চাঁদপুর, শনিবার ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ রমজান ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।



৪৩। আমিই জীবন দান করি; মৃত্যু ঘটাই এবং সকলের প্রত্যাবর্তন আমারই দিকে।

৪৪। যেদিন তাহাদের উপরস্থ জমিন বিদীর্ণ হইবে এবং মানুষ ত্রস্ত্র-ব্যস্ত হইয়া ছুটাছুটি করিবে, এই সমবেত সমাবেশকরণ আমার জন্য সহজ।

৪৫। উহারা যাহা বলে তাহা আমি জানি, তুমি উহাদের উপর জবরদস্তিকারী নহ; সুতরাং যে আমার শাস্তিকে ভয় করে তাহাকে উপদেশ দান কর কুরআনের সাহায্যে।

 


assets/data_files/web

নতুন দিনই নতুন চাহিদা এবং নতুন দৃষ্টিভঙ্গীর উদয় করে। -জন লিডগেট।


ক্ষমতায় মদমত্ত জালেমের জুলুমবাজির প্রতিবাদে সত্য কথা বলা ও মতের প্রচারই সর্বোৎকৃষ্ট জেহাদ।


ফটো গ্যালারি
কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে বোরো ধান সংগ্রহে
কচুয়ায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের প্রচারণা
মোহাম্মদ মহিউদ্দিন
২৫ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


কচুয়ায় কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে বোরো ধান সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রতি মণ ধান ১ হাজার ৪০ টাকা করে ক্রয় করা হবে। গত সোমবার বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুমন দে ধান সংগ্রহের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পরদিন মঙ্গলবার থেকে ধান সংগ্রহে কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির ব্যতিক্রম উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তিনি উপজেলার বিভিন্ন সড়কে তার গাড়ি ব্যবহার করে প্রকৃত সুবিধাভোগী কৃষকদেরকে ন্যায্যমূলে ধান বিক্রি করতে সরাসরি উপজেলা খাদ্য গুদামে ধান নিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে মাইকে প্রচারণা চালান। তাঁর এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে সুশীল সমাজ।



এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহজাহান শিশির বলেন, কচুয়া উপজেলার প্রকৃত সুবিধাভোগী কৃষকরা যেনো কোনো দালাল কিংবা ধান ব্যবসায়ী কর্তৃক প্রতারিত না হতে পারে। এছাড়া কৃষকরা যেন সরাসরি তাদের কষ্টের ফসল উপজেলা খাদ্য গুদামে বিক্রি করে তাদের ন্যায্য পাওনা পায় এ জন্যেই তিনি এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।



উল্লেখ্য, কচুয়ায় এ মৌসুমে ১২ হাজার ৭শ' ৫ হেক্টর জমিতে বোরো ইরি ধান চাষ করা হয়। যার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ৬২ হাজার মেট্রিক টন। এর মধ্যে ৩শ ৪৫ মেট্রিক টন ধান যে সকল কৃষকের কৃষি কার্ড আছে তাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হবে। প্রকৃত তালিকাভুক্ত কৃষকরা (প্রায় ৫শ' কৃষক) উপজেলার ৩৭টি বস্নকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সরকারি মূল্যে তাদের ধান বিক্রি করতে পারবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৯১৫১
পুরোন সংখ্যা