চাঁদপুর, রোববার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ৯ সফর ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৬-সূরা দাহ্র বা ইন্সান


৩১ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২৯। ইহা এক উপদেশ, অতএব যাহার ইচ্ছা সে তাহার প্রতিপালকের দিকে পথ অবলম্বন করুক।


৩০। তোমরা ইচ্ছা করিবে না যদি না আল্লাহ ইচ্ছা করেন। আল্লাহ সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।


৩১। যিনি যাহাকে ইচ্ছা তাঁহার অনুগ্রহের অন্তর্ভুক্ত করেন, কিন্তু যালিমরা-উহাদের জন্য তো তিনি প্রস্তুত রাখিয়াছেন মর্মন্তুদ শাস্তি।


 


 


প্রার্থনা হবে দিনের চাবি এবং রাত্রের তালা স্বরূপ।


-টমাস ফুলার।


 


 


 


 


মজুরের গায়ের ঘাম শুকাবার আগেই তার মজুরি দিয়ে দাও।


 


 


ফটো গ্যালারি
নৌকার পালে হাওয়া, মিছিলে মিছিলে মুখরিত চাঁদপুর শহর
পৌরবাসীর কাঙ্ক্ষিত নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে যা যা করণীয় তাই করতে নৌকার প্রার্থী জুয়েলের আহ্বান
বিমল চৌধুরী
২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বাণিজ্যিক ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনাসহ পর্যটন ও নান্দনিক পৌরসভা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে বিশাল গণজমায়েতে বক্তব্য রাখলেন চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল। তিনি প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আগামী ১০ অক্টোবর চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচন। এ নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করার লক্ষ্যে যা যা করণীয় আপনারা তাই করবেন। আমি এক্ষেত্রে সকল প্রকার সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছি। গতকাল ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকেলে চাঁদপুর শহরের নতুনবাজার জেএম সেনগুপ্ত রোডস্থ তার নির্বাচনী কার্যালয়ে নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের ব্যাপক উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বিশাল সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, আমার ৪৮ বছর বয়সে জ্ঞাতসারে কখনো কোনো অন্যায় করি নি। সততার সাথে জীবন অতিবাহিত করতে চেষ্টা করেছি। ন্যায় প্রতিষ্ঠায় অন্যায়ের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছি, সৎ থাকতে চেষ্টা করেছি। আগামী ১০ অক্টোবর হবে চাঁদপুরবাসীর বহু কাঙ্ক্ষিত নির্বাচন। এ নির্বাচনে আমি আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী, জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রার্থী, চাঁদপুরের উন্নয়নের রূপকার ডাঃ দীপু মনি এমপির প্রার্থী, সুবিধা বঞ্চিত অবহেলিত চাঁদপুর পৌরবাসীর প্রার্থী। যদি আগামী ১০ তারিখের নির্বাচনে পৌরবাসীর ভোটে নির্বাচিত হতে পারি তাহলে চাঁদপুর পৌরসভায় কোনো সুবিধাবাদী সিন্ডিকেট থাকবে না। উন্নয়নের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে গড়ে উঠবে চাঁদপুর পৌরসভা। কাজ করবো পৌর নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধিসহ নান্দনিক পৌরসভা গঠনে। ফিরিয়ে আনবো চাঁদপুরের ঐতিহ্য ব্যবসায়িক সুনাম। গড়ে তুলব পর্যটন কেন্দ্র। তিনি আরো বলেন, আগামী ১০ তারিখের নির্বাচন প্রতিহত করার লক্ষ্যে একটি সিন্ডিকেট কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা সফল হবে না। মানুষের আকাঙ্ক্ষাকে অবমূল্যায়ন করে কেউ বেশী দিন টিকে থাকতে পারে না। যারা আজ নির্বাচন প্রতিহত করার জন্য পর্দার আড়ালে কাজ করে যাচ্ছেন তারাও বেশিদিন টিকে থাকতে পারবেন না। কোনো অপশক্তিই চাঁদপুরবাসীর কাঙ্ক্ষিত পৌর নির্বাচন বানচাল করতে পারবে না, ঘোষিত তারিখেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আপনারা নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে যাবেন। ইভিএমের মাধ্যমে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। কারচুপি করার কোনো সুযোগ নেই। আপনাদের দেয়া ভোটেই আগামী ১০ তারিখে নৌকার বিজয় হবে ইনশাল্লাহ। বিজয় হবে সুবিধা বঞ্চিত চাঁদপুর পৌরবাসীর। তিনি নির্বাচনী সকল আচরণবিধি মেনে চলার জন্যে নেতা-কর্মীদের আহ্বান জানান এবং নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ হয় এমন কোনো কাজ না করারও প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।



সমাবেশে অন্যান্যর মাঝে বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির বড় ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু, সহ-সভাপতি চাঁদপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ ইউছুফ গাজী, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপিক মাসুদা নূর খান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী এরশাদ মিয়াজী।



অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী। নেতৃবৃন্দের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজোলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সন্তোষ চন্দ্র দাস, অ্যাডঃ বিনয় ভূষণ মজুমদার, শাহ আলম মিয়া, ডাঃ হারুনুর রশিদ সাগর, হাসান ইমাম বাদশা, অ্যাডঃ বদিউজ্জামান কিরণ, আবু নাসের বাচ্চু পাটওয়ারী, খালেদুর রহমান মিঠু, মাহবুবুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা রাধা গোবিন্দ গোপ, আমিনুর রহমান বাবুল, এমরান হোসেন সেলিম, জেলা যুবলীগ নেতা মাহফুজুর রহমান টুটুল, মোহম্মদ আলী মাঝি, জেলা যুব মহিলা লীগ নেত্রী ফরিদা ইলিয়াছ, জেলা ছাত্রলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, মোঃ সাদ্দাম হোসেনসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।



এদিকে এ গণজমায়েতকে কেন্দ্র করে দুপুরের পর থেকে পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ-সংগঠনের নেতৃবৃন্দ খ- খ- মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে জড়ো হতে থাকে। এ সময় নেতা-কর্মীসহ নৌকার সমর্থকদের মাঝে বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস পরিলক্ষিত হয়। নৌকার পক্ষে নেতা কর্মীদের শ্লোগানে এলাকা মুখরিত হয়ে উঠে। বৈরী আবহাওয়ার মধ্য দিয়ে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি ও খ- খ- মিছিলে শহর পরিণত হয় মিছিলের শহরে। সড়কের উপরে বৃষ্টিতে ভিজেই নৌকার সমর্থনে, শেখ হাসিনার সমর্থনে, ডাঃ দীপু মনির সমর্থনে, পৌর নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জুয়েলের সমর্থনে নেতা কর্মীদের শ্লোগান। দীর্ঘ সময় নিয়ে তথা দুপুর ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নেতা কর্মীদের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছাসে নেতৃবৃন্দসহ প্রার্থী আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। জিল্লুর রহমান জুয়েল দুহাত তুলে নেতা কর্মীসহ নৌকার সমর্থকদের অভিবাদন জানান পরম কৃতজ্ঞতায়।



 


এই পাতার আরো খবর -
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৮৭,২৯৫ ৩,৯৬,৩৮,১৮৮
সুস্থ ৩,০২,২৯৮ ২,৯৬,৭৮,৪৪৬
মৃত্যু ৫,৬৪৬ ১১,০৯,৮৩৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০৩৪৪১৫
পুরোন সংখ্যা