চাঁদপুর, সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৪-সূরা তাগাবুন


১৮ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


১২। তোমরা আল্লাহর আনুগত্য কর এবং রাসূলের আনুগত্য কর; যদি তোমরা মুখ ফিরাইয়া লও, তবে আমার রাসূলের দায়িত্ব কেবল স্পষ্টভাবে প্রচার করা।


 


যে তার দেশকে ভালোবাসতে পারে না, কিছুই সে ভালোবাসতে পারে না। -বায়রন।


 


নিশ্চয় আল্লাহ অত্যাচারীকে শাস্তি প্রদান করেন।...কোন দেশ যখন অত্যাচারী হয়, তোমার প্রভু তাকে শাস্তি প্রদান করেন, তার শাস্তি অতীব ভীষণ।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের হামলার শিকার হলো আরেক এসএসসি পরীক্ষার্থী আটক ১১
বাদল মজুমদার
২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরে এসএসসি পরীক্ষার্থী পারভেজ পাপ্পুর (১৬) উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। যারা হামলা করেছে তারাও এসএসসি পরীক্ষার্থী। ১১জন এসএসসি পরীক্ষার্থী একত্রিত হয়ে হামলা করে পাপ্পুর উপর। গতকাল রোববার দুপুরে শহরের আক্কাস আলী রেলওয়ে একাডেমী পরীক্ষা কেন্দ্র ত্যাগ করার সময় সংঘবদ্ধ ১০/১২ জনের একটি কিশোর দল তাকে অটোতে উঠিয়ে মাঝি বাড়ি এলাকায় নিয়ে যায় এবং সেখানে তাকে বেদম মারধর করে গুরুতর আহত করে। হামলাকারী ১১ জন হচ্ছে এসএসসি পরীক্ষার্থী। এরা সকলে আল-আমিন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী।



জানা গেছে, পাপ্পুকে ওই কিশোর সন্ত্রাসীরা পৌর ৯নং ওয়ার্ডের মাঝি বাড়ি সংলগ্ন তিনআনী নদীরপাড়ে নিয়ে যায়। সেখানে নির্জন স্থানে তারা এ ঘটনা ঘটায়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত পাপ্পুকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। ঘটনাস্থল থেকে আবুল দেওয়ান ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে পুলিশকে অবহিত করলে চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মোঃ নাসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশ গিয়ে ওই কিশোর গ্যাংয়ের ১১ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।



আহত পারভেজ পাপ্পু সদর উপজেলার ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের বহরিয়া গ্রামের ব্যবসায়ী বেলাল হোসেন বাবুর ছেলে। সে বহরিয়া নূরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে।



এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধুরী জানান, আটকৃতদের বিষয়ে যাচাই করা হচ্ছে। আহত পাপ্পুর মা ফাতেমা বেগম জানান, আমার ছেলে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে বাড়ি ফেরার পথে ওই সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে উঠিয়ে নদীর পাড়ে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপতালে নিয়ে আসে।



প্রত্যক্ষদর্শী আবুল দেওয়ান জানান, একটি ছেলেকে অনেকগুলো ছেলে মারধর করতে দেখে আমিসহ কজন এগিয়ে যাই। আমরা যেতে যেতে ছেলেটিকে ১০ থেকে ১২ জন কিশোর বেধড়ক মারধর করে গুরুতর আহত করে। আমি সাথে সাথে ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশকে জানাই। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আটক ১১ জন থানা হাজতেই রয়েছে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩১৯৬৬
পুরোন সংখ্যা