চাঁদপুর, শনবিার ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ১১ মাঘ ১৪২৬, ২৮ জমাদউিল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬২-সূরা জুমু 'আ


১১ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৫। যাহাদিগকে তাওরাতের দায়িত্বভার অর্পন করা হইয়াছিল, কিন্তু তাহারা উহা বহন করে নাই, তাহাদের দৃষ্টান্ত পুস্তক বহনকারী গর্দভ। কত নিকৃষ্ট সে সম্প্রদায়ের দৃষ্টান্ত যাহারা আল্লাহর আয়াতসমূহকে অস্বীকার করে। আল্লাহ যালিম সম্প্রদায়কে সৎপথে পরিচালিত করেন না।


 


 


মানুষের মধ্যে ঈশ্বরের উপস্থিতিটাই হল বিবেক। -সুইডেন বোর্গ।


 


 


নফস্কে দমন করাই সর্বপ্রথম জেহাদ।


ফটো গ্যালারি
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অষ্টাদশ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপন
স্বাধীনতার মূলমন্ত্র হৃদয়ে ধারণ করে দেশকে উন্নতির পথে এগিয়ে নিতে হবে
-----------------খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ
২৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে চার দিন ধরে পালিত হচ্ছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অষ্টাদশ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। গতকাল শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) ছিলো এ আয়োজনের তৃতীয় দিন। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ার স্বাধীনতা মিলনায়তনে আয়োজিত তৃতীয় দিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার, ব্যবসায় ও উদ্যোক্তাবৃত্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মাসুম ইকবাল, স্থায়ী ক্যাম্পাসের ডিন অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামালসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ প্রমুখ।



প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেন, স্বাধীনতা আমাদের সম্ভাবনার অসীম দুয়ারকে খুলে দিয়েছে। দেশ স্বাধীন হয়েছে বলেই আমরা এতগুলো বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে পেরেছি, এতগুলো ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি, এতগুলো শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পেরেছি। তাই স্বাধীনতার মর্যাদা অক্ষুণ্ন রাখতে হবে। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদেরকে স্বাধীনতার মূলমন্ত্র হৃদয়ে ধারণ করে দেশকে উন্নতির পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।



শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমরাই দেশের ভবিষ্যত। তোমাদের হাত দিয়েই গড়ে উঠবে দেশ। তাই যত পারো উদ্যোক্তা হও। কারণ, উদ্যোক্তারাই পারে দেশকে দ্রুত উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনোভেশন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রেনারশিপ বিভাগ আছে জেনে তিনি এর প্রশংসা করেন।



বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফজলুর রহমান বাবু বলেন, সফল হওয়ার চেয়ে স্বার্থক হওয়া জরুরি। জীবনের স্বার্থকতা নিহিত থাকে দেশ ও জাতির কল্যাণের মধ্যে। তোমরা তোমাদের মেধা, যোগ্যতা ও শ্রম দিয়ে দেশ ও জাতিকে আন্তর্জাতিক পরিম-লে তুলে ধরো।



ফজলুর রহমান বাবু শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জীবনে যা হতে চাও, তা হওয়ার জন্য নিরলস প্রচেষ্টা আর পরিশ্রম থাকলে তা হওয়া যায়। এরপর বিশিষ্ট এ অভিনেতা নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, তিনি তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ব্যাংকে চাকরির মাধ্যমে। কিন্তু অল্পদিন পরই বুঝতে পারেন, এ কাজ তার নয়। তিনি অভিনেতা হতে চান। তারপর তিনি অভিনয়ে সম্পৃক্ত হয়েছেন এবং নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে সফল হয়েছেন।



সভাপতির বক্তব্যে ড. মো. সবুর খান বলেন, নিজের ক্যারিয়ারের উন্নয়নের জন্য নিজের দক্ষতা বাড়ানোর বিকল্প নেই। তরুণদেরকে তাই ছাত্রাবস্থাতেই পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে নিজের দক্ষতা তৈরি করতে হবে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের দক্ষতা উন্নয়নে অসংখ্য কাজ করে থাকে। উদাহরণ হিসেবে তিনি আর্ট অব লিভিং, এমপ্লয়াবিলিটি ৩৬০ ডিগ্রি, ওয়ান স্টুডেন্ট ওয়ান ল্যাপটপ ইত্যাদির কথা বলেন। তিনি শিক্ষার্থীদের পারস্পরিক নেটওয়ার্ক বাড়ানোর পরামর্শ দেন।



ড. মো. সবুর খান বলেন, শিক্ষার্থীরা যাতে নিজের দক্ষতা বৃদ্ধি ও উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়তে পারে সেই উদ্দেশ্যেই ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাঝে এ পর্যন্ত ৪০ হাজার ল্যাপটপ বিনামূল্যে বিতরণ করেছে।



গত ২২ জানুয়ারি থেকে চার দিনব্যাপী '১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী' উৎসব উদযাপন করছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। উৎসবের প্রথম দিন (২২ জানুয়ারি) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী 'মুজিববর্ষ' উদযাপনের অংশ হিসেবে ১০০টি ঘুড়ি উড়িয়ে '১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী' উৎসব উদযাপনের উদ্বোধন করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, এমপি।



ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আশুলিয়ায় ১৫০ একর জায়গার উপর সর্বাধূনিক সুবিধা সম্বলিত আন্তর্জাতিক মানের প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছেলে ও মেয়েদের পৃথক আবাসিক সুবিধাসহ শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে ২০১১ সাল থেকে। এখানে কোলাহলমুক্ত ছায়া সুনিবিঢ় শান্ত সবুজ পরিবেশে আধূনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত খেলার মাঠ, অডিটরিয়াম ছেলে ও মেয়েদের পৃথক আবাসিক হল, সুইমিং পুল, জিমনেশিয়াম, বাস্কেটবল গ্রাউন্ড, টেনিস কোর্ট সহ একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন রয়েছে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৬৩৩৮
পুরোন সংখ্যা