চাঁদপুর। মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮। ২৯ কার্তিক ১৪২৫। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫১-সূরা সূরা তূর

৪৯ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৭। মুত্তাকীরা তো থাকিবে জান্নাতে ও আরাম-আয়েশে,

১৮। তাহাদের প্রতিপালক তাহাদিগকে যাহা দিবেন তাহারা তাহা উপভোগ করিবে এবং তাহাদের রব তাহাদিগকে রক্ষা করিবেন জাহান্নামের ‘আযাব হইতে’।


assets/data_files/web

নতুন দিনই নতুন চাহিদা এবং নতুন দৃষ্টিভঙ্গীর উদয় করে। -জন লিডগেট।


ক্ষমতায় মদমত্ত জালেমের জুলুমবাজির প্রতিবাদে সত্য কথা বলা ও মতের প্রচারই সর্বোৎকৃষ্ট জেহাদ।


ফটো গ্যালারি
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পুনঃতফসিল
ভোটের নতুন তারিখ ৩০ ডিসেম্বর
মিজানুর রহমান
১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্যে পুনঃতফসিলের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। ভোটগ্রহণের তারিখ এক সপ্তাহ পিছিয়ে ৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পুনঃতফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। পুনঃতফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষদিন ২৮ নভেম্বর। আর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের শেষ তারিখ ২ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর।



গতকাল ১২ নভেম্বর সোমবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা নির্বাচনের এ পুনঃতফসিলের কথা জানান।



সিইসি কেএম নূরুল হুদা বলেন, আমরা তফসিল পুনঃনির্ধারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে। ৩০ ডিসেম্বর হবে ভোটগ্রহণ। সিইসি বলেন, নির্বাচনে সকল দলের অংশগ্রহণ আশা করেছিলাম এবং তা হয়েছে। এজন্যে দলগুলোকে অভিনন্দন জানাই। ঐক্যফ্রন্টসহ বিরোধী দলগুলো পুনঃতফসিলের আবেদন জানিয়েছিলো। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আমরা পুনঃতফসিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।



উল্লেখ্য, গত ৮ নভেম্বর ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করা হয়েছিলো। এছাড়া মনোনয়নপত্র জমার শেষ তারিখ ছিলো ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ছিলো ২৯ নভেম্বর।



জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) চিঠি দিয়ে ভোট পেছানোর দাবি জানায়। ঐক্যফ্রন্ট ১১ নভেম্বর রোববার নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়ে তফসিল এক মাস পেছানোর দাবি জানায়। আর বি. চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট ভোটের তারিখ ও অন্যান্য তারিখ এক সপ্তাহ পেছানোর দাবি জানায়। দুটি জোটই রোববার ইসিতে আলাদা চিঠি দেয়।



এছাড়া বাম গণতান্ত্রিক জোটও পুনঃতফসিলের দাবি জানায়। এদিকে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, ইসি তফসিল পেছাতে চাইলে আওয়ামী লীগ আপত্তি করবে না। জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, ভোটের তারিখ পেছানো না-পেছানো এটা ইসির এখতিয়ার। ইসি প্রয়োজন মনে করলে তারিখ পেছাতে পারে। আমাদের কোনো আপত্তি নেই। তবে জাপা নির্বাচনের জন্যে প্রস্তুত আছে।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২৩৮০
পুরোন সংখ্যা