চাঁদপুর। রোববার ৬ আগস্ট ২০১৭। ২২ শ্রাবণ ১৪২৪। ১২ জিলকদ ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত


৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২০। বল,‘ তোমরা পৃথিবীতে পরিভ্রমণ কর এবং অনুধাবন কর, কিভাবে তিনি সৃষ্টি আরম্ভ করিয়াছেন? অতঃপর আল্লাহ সৃষ্টি করিবেন পরবর্তী সৃষ্টি। আল্লাহ্ তো সর্ব বিষয়ে সর্বশক্তিমান। 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


মানুষ ঠকানোর ব্যবসা সবচেয়ে নিকৃষ্ট ব্যবসা। 


            - আবুল ফজল।

যে ব্যক্তি মানুষকে দয়া করে না, আল্লাহও তাকে দয়া করে না।


ফটো গ্যালারি
উত্তর প্রদেশ থেকে ‘বাংলাদেশি জঙ্গি’ গ্রেপ্তার
০৬ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:০২:০৭
প্রিন্টঅ-অ+


ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের মুজাফফরনগর এলাকা থেকে এক ‘বাংলাদেশি জঙ্গিকে’ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উত্তর প্রদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখার (এটিএস) দাবি, গ্রেপ্তার ব্যক্তি আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সদস্য।



আজ রোববার সকালে মুজাফফরনগর জেলার কুটেসারা গ্রাম থেকে আবদুল্লাহ নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে এটিএস।



ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গ্রেপ্তার আবদুল্লাহ বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সঙ্গে যুক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাঁর কাছ থেকে নকল আধার (রেশন) কার্ড, পাসপোর্ট এবং মোট ১৩টি বিভিন্ন ধরনের পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে। আবদুল্লাহর কাজকর্ম নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই সন্দেহ ছিল পুলিশের। তাঁকে পুলিশি নজরদারিতে রাখা হয়েছিল বলে জানা গেছে।



উত্তর প্রদেশের সন্ত্রাস দমন শাখা জানিয়েছে, আবদুল্লাহকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ সময় তিনি জানান, ২০১১ সালে ভারতে এসে উত্তর প্রদেশের সাহারানপুর জেলার দেওবন্দে ফাইজান নামের একজনের সঙ্গে বসবাস করতে থাকেন আবদুল্লাহ। গত মাসে সেখান থেকে মুজাফফরনগরের কুটেসারায় আসেন তিনি। মূলত ভারতে আসা বাংলাদেশি জঙ্গিদের ভারতে নিরাপদে থাকার জন্য নকল পাসপোর্ট এবং পরিচয়পত্র তৈরির কাজ করতেন বলে স্বীকার করেছেন আবদুল্লাহ।



গ্রেপ্তার আবদুল্লাহর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে উত্তর প্রদেশের সাহারানপুরের পুলিশের উপমহাপরিদর্শকের নেতৃত্বে মুজাফফরনগর, সাহারানপুর ও শামলি থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এই তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে এটিএস। এরই মধ্যে শামলির জালালাবাদ থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে আবদুল্লাহ যাঁর সঙ্গে থাকতেন, সেই ফাইজানের সন্ধান মেলেনি। তাঁর খোঁজে অভিযান এখনো চলছে।


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬১০৬১১
পুরোন সংখ্যা