চাঁদপুর, রোববার ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৭ শাওয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা ঃ


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


২০। 'আমি জানিতাম যে, আমাকে আমার হিসাবের সম্মুখীন হইতে হইবে।'


২১। সুতরাং সে যাপন করিবে সন্তোষজনক জীবন;


২২। সুউচ্চ জান্নাতে


 


আল হাদিস


 


যা ইচ্ছা আহার করতে পারো, যা ইচ্ছা পরিধান করতে পারো, যদি তোমাকে অপব্যয় ও গর্ব স্পর্শ না করে।


বাণী চিরন্তন


মধুর ব্যবহার লাভ করতে হলে মাধুর্যময় ব্যক্তিত্বের সংস্পর্শে আসতে হয়। -উইলিয়াম উইন্টার।


 


 


 


 


 


assets/data_files/web

মহৎ মানুষেরা বিধাতার কল্পনার চমৎকার ফসল।


-পি জে বেইলি।


 


 


 


প্রত্যেক কওমের জন্য একটি পরীক্ষা আছে এবং আমার উম্মতদের পরীক্ষা তাদের ধন-দৌলত।


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলব উত্তরে করোনায় গণভবনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী মোসলেমের মৃত্যু
মতলব উত্তর ব্যুরো
৩১ মে, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব উত্তর উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নের ফরিদকান্দি গ্রামের মোসলেম উদ্দিন বেপারী (৬০) করোনায় মারা গেছেন। তার বাবার নাম হাসমত বেপারী। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার কিছু সময় পর ঢাকা নেয়ার পথে তিনি মারা যান। পরে তাকে আবার গ্রামের বাড়ি মতলব উত্তর উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নের ফরিদকান্দির নিজ বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।



উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুশরাত জাহান মিথেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া মোসলেম উদ্দিন বেপারী গণভবনে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে চাকুরি করেন। গত প্রায় ৭ দিন আগে করোনার উপসর্গ নিয়ে (জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে) করোনার নমুনা দেন ঢাকায়। তার একদিন পর করোনার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তার শরীরের অবস্থা খারাপ পর্যায়ে ছিল, শ্বাসকষ্ট বেশি ছিল। এরপর তিনি হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট তথা করোনা পজিটিভ নিয়েই তার গ্রামের বাড়ি মতলব উত্তর উপজেলায় আসেন। বিষয়টি জানতে পেরে গত ৪ দিন আগে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ গণভবনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী মোসলেম উদ্দিন বেপারীকে তার বাড়িতেই আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করেন। শুক্রবার (২৯ মে) অবস্থা আরো খারাপ হলে ঢাকা নেয়ার পথে সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটের সময় তিনি মারা যান। তার মরদেহ নিজ বাড়িতে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফনের প্রস্তুতি চলছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ সূত্রে জানা গেছে।



সুলতানাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান মনজুর মোরশেদ স্বপন জানান, উপজেলা প্রশাসন ও থানার ওসির নির্দেশে বৃহস্পতিবার আমি চেষ্টা করেছিলাম মোসলেম উদ্দিনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েনিতে। কিন্তু তিনি রাজি না হওয়ায় বাড়িটি লকডাউন করা হয়। এরপর আমি তাকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করি। আজ শুক্রবার তিনি মারা গেলেন। তাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফনের ব্যবস্থা করা হয়।



উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুসরাত জাহান মিথেন আরো জানান, মৃত ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বিধায় তার আর নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়। সিভিল সার্জন ডাঃ সাখাওয়াত উল্লাহ জানান, আমি যতটুকু জেনেছি তিনি গণভবন এলাকায় নমুনা দিয়েছেন। এরপর মতলব উত্তরে নিজ বাড়িতে চলে আসেন। শুক্রবার অবস্থা খারাপ হলে ঢাকা নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫০০৫৫০
পুরোন সংখ্যা