চাঁদপুর, সোমবার ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর ৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচিত এলাকার সাবেক সাংসদ এম এ মতিন (৮৫) মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহে....রাজিউন)।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা :


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


১৬। এবং আকাশ বিদীর্ণ হইয়া যাইবে আর সেই দিন উহা বিশ্লিষ্ট হইয়া পরিবে।


১৭। ফিরিশ্তাগণ আকাশের প্রান্তদেশে থাকিবে এবং সেই দিন আটজন ফিরিশ্তা তোমার প্রতিপালকের আরশকে ধারণ করিবে তাহাদের ঊধর্ে্ব।


 


assets/data_files/web

বেদনা হচ্ছে পাপের শাস্তি।


-বুদ্ধদেব।


 


 


স্বভাবে নম্রতা অর্জন কর।


 


অতীতে রাজনৈতিক সংঘাত ও মহামারীর কারণে ২৮ বার হজ পালিত হয়নি
হাসান আলী
০৬ এপ্রিল, ২০২০ ১৫:৪৭:৪৭
প্রিন্টঅ-অ+


আব্বাসীয় খেলাফতের সময় ৮৬৫ খ্রিস্টাব্দে ইসমাঈল বিন ইউসুফের নেতৃত্বে মক্কায় হামলা চালিয়ে ক্ষয়ক্ষতি করার ফলে সে বার হজ পালিত হয়নি।

৯৩০ খ্রিস্টাব্দে কট্টরপন্থী ইসমাঈলী শিয়া দলের আবু তাহের আল জানাবি বাহরাইন থেকে মক্কা আক্রমণ করে। এতে তিরিশ হাজার হাজী নিহত হয়। নিহত হাজীদের লাশ জমজম কূপের ভেতরে ফেলে দেয়। কাবা শরিফের মূল্যবান জিনিস নিয়ে যায়। হজরে আসওয়াদ বা কালো পাথরটি বাহরাইন নিয়ে  যায়। দশ বছর পর হজরে আসওয়াদ ফেরত দিলে পুনরায় হজ শুরু হয়। এ দশ বছর হজ পালিত হয়নি।

৯৮৩ থেকে ৯৯০ খ্রিস্টাব্দ মোট আট বছর ধরে হজ বন্ধ ছিল। সে সময় ইরাক ও সিরিয়া ভিত্তিক আব্বাসীয় খেলাফতের সাথে মিশরীয় ফাতেমীয় খেলাফতের যুদ্ধ চলছিল।

১৮১৪ খ্রিস্টাব্দে হেজাজ প্রদেশে প্লেগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় আট হাজার মানুষের মৃত্যু হয়। মহামারী ঠেকাতে সে বছর হজ পালিত হয়নি। ১৮৩১ খ্রিস্টাব্দে ভারত থেকে যাওয়া হাজীদের মাধ্যমে ভয়ঙ্কর রকমের প্লেগে আক্রান্ত হয়ে এক তৃতীয়াংশ হাজীর মৃত্যু হয়। সে বছর মহামারী মোকাবিলা করতে হজ বন্ধ ছিল।

১৮৩৭ থেকে ১৮৫০ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত ভয়াবহ মহামারীর কারণে তিন বারে মোট সাত বছর ধরে হজ পালিত হয়নি। শুধু কলেরায় ১৮৪৬ খ্রিস্টাব্দে ১৫ হাজার হাজী মারা যায়।

সারা পৃথিবী আজ করোনায় বিপর্যস্ত। করোনা ভাইরাস মোকাবিলা করতে চিকিৎসা কর্মী এবং একদল সাহসী মানুষ লড়ছেন। ভয়ঙ্কর আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সঙ্গ নিরোধ এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা খুবই  গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সকল সমাবেশ এড়িয়ে চলতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা করোনা ভাইরাসের  ঝুঁকি এড়াতে মাত্র কয়েকটি দিন নিজের ঘরে ইবাদত বন্দগী করে দোজাহানের অশেষ নেকী হাসিল করুন। আল্লাহ আমাদের সহায় হবে। আমিন।

তথ্যসূত্র : হারাম শরীফের ওয়েবসাইট, মিডল ইস্ট আইটিআরটি, দি নিউ আরব।


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৭১১১৩১
পুরোন সংখ্যা