চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৭ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরের ১৮তম জেলা ও দায়রা জজ এসএম জিয়াউর রহমান
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা ঃ


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


২৫। কিন্তু যাহার 'আমলনামা তাহার বাম হস্তে দেওয়া হইবে, সে বলিবে, 'হায়! আমাকে যদি দেওয়াই না হইত আমার 'আমলনামা,


২৬। 'এবং আমি যদি না জানিতাম আমার হিসাব।


 


assets/data_files/web

শুধু মাত্র অস্তিত্ব রক্ষার মধ্যে কোনো কৃতিত্ব নেই।


-শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।


 


 


রসূলুল্লাহ (দঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোনো লোকের সঙ্গে ধোকাবাজি করে সে আমার (দলের বা উম্মতের) বাইরে।


ফটো গ্যালারি
শুরু হয়ে গেছে জাটকা নিধন
স্টাফ রিপোর্টার
২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজারে মেঘনায় শুরু হয়ে গেছে এলাকার চিহ্নিত দুষ্কৃতকারীদের জাটকা নিধন। গত ক'দিন যাবত স্থানীয় রাস্তার উপর বাজারে এবং হকারী করে কিছু লোক জাটকা বিক্রি করছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।



রনাগোয়াল, খালপাড়, হরিসভা, পুরাতন ফায়ার সার্ভিস এলাকায় স্থানীয় যুবলীগ ও বিএনপির যুবদলের ওয়ার্ড নেতা নামধারী ৩/৪ জন চিহ্নিত লোক বছরের পর বছর সেখানে জাটকা আহরণ ও ক্রয়-বিক্রয়ের কাজ করে আসছেন ব্যক্তি স্বার্থে। তারা মা ইলিশের সময়ও ইলিশ নিধন করে ব্যাপক টাকা কামাই করেছেন।



এদেরই আরেকটা গ্রুপ এবার শীত মওসুমে মেঘনা নদী ছেঁকে বাইলা, চিংড়িসহ বিভিন্ন প্রজাতির পোনা ধ্বংস করেছে। পৃথক দুটি চিহ্নিত চক্র আড়তদারির নামে নিষেধাজ্ঞার সময় এবং শীতে মা ইলিশ, বাইলার গুড়া, টেম্পু ইলিশ এবং জাটকা নিধন করে দেশের ক্ষতি করছে।



প্রশাসনের নাকের ডগায় জনস্বার্থ বিরোধী এ অপতৎপরতা কয়েকজন ব্যক্তির স্বার্থে চলে আসলেও প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। পুরাণবাজারে পুলিশ ফাঁড়ি থাকা সত্ত্বেও জাটকা, মা ইলিশ, টেম্পু ইলিশ এবং বাইলার গুঁড়া কিভাবে ধরা হয় এবং প্রকাশ্যে তা বিক্রি হয় সেটাই জনমনে প্রশ্ন। অভিযান সামনে রেখে যারা জাটকা শিকার করছেন তাদের আইনের আওতায় আনার দাবি করছেন সচেতন মহল।



জানা যায়, গত প্রজনন মৌসুমে (৫ থেকে ১৫ অক্টোবর) মা-ইলিশসহ অন্যান্য মাছ যে ডিম ছেড়েছে, তাদের পোনা (জাটকা) বড় হওয়ার সুযোগ দরকার। এজন্যে ১ নভেম্বর থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত আট মাস জাটকা সংরক্ষণ মৌসুম করা হয়েছে। এই আট মাসের মধ্যে চার মাস (মার্চ-জুন) দেশের সব নদী ও সাগরে জাল ফেলা, মাছ শিকার, বহন, মজুত সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এ সময় বেকার জেলেদের জন্য সরকার চাল বরাদ্দ দিচ্ছেন।


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৪৮৫৪২
পুরোন সংখ্যা