চাঁদপুর, শুক্রবার ১৫ মার্চ ২০১৯, ১ চৈত্র ১৪২৫, ৭ রজব ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা :


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


৩৪। এবং অভাবগ্রস্তকে অন্নদানে উৎসাহিত করিত না,


৩৫। অতএব এইদিন সেথায় তাহার কোন সুহৃদ থাকিবে না,


৩৬। এবং কোন খাদ্য থাকিবে না ক্ষত নিঃসৃত স্রাব ব্যতীত,


 


 


 


assets/data_files/web

অতিরিক্ত চাহিদাই মানুষের পতনকে ডেকে আনে।


-জন অলকৃট।


 


 


 


মানবতাই মানুষের শ্রেষ্ঠতম গুণ।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ
১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

গত ১০ মার্চ দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠ পত্রিকার প্রথম পাতায় প্রকাশিত 'মেঘনা এঙ্প্রেস চলাচলের সময় গেইটম্যানের দায়িত্ব অবহেলা, অধিকাংশ সময় খোলা থাকে চাঁদপুর কোর্টস্টেশন রেলগেইট, বড় দুর্ঘটনার আশঙ্কা' শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতি আমার দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। আমার ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সম্পত্তিগত বিষয়ে কিছু লোকজনের সাথে শত্রুতা রয়েছে। তারা আমার প্রতি শত্রুতা উদ্ধার করার জন্যে সাংবাদিকদের ভুল ও মিথ্যা তথ্য দেয়। সংবাদে যে গাড়ির নাম্বার দেয়া হয়েছে এ রকম কোনো ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত নই এবং এ বিষয়ে আমি কোনো সাংবাদিকের কাছে বক্তব্য দেইনি। প্রকৃত ঘটনা নিম্নরূপ : চাঁদপুর কোর্টস্টেশন গেইট জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে অবস্থিত বিধায় উক্ত গেইটে সবসময় যানবাহন ও লোকজনের ভিড় লেগেই থাকে। চাঁদপুর স্টেশন থেকে চাঁদপুর কোর্ট স্টেশনের মধ্যবর্তী স্থানে কার্ব থাকার কারণে ট্রেনের অবস্থান গেইটম্যানদের নিশ্চিত হওয়ার জন্য স্টেশন প্লাটফর্মের পশ্চিম মাথায় আসতে হয়। ট্রেনের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর দ্রুত এসে গেইট বন্ধ করতে হয়। অনুরূপভাবে মৈশাদী থেকে চাঁদপুর কোর্ট স্টেশনের ক্ষেত্রে একই অবস্থা পূর্বে চাঁদপুর স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর গেইটম্যানদের ফোন করা হতো, যা বর্তমানে বিকল রয়েছে। উপরন্তু চাঁদপুর কোর্ট স্টেশনের গেইটে দুটি হুইল রয়েছে, একজন গেইটম্যান দুটি হুইল ঘুরিয়ে গেইট বন্ধ করতে হয়। আমি আমার দায়িত্ব সঠিক নিয়মে পালনে সর্বদা সচেষ্ট থাকি এবং আগামী দিনেও সর্বদা সচেতন থাকার জন্য বদ্ধপরিকর। আমি প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

-মোঃ মফিজুল ইসলাম মোল্লা, গেইটম্যান, এলসি গেইট নং-০৯। জিডি-৩২৫/১৯।

এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২৯১৮
পুরোন সংখ্যা