চাঁদপুর, সোমবার ১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৮ শাওয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা :


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


২৩। যাহার ফলরাশি অবনমিত থাকিবে নাগালের মধ্যে।


২৪। তাহাদিগকে বলা হইবে, 'পানাহার কর তৃপ্তির সহিত, তোমরা অতীত দিনে যাহা করিয়াছিলে তাহার বিনিময়ে।'


 


 


যারা আত্মপ্রশংসা করে খোদা তাহাদের ঘৃণা করেন।


-সেন্ট ক্লিমেন্ট।


 


 


 


 


 


যা ইচ্ছা আহার করতে পারো, যা ইচ্ছা পরিধান করতে পারো, যদি তোমাকে অপব্যয় ও গর্ব স্পর্শ না করে।


 


 


ফটো গ্যালারি
হাজীগঞ্জে দাখিলে পাসের হার ৮৩
জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন
কামরুজ্জামান টুটুল
০১ জুন, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গতকাল রোববার প্রকাশিত দাখিল পরীক্ষার প্রকাশিত ফলাফলে হাজীগঞ্জে পাসের হার ৮২.৯০। এর মধ্যে ২১ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। ৩টি মাদরাসা শতভাগ পাসের গৌরব অর্জন করেছে। এ বছর উপজেলার ২৩টি বিদ্যালয় থেকে ১ হাজার ৪৭ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছে ৮শ' ৬৮ জন।



উপজেলার ২৩টি মাদরসার মধ্যে ১০টি মাদরাসা থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে হাজীগঞ্জ আহমাদীয়া কামিল মাদরাসা থেকে সবচে' বেশি সংখ্যক পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে ৬৯ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সবাই পাস করেছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন।



নওহাটা ফাজিল মাদরাসা থেকে ৮১ জন অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৮১ জন। পাসের হার শতকরা ৯৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। কাপাইকাপ আলিম মাদরাসা থেকে ৪৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সবাই পাস করেছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। ছালেহ আবাদ এম.এন. ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৯ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৪৪ জন। পাসের হার শতকরা ৮৯.৮০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন।



রাজারগাঁও ফাজিল মাদরাসা থেকে ৬৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৫৭ জন। পাসের হার শতকরা ৮৯.০৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। নেছারাবাদ ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৪২ জন। পাসের হার শতকরা ৯১.৩০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন পরীক্ষার্থী। সাদ্রা হামিদিয়া ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৩৪ জন। পাসের হার শতকরা ৭৭.২৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন।



বাকিলা ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৭ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৪২ জন। পাসের হার শতকরা ৮৯.৩৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। বলাখাল এম.এন আলিম মাদরাসা থেকে ৩০ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২২ জন। পাসের হার শতকরা ৭৩.৩৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। আলী আহমাদ ইসলামীয়া একাডেমি থেকে ১৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সবাই পাস করেছে ।



রামচন্দ্রপুর ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৩জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৯ জন। পাসের হার শতকরা ৬৭.৪৪। সুহিলপুর এ.বি.এস. ফাজিল মাদরাসা থেকে ৫৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৪৮ জন। পাসের হার শতকরা ৯০.৫৭। হাজেরা আলী ক্যাডেট মাদরাসা থেকে ৩২ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৭ জন। পাসের হার শতকরা ৮৪.৩৮।



বেলচোঁ কারিমাবাদ ফাজিল মাদরাসা থেকে ৭৭ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৪৪ জন। পাসের হার শতকরা ৫৭.১৪। দেশগাঁও দারুস সালাম ইসলামীয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৩৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৩ জন। পাসের হার শতকরা ৬৩.৮৯। রাজাপুর ইসলামীয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৪৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৩৫ জন। পাসের হার শতকরা ৮১.৪০।



মদিনাতুল উলুম ইসলামীয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৩৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৯ জন। পাসের হার শতকরা ৭৬.৩২। মাদরাসায়ে আবেদীয়া মোজাদ্দেদীয়া থেকে ৬৫ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৫৮ জন। পাসের হার শতকরা ৮৯.২৩। ডাটরা-শিবপুর আজিকিয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৩৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৬ জন। পাসের হার শতকরা ৭৬.৪৭। উচ্চগাঁও ইসলামীয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ২১ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ১৫ জন। পাসের হার শতকরা ৭১.৪৩।



রাজাপুর ছিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৩৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৯ জন। পাসের হার শতকরা ৮৫.২৯। মকবুল আহমেদ ইছমাঈলিয়া দাখিল মাদরাসা থেকে ৩১ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৮ জন। পাসের হার শতকরা ৯০.৩২। কাকৈরতলা ইসলামীয়া আলিম মাদরাসা থেকে ৪৭ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৬ জন। পাসের হার শতকরা ৫৫.৩২।



 



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ১,৭২,১৩৪ ১,২০,১২,১২৫
সুস্থ ৮০,৮৩৮ ৬৫,৬৩,৪৯২
মৃত্যু ২১৯৭ ৫,৪৮,৮৯৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৬৫১৬৬
পুরোন সংখ্যা