চাঁদপুর, রোববার ১১ আগস্ট ২০১৯, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ৯ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • অনিবার্য কারণে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির আজকের চাঁদপুর সফর স্থগিত করা হয়েছে
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৪-সূরা কামার


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩০। কিরূপ কঠোর ছিল আমার শাস্তি ও সতর্কবাণী !


৩১। আমি উহাদিগকে আঘাত হানিয়াছিলাম এক মহানাদ দ্বারা; ফলে উহারা হইয়া গেল খোয়াড় প্রস্তুতকারীর বিখ-িত শুষ্ক শাখা-প্রশাখার ন্যায়।


৩২। আমি কুরআন সহজ করিয়া দিয়াছি উপদেশ গ্রহণের জন্য; অতএব উপদেশ গ্রহণকারী কেউ আছে কি?


 


একজন অল্প বয়স্ক মেয়ে স্ত্রী হিসেবে অথবা মা হিসেবে কোনোটাতেই ভালো নয়। -নজ এডামস।


 


 


নফস্কে দমন করাই সর্বপ্রথম জেহাদ।


 


 


ফটো গ্যালারি
মেয়র নাছির উদ্দিনের পুরাণবাজার ভাঙ্গন কবলিত স্থান পরিদর্শন ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস
বিমল চৌধুরী
১১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার হরিসভা এলাকার নদী ভাঙ্গন কবলিত শহর রক্ষাবাঁধ পরিদর্শন করেছেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ। তিনি গতকাল ১০ আগস্ট শনিবার বিকেলে ভাঙ্গন কবলিত স্থানে যান এবং নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে বেশ কিছু সময় অতিবাহিত করেন এবং ভাঙ্গন কবলিত স্থান ঘুরে দেখেন। তিনি পরিস্থিতি দেখে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষতিগ্রস্তদের সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, আপনারা হতাশ হবেন না। আমরা আমাদের সাধ্যানুযায়ী আপনাদের সহায়তা দিতে চেষ্টা করবো। চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগসহ নেতা-কর্মীরা আপনাদের পাশে আছেন। যা ঘটেছে তা প্রাকৃতিক দুর্যোগ ছাড়া আর কিছুই নয়। ভাঙ্গন প্রতিরোধে ইতিমধ্যে সকল ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়েছে। প্রশাসন থেকেও সাহায্য-সহায়তা করা হচ্ছে। আমরা ভাঙ্গন প্রতিরোধে স্থায়ী ব্যবস্থাগ্রহণের জন্যে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। আপনারা ধৈর্য হারাবেন না। পৌর মেয়রকে কাছে পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তারা মেয়রের নিকট পুনর্বাসনের দাবি জানান। তারা বলেন, আগুনে পুড়লে মাটি থাকে, নদী ভাঙ্গলে কিছুই থাকে না। আমাদের অবস্থাও তেমন হয়েছে।



এ সময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী, পুরাণবাজার ফাঁড়ির এসআই মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, পৌর কাউন্সিলর আঃ মালেক বেপারী, সাবেক কাউন্সিলর মাহফুজ বেপারী, আসলাম গাজী, হরিসভা মন্দির কমপ্লেঙ্রে সাধারণ সম্পাদক উমেষ চন্দ্র সাহা, শহর যুবলীগের আহ্বায়ক আঃ মালেক শেখ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা খায়ের মিজি, নজরুল ইসলাম পাটওয়ারী, কামাল হাওলাদার, ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম, জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের নেতা ডাঃ সহদেব দেবনাথ, অনন্ত চক্রবর্তী, কার্তিক সরকার প্রমুখ।



উল্লেখ্য, গত ৩ আগস্ট রাতে হরিসভা এলাকায় ভাঙ্গন দেখা দেয়, ভাঙ্গন প্রতিরোধে এ পর্যন্ত প্রায় ২৬ হাজার বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছে। ভাঙ্গনকালীন মেয়র রাষ্ট্রীয় সফরে বিদেশে অবস্থানের কারণে তাৎক্ষণিক ভাঙ্গন এলাকায় আসতে পারেননি। তিনি গত ৯ আগস্ট শুক্রবার সন্ধ্যায় বিদেশ থেকে বাংলাদেশে আসেন এবং গতকাল ভাঙ্গন কবলিত স্থান পরিদর্শন করেন।



 



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩২৫৩৭৯
পুরোন সংখ্যা