চাঁদপুর, শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৮ রমজান ১৪৪০
jibon dip
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


ঝগড়াটে ব্যক্তি আল্লাহর নিকট অধিক ক্রোধের পাত্র।


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলবের বিভিন্ন মসজিদে ইফতারের অন্য রকম পরিবেশ
মুহাম্মদ আরিফ বিল্লাহ
২৪ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ইফতার মানেই এক বেহেশতী পরিবেশ। রোজাদারের নিকট এক তাৎপর্যময় মুহূর্ত। সারাদিন রোজা রেখে ইফতার সামগ্রী সামনে এলে রোজাদার অনুভব করে এক স্বর্গীয় তৃপ্তি। এমনি সুন্দর পরিপাটি ইফতারের আয়োজন হয় মতলব দক্ষিণ উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে। প্রথম রোজা থেকেই প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে নানা আয়োজনে সাজানো হয় ইফতারির বাহারি সব উপকরণ। এসব ইফতারিতে থাকে বুট, পিঁয়াজু, আলুর চপ, ডিমের চপ, পাকুরা, খেজুর, শরবত, বিভিন্ন ধরনের ফল, মুড়ি ইত্যাদি। কোথাও কোথাও আবার ইফতারিতে বিরিয়ানি বা খিচুড়ির ব্যবস্থাও করা হয়। দুপুরের পর থেকেই এলাকার যুবকরা ইফতার তৈরির কাজে ব্যস্ত হয়ে যায়। নিজেদের মধ্যে কাজ ভাগাভাগি করে অত্যন্ত সুন্দরভাবে কাজগুলো সম্পন্ন করে রোজাদারের সামনে ইফতারি পেঁৗছে দেয়। এমনই কয়েকজন যুবক নারায়ণপুর সাহেব বাজার জামে মসজিদের ইফতার তৈরির কাজে নিয়োজিত ইব্রাহীম প্রধান, মমিন ও আবু নাছেরের সাথে কথা হয়। তারা জানান, সারাদিন রোজা রেখে দুই-তিনশ' মানুষের ইফতারের আঞ্জাম দিতে কোনো কষ্টই হয় না। বরং এ কাজে যে আনন্দ পাই তা বলে প্রকাশ করা যাবে না। তারা আরও জানান, আমরা এ কাজ করে থাকি একমাত্র মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি হাসিলের জন্যে।



কথা হয় একজন রোজাদারের সাথে। তিনি জানান, মসজিদে অনেকের সাথে অনেক আইটেম দিয়ে ইফতার করার আনন্দটাই আলাদা। তাছাড়া এখানে মসজিদের ইমাম ইফতারের পূর্বে সংক্ষিপ্ত বয়ানের পর বিশেষ দোয়া করে থাকেন। এ জন্যেই আমি মসজিদে ইফতার করে থাকি। মহান আল্লাহ আমাদের সকলকে ইফতারের মহা নিয়ামত লাভের সুযোগ দান করুক।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৭৩৭৪১
পুরোন সংখ্যা