চাঁদপুর, রোববার ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৪-সূরা কামার


৫৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩৭। উহারা লূতের নিকট হইতে তাহার মেহমানদিগকে অসদুদ্দেশ্যে দাবি করল, তখন আমি উহাদের দৃষ্টিশক্তি লোপ করিয়া দিলাম এবং আমি বলিলাম, আস্বাদন কর আমার শাস্তি এবং সতর্কবাণীর পরিণাম।


 


 


 


assets/data_files/web

সংশয় যেখানে থাকে সফলতা সেখানে ধীর পদক্ষেপে আসে।


-জন রে।


 


 


যে ব্যক্তি উদর পূর্তি করিয়া আহার করে, বেহেশতের দিকে তাহার জন্য পথ উন্মুক্ত হয় না।


 


যে শিক্ষা গ্রহণ করে তার মৃত্যু নেই।


 


ফটো গ্যালারি
পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মুক্তিযোদ্ধা ও তার স্ত্রীকে রক্তাক্ত জখম বসতঘরে হামলা : ৩ লাখ টাকার ক্ষয় ক্ষতি
গোলাম মোস্তফা
১৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহ্মাহমুদপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বিমলেরগাঁ গ্রামের পাটোয়ারী বাড়িতে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সোলায়মান পাটোয়ারীর উপর সন্ত্রাসী হামলা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান পাটোয়ারীকে। এ অবস্থায় তাকে সন্ত্রাসী হামলা থেকে রক্ষায় তার বৃদ্ধা স্ত্রী খুরশিদা বেগম এগিয়ে আসলে তার উপরও সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। শুধু তাই নয়, সন্ত্রাসীরা তাদের দুজনকে আহত করেও ক্ষান্ত হননি তারা মুক্তিযোদ্ধার বসত ঘরেও হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে বলে জানান চিকিৎসাধীন মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান পাটোয়ারী।



তিনি আরো জানান, একই বাড়ির জুলফু পাটোয়ারীর সাথে তাদের পূর্ব থেকেই জমি নিয়ে বিরোধ ছিলো। কিন্তু এ বিষয়ে বর্তমানে কোনো সমস্যা ছিল না। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গত ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠান শেষ করে দুপুর দেড়টার দিকে বাড়িতে যাই। আমি আমার ঘরের প্রায় কাছাকাছি পেঁৗছা মাত্রই একই বাড়ির জুলফিকার পাটোয়ারী ওরফে জুলফু পাটোয়ারী নিজে তার ২ ছেলে কাউছার আহমেদ পাটোয়ারী ও ফিরোজ আহমেদ পাটোয়ারী, তার আত্মীয় আবু তাহের পাটোয়ারীর ছেলে রাশেদ পাটোয়ারী আরো অজ্ঞাত ৫/৭ জন সহ হঠাৎ করেই 'ধর শালারে ধর' এমন আওয়াজ দিয়েই দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তারা চাইনিজ কুড়াল দিয়ে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকে। এক পর্যায়ে আমি আমার জীবন বাঁচাতে হাত দিয়ে তা প্রতিরোধ করে চিৎকার দিলে আমার স্ত্রী দৌড়ে ঘর থেকে বের হয়ে আমাকে রক্ষা করার জন্য আসলে তার উপরও সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে আহত করে। তাদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আমরা দু'জন রক্তাক্ত জখম হই। এরপর তারা আমার বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। আমাদের ডাক-চিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোকজন দৌড়ে এসে আমাদের রক্ষা করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।



তিনি আরো জানান, আমরা হাসপাতালে আসলে বাড়ি থেকে আমাদের জানানো হয়, আমার নিজের পুকুরের চাষ করা মাছগুলো বিষ ঢেলে সন্ত্রাসীরা মেরে ফেলে তা লুট করে নিয়ে গেছে। এছাড়া এ পুকুরের পাড় কেটে মাছ বের করে দেয়। এতে প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ অবস্থায় আমি গত ১৫ আগস্ট বিকেলে এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি। এটি শোনার পর উল্লেখিত বিবাদীরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের চিরতরে শেষ করার হুমকি দিচ্ছে। তিনি হাসপাতালের বেডে শুয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, এজন্যে কি সেদিন নিজের জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছি। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষ শক্তির সরকার আজ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকলেও একজন মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের মৃত্যু কি সন্ত্রাসীদের হাতে হবে? না, একজন মুক্তিযোদ্ধা তার ন্যায়বিচার পাবে? কোন্টির আশায় থাকবো? না কি মৃত্যুর দিকে যাবো?



এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নাসিম উদ্দিনের সাথে কথা হলে তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি এবং উভয় পক্ষই থানায় অভিযোগ দিয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১৫৬১৬
পুরোন সংখ্যা