চাঁদপুর, বুধবার ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০৬ শাবান ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্‌কা :


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২৭। 'হায়! আমার মৃত্যুই যদি আমার শেষ হইত!


২৮। 'আমার ধন-সম্পদ আমার কোন কাজেই আসিল না।


২৯। 'আমার ক্ষমতাও বিনষ্ট হইয়াছে।'


 


 


assets/data_files/web

শ্রেষ্ঠ বইগুলি হচ্ছে শ্রেষ্ঠ বন্ধু।


-লর্ড চেস্টারফিল্ড।


 


 


 


 


নম্রতায় মানুষের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় আর কড়া মেজাজ হলো আয়াসের বস্তু অর্থাৎ বড় দূষণীয়।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
আজ অষ্টমী স্নান ॥ আনুষ্ঠানিকতা না করার অনুরোধ
স্টাফ রিপোর্টার ॥
০১ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:০১:৫৯
প্রিন্টঅ-অ+


আজ ১ এপ্রিল বুধবার সনাতন ধর্মাবলম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের মহাঅষ্টমী স্মান। আজ হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন লাঙ্গলবন্দসহ দেশের বিভিন্নস্থানে বহমান নদীতে পাপ মোচনের লক্ষ্যে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে গঙ্গা স্নান সম্পন্ন করবেন পরিবার পরিজন নিয়ে। ব্রাহ্মণ পুরোহিত দ্বারা মন্ত্রপাঠে হবেন তারা পাপমুক্ত। অনুষ্ঠিত হবে স্নান সংলগ্ন স্থানে গঙ্গা পূজা, ব্রহ্মপুত্র পূজাসহ বিভিন্ন দেবদেবীর আরাধনা। স্নানস্থলে  হরেকরকম দোকানপাটের উপস্থিতিতে বসবে মেলা। যা দেশের চলমান পরিস্থিতিতে খুবই বেমানান এবং ঝুঁকিপূর্ণ। এ ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতি এড়াতে করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতার কথা চিন্তা করে সরকারের আদেশ নির্দেশের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে চাঁদপুর জেলার সর্বত্র অষ্টমীস্নানের কার্যক্রম বন্ধ রাখার ব্যবস্থাগ্রহণ করেন জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ।

পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে সকল প্রকার সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে সারা দেশে। যা নিজেদের প্রয়োজনে পালন করা আমাদের একান্ত কর্তব্য। তাই পূজা পরিষদ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ধর্মীয় সমাবেশ বন্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অষ্টমী স্নানযাত্রা না করা। আশা করি সরকারি আদেশ নির্দেশ পালনের মধ্য দিয়ে সকলে মিলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমরা সক্ষম হবো।

উল্লেখ্য, প্রতি বছরই চাঁদপুর পুরাণবাজার হরিসভা সংলগ্ন মেঘনা নদীতে ব্যাপকভাবে অষ্টমী স্নানযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এ স্নানযাত্রাকে কেন্দ্র করে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে পুণ্যার্থীরা পরিবার পরিজন নিয়ে এ স্থানে আসেন এবং ব্রাহ্মণ দ্বারা মন্ত্রপুতঃ হয়ে গঙ্গা স্নান করেন। এ উপলক্ষে স্নানস্থলে বসে বিরাট মেলা। মেঘনা নদীর এ স্থান ছাড়া চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ, মতলব, শাহারাস্তিসহ কিছু কিছু স্থানেও হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজান স্মান কার্যক্রম সম্পন্ন করে থাকেন।


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৭১৯৮
পুরোন সংখ্যা