চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ৩০ পৌষ ১৪২৬, ১৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর শহরে গৃহপরিচারিকার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬১-সূরা সাফ্‌ফ


১৪ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৭। যে ব্যক্তি ইসলামের দিকে আহূত হইয়াও আল্লাহ সম্বন্ধে মিথ্যা রচনা করে তাহার অপেক্ষা অধিক যালিম আর কে? আল্লাহ যালিম সম্প্রদায়কে সৎপথে পরিচালিত করেন না।


 


ব্যবসায়ীদের নিজস্ব কোনো দেশ নেই। - জেফারসন।


 


 


যদি মানুষের ধৈর্য থাকে তবে সে অবশ্য সৌভাগ্যশালী হয়।


ফটো গ্যালারি
মেঘনায় দুই লঞ্চের সংঘর্ষে মা-ছেলে নিহত আহত ৩
ডেস্ক প্রতিবেদক
১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বরিশাল থেকে ঢাকাগামী এমভি কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের সঙ্গে ঢাকা থেকে হুলারহাটগামী ফারহান-৯ লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ১২ জানুয়ারি রোববার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে বৃহত্তর মেঘনা নদীর মাঝের চর ও মিয়ার বাজার এলাকার মধ্যবর্তী এলাকায় সংঘটিত এ দুর্ঘটনায় মা ও ছেলে নিহত এবং ৩ জন আহত হয়েছে।



এতে কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের ২ যাত্রী নিহত হয়েছে বলে মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন মাস্টার নুরুল ইসলাম। নিহতরা হলেন বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানার ভান্ডারিকাঠি এলাকার রুবেলের স্ত্রী মাহমুদা খাতুন (২৪) ও তার ছেলে মমিন (৬)। আহতরা হচ্ছেন : নূরজাহান বেগম (২৮), আইফুনা বেগম (৬০) ও হযরত আলী (৭০)।



নিহত দুইজনের মরদেহ ওই লঞ্চে করে বরিশাল নেওয়া হয়েছে। গুরুতর আহত নূরজাহান বেগমকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপালে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



কীর্তনখোলা লঞ্চ কোম্পানির কাউন্টার ম্যানেজার ঝন্টু জানান, ঢাকা থেকে হুলারহাটগামী ফারহান লঞ্চটি কুয়াশার মধ্যে কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের মাঝ বরাবর সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে লঞ্চের নিচতলা ও দোতলার অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায় এবং কয়েকজন যাত্রী আহত হয়।



এদিকে লঞ্চের ব্যবস্থাপক বিল্লাল হোসেন জানান, ফারহান-৯ লঞ্চে কোনো আধুনিক যন্ত্রপাতি না থাকার কারণেই কুয়াশার মধ্যে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে কীর্তনখোলা ১০ লঞ্চের উপরিভাগ ক্ষতিগ্রস্ত হলেও তলা ঠিক রয়েছে। তাই হতাহতদের নিয়ে লঞ্চটিকে চাঁদপুর হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে যেতে হয়েছে।



চাঁদপুর নৌ-থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের খান বলেন, রোববার রাতে চাঁদপুর ও হাইমচর উপজেলার মাঝের চর ও মিয়ার বাজার এলাকার মধ্যবর্তী স্থানে এমভি কীর্তনখোলা-১০ ও এমভি ফারহান-৯ নামক লঞ্চ দু'টির সংঘর্ষ হয়। এতে কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের দুই যাত্রী নিহত ও তিনজন আহত হন।



অলি নামে অপর এক যাত্রী জানিয়েছেন, ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে চাঁদপুরে আহতদের নামিয়ে চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্যে সহায়তা চাওয়া হয়েছে।



এদিকে ফারহান-৯-এর যাত্রী শাহিন জানিয়েছেন, সংঘর্ষে ফারহান-৯ লঞ্চের সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাশাপাশি এ লঞ্চেও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।



ফারহান-৯ লঞ্চের কেরানী আল আমিন জানান, দুর্ঘটনায় ঢাকা থেকে হুলারহাটগামী এ লঞ্চটির ৫-৬ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। সূত্র : বাংলানিউজ।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৭৯৬৪৪
পুরোন সংখ্যা