চাঁদপুর, শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৮ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৩-সূরা মুয্যাম্মিল


২০ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


১৭। অতএব যদি তোমরা কুফরী কর তবে কী করিয়া আত্মরক্ষা করিবে সেই দিন যেই দিনটি কিশোরকে পরিণত করিবে বৃদ্ধে,


 


 


 


assets/data_files/web

শিক্ষা অলঙ্কারের মতো নয়। এর হারিয়ে যাবার সম্ভাবনা নেই।


-বার্নাস।


 


সাবধান ধর্ম সম্বন্ধে বাড়াবাড়ি কোরো না। (ধর্মের) বাড়াবাড়ির জন্য তোমাদের পূর্ববর্তী বহু জাতি ধ্বংস হয়ে গেছে।


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলবের বিভিন্ন মসজিদে ইফতারের অন্য রকম পরিবেশ
মুহাম্মদ আরিফ বিল্লাহ
২৪ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ইফতার মানেই এক বেহেশতী পরিবেশ। রোজাদারের নিকট এক তাৎপর্যময় মুহূর্ত। সারাদিন রোজা রেখে ইফতার সামগ্রী সামনে এলে রোজাদার অনুভব করে এক স্বর্গীয় তৃপ্তি। এমনি সুন্দর পরিপাটি ইফতারের আয়োজন হয় মতলব দক্ষিণ উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে। প্রথম রোজা থেকেই প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে নানা আয়োজনে সাজানো হয় ইফতারির বাহারি সব উপকরণ। এসব ইফতারিতে থাকে বুট, পিঁয়াজু, আলুর চপ, ডিমের চপ, পাকুরা, খেজুর, শরবত, বিভিন্ন ধরনের ফল, মুড়ি ইত্যাদি। কোথাও কোথাও আবার ইফতারিতে বিরিয়ানি বা খিচুড়ির ব্যবস্থাও করা হয়। দুপুরের পর থেকেই এলাকার যুবকরা ইফতার তৈরির কাজে ব্যস্ত হয়ে যায়। নিজেদের মধ্যে কাজ ভাগাভাগি করে অত্যন্ত সুন্দরভাবে কাজগুলো সম্পন্ন করে রোজাদারের সামনে ইফতারি পেঁৗছে দেয়। এমনই কয়েকজন যুবক নারায়ণপুর সাহেব বাজার জামে মসজিদের ইফতার তৈরির কাজে নিয়োজিত ইব্রাহীম প্রধান, মমিন ও আবু নাছেরের সাথে কথা হয়। তারা জানান, সারাদিন রোজা রেখে দুই-তিনশ' মানুষের ইফতারের আঞ্জাম দিতে কোনো কষ্টই হয় না। বরং এ কাজে যে আনন্দ পাই তা বলে প্রকাশ করা যাবে না। তারা আরও জানান, আমরা এ কাজ করে থাকি একমাত্র মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি হাসিলের জন্যে।



কথা হয় একজন রোজাদারের সাথে। তিনি জানান, মসজিদে অনেকের সাথে অনেক আইটেম দিয়ে ইফতার করার আনন্দটাই আলাদা। তাছাড়া এখানে মসজিদের ইমাম ইফতারের পূর্বে সংক্ষিপ্ত বয়ানের পর বিশেষ দোয়া করে থাকেন। এ জন্যেই আমি মসজিদে ইফতার করে থাকি। মহান আল্লাহ আমাদের সকলকে ইফতারের মহা নিয়ামত লাভের সুযোগ দান করুক।



 


এই পাতার আরো খবর -
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ২,৫৫,১১৩ ১,৯৫,৬২,২৩৮
সুস্থ ১,৪৬,৬০৪ ১,২৫,৫৮,৪১২
মৃত্যু ৩৩৬৫ ৭,২৪,৩৯৪
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৪১৯৮৯
পুরোন সংখ্যা