাহিনীর ট্যাংক বিষয়ে মিথ্যে কথা বলা হচ্ছে। বাবুরহাট থেকেও কেউ কেউ ট্যাংকে উঠেছেন, এমন কথা শুনে হাসি পায়। তিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন চাঁদপুরের কৃতী সন্তান মরহুম মিজানুর রহমান চৌধুরী, আঃ রব, অ্যাডঃ সিরাজুল ইসলাম, মরহুম আঃ করিম পাটোয়ারীসহ তৎকালীন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে অবদানের কথা বলেন। সর্বোপরি তিনি নতুন প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আমাদের রেখে যাওয়া এ বাংলাদেশ, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্যে তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশকে তোমরা এগিয়ে নিয়ে যাবে এ প্রত্যাশা করছি।



জনাব জীবন কানাই চক্রবর্তী গতকাল চাঁদপুরের মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা মঞ্চে চাঁদপুর মুক্ত দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।



বিজয় মেলার চেয়ারম্যান অ্যাডঃ বদিউজ্জামান কিরনের সভাপ্রধানে ও স্মৃতিচারণ উপ-কমিটির সচিব মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব মাস্টারের পরিচালনায় আলোচকের বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল আহসান, সিরাজুল ইসলাম বরকন্দাজ ও মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার স্টিয়ারিং কমিটির মহাসচিব ব্যাংকার মহসীন পাঠান। আলোচনা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।



 



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৪২২৫৪
পুরোন সংখ্যা