চাঁদপুর , সোমবার ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৬, ১ জমাদউিস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • শাহরাস্তিতে ডাকাতি মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড ও ৪ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে চাঁদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালত। || 
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬২-সূরা জুমু 'আ


১১ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৭। কিন্তু উহারা উহাদের হস্ত যাহা অগ্রে প্রেরণ করিয়াছে উহার কারণে কখনও মৃত্যু কামনা করিবে না। আল্লাহ যালিমদের সম্পর্কে সম্যক অবগত।


 


অতি মাত্রায় বিশ্রাম আপনা থেকেই বেদনাদায়ক হয়ে উঠে। -হোমার।


 


 


নামাজ যাহাকে অসৎ কাজ হইতে বিরত রাখে না তাহার নামাজ নামাজই নহে; কারণ উহা তাহাকে খোদার নিকট হইতে দূরে রাখে।


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নূতন তত্ত্বাবধায়কের যোগদান
গোলাম মোস্তফা
২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের ১০ম তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে ডাঃ মোঃ হাবিব-উল করিম যোগদান করেছেন। তিনি গত ১৮ জানুয়ারি চাঁদপুরের কর্মস্থলে যোগদান করে ঐদিন তার দাপ্তরিক কাজের জন্যে পূর্বের কর্মস্থলে চলে যান। গত ডিসেম্বর মাস থেকে মূলত এ পদটি শূন্য হয়। এই অবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রশাসনিক কর্মকা-ে অনেকটা স্থবিরতা নেমে আসে। অবশেষে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের এ বিষয়টি নজরে আনতে স্থানীয় সাংসদ ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কথা বলেন। পরবতীতে মন্ত্রণালয় নোয়াখালী জেলায় ম্যাটসের উপ-পরিচালক হিসেবে কর্মরত ডাঃ হাবিব-উল করীমকে চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবাধয়ক হিসেবে যোগদান করার জন্যে নির্দেশ দেন। এ নির্দেশের প্রেক্ষিতে ডাঃ হাবিব-উল করীম গত ১৮ জানুয়ারি চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে যোগদান করেন। ঐদিনেই তার বিভাগীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্যে চলে যান। অবশেষে গতকাল ২৬ জানুয়ারি তিনি তাঁর কর্মস্থলে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব বুঝে নেন।



হাবিব উল করীম ১৯৬৬ সালের ১২ এপ্রিল ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোস্তাফিজুল করীম ও মাতা আয়েশা সিদ্দিকা দম্পতির সাত সন্তানের মধ্যে তিনি সবার ছোট।



তিনি ১৯৯০ সালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। তিনি একজন হাউজ ফিজিশিয়ান হিসেবে তাঁর এই পেশা শুরু করেন। তিনি বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণের মাধ্যমে ১৯৯৪ সালের ২৫ এপ্রিল সরকারি একজন চিকিৎসক হিসেবে এ পেশায় যোগদান করেন। তাঁর দীর্ঘ এ কর্মজীবনে তিনি একজন সরকারি চিকিৎসক হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর স্ত্রী ফাতেমাতুজ্জোহরা একজন গৃহিণী। তিনি একমাত্র কন্যা সন্তানের জনক। চাঁদপুরে তাঁর দায়িত্বকালীন সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করেন।



উল্লেখ্য, গত বছরের ২১ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১০ টায় তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ আনোয়ারুল আজিম চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকায় ইন্তেকাল করেন। মূলত তিনি এর পূর্বে অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসা নিতে গিয়ে চিরবিদায় নেন। যার ফলে এ পদটি শূন্য হয়।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৯৯৯৩৪
পুরোন সংখ্যা