চাঁদপুর, শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৮ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬১-সূরা সাফ্ফ


১৪ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১২। আল্লাহ তোমাদের পাপ ক্ষমা করিয়া দিবেন এবং তোমাদিগকে দাখিল করিবেন জান্নাতে যাহার পাদদেশে নদী প্রবাহিত, এবং স্থায়ী জান্নাতের উত্তম বাসগৃহে। ইহাই মহাসাফল্য।


 


 


 


assets/data_files/web

অবসরকে দর্শনশাস্ত্রের জননী বলা যায়। -টমাস হবর্স।


যে মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞ নয়, সে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ নয়।


 


 


ফটো গ্যালারি
শনিবার থেকে পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ শুরু
মোঃ আবদুর রহমান গাজী
০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


'পরিবার পরিকল্পিত সেবা গ্রহণ করি, কিশোরকালীন মাতৃত্ব রোধ করি' এ বিষয়টিকে সামনে রেখে ৭-১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদ্যাপন উপলক্ষে অ্যাডভোকেসি সভা ও প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।



এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, জনগণকে প্রত্যাশা অনুযায়ী সেবা দেয়া, সেবা নিতে উদ্বুদ্ধ করা এবং প্রতিটি কর্মীকে সেবা দিতে আরও উৎসাহিত হওয়ার জন্যে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর প্রতি বছর সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদ্যাপন করে থাকে। দেশব্যাপী সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদ্যাপনের অংশ হিসেবে বিভাগ ও জেলা পর্যায়ে অ্যাডভোকেসি ও প্রেস ব্রিফিং করা হয়েছে। তিনি মাঠকর্মীদেরকে বাড়ি বাড়ি পরিদর্শনের মাধ্যমে সেবা সপ্তাহের বার্তা এবং সেবা পেঁৗছানোর পরামর্শ দেন।



সভায় সেবা ও প্রচার সপ্তাহের জন্যে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ এবং উক্ত সেবা সপ্তাহ সফল করার আহ্বান জানিয়ে স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সভার সভাপতি জেলা পরিবার পরিকল্পনা উপ-পরিচালক ডাঃ মোঃ ইলিয়াছ। আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম পাটওয়ারী দুলাল, সিভিল সার্জন ডাঃ সাখাওয়াত উল্লাহ, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্রধর, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সাজেদা আক্তার পলিন প্রমুখ।



চাঁদপুর সদরের মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার (ক্লিনিক) ডাঃ এমএ গফুর মিয়ার সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন জেলা সূর্যের হাসি ক্লিনিকের ম্যানেজার শাহেদ রিয়াজসহ সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের প্রধানগণ।



ডাঃ মোঃ ইলিয়াছ বলেন, আমাদের সবাইকেই সচেতন হতে হবে। কন্যা সন্তান বিয়ে দেবো ১৮ বছরের আগে নয়। আর ২০ বছরের আগে গর্ভবর্তী নয়। এ বিষয়টি সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের গুরুত্ব দিতে হবে। বিশেষ করে এ দুটো বিষয় গুরুত্ব না দেয়ায় মায়েদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি থাকে। তারা জরায়ু ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৩০৬৫০
পুরোন সংখ্যা