চাঁদপুর, শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ৪ রজব ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে ২৪২ জন, আইসোলেশনে থাকার রোগী করোনা আক্রান্ত কিনা জানা যাবে আজ রাতে
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৫-সূরা তালাক


১২ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২। উহাদের 'ইদ্দাত পূরণের কাল আসন্ন হইলে তোমরা হয় যথাবিধি উহাদিগকে রাখিয়া দিবে, না হয় উহাদিগকে যথাবিধি পরিত্যাগ করিবে এবং তোমাদের মধ্য হইতে দুইজন ন্যায়পরায়ণ লোককে সাক্ষী রাখিবে; আর তোমরা আল্লাহর জন্য সঠিক সাক্ষ্য দিবে। ইহা দ্বারা তোমাদের মধ্যে যে কেহ আল্লাহ ও আখিরাতে বিশ্বাস করে তাহাকে উপদেশ দেওয়া হইতেছে। যে কেহ আল্লাহকে ভয় করে আল্লাহ তাহার পথ করিয়া দিবেন।


 


 


 


ঘুম পরিশ্রমী মানুষকে সৌন্দর্য প্রদান করে।


-টমাস ডেককার।


 


 


 


 


নামাজ হৃদয়ের জ্যোতি, সদ্কা (বদান্যতা) উহার আলো এবং সবুর উহার উজ্জ্বলতা।


 


 


ফটো গ্যালারি
মতলব উত্তরে ইউপি সদস্য জহিরুল হকের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সভা
বাবুল মুফতী
২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব উত্তর উপজেলার বাগানবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার জহিরুল হকের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে এলাকাবাসী। গতকাল ২৮ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকেলে বাগানবাড়ি বাজার এতিম মার্কেটে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক ইউপি সদস্য মোতাহার হোসেন বাচ্চু।



সভায় বক্তারা বলেন, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় বাগানবাড়ি বাজারে একটি জায়গা সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলার জন্যে আল-আমিন জমাদারকে মুঠোফোনে ডেকে নেয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল মিয়া। আল-আমিন সাথে করে তার চাচাতো ভাই ইউপি সদস্য জহিরুল হক মেম্বারকে নিয়ে যান। সেখানে কথা কাটা-কাটির এক পর্যায়ে বাবুল মিয়ার নেতৃত্বে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হামলা চালায় ছোট কিনাচক গ্রামের রাকিব, শেখ ফরিদ, উজ্জ্বল ও সজল মিয়াসহ অন্তত ১০-১৫ জন। ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারাত্মক জখম করা হয় তাকে। হকিস্টিক দিয়ে ব্যাপক মারধর করে জহির মেম্বারের হাত, পা ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয় বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা। বর্তমানে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে জহিরুল হক মেম্বার।



প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম জমাদার, মুক্তিযোদ্ধা মিয়া আব্দুল মতিন, রশিদ মিয়াজী প্রমুখ। এ সময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শত শত লোক উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে বাগানবাড়ি বাজার জুড়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে এলাকাবাসী।



বক্তারা আরও বলেন, বাগানবাড়ি ইউনিয়ন তথা বাজারে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলতে পারে না। এ ধরনের কোনো ঘটনা আগে ঘটেনি। আমরা এই সন্ত্রাসী ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। সেই সাথে বাবুল মিয়াসহ যারা এ ধরনের ঘৃণিত ঘটনায় জড়িত, তাদেরকে অবিলম্বে গ্রেফতারপূর্বক আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচার চাই।



এ ঘটনার পর পর থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে মামলা নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তারা বলেন, আইন হলো জনগণের সর্বোচ্চ আশ্রয়স্থল। আইন সবার জন্য সমান। কিন্তু কোন্ অজানা কারণে ওসি মামলা নেননি তা আমাদের বোধগম্য নয়। ঘটনার কয়েকদিন পর মামলার জন্যে কোর্টে আবেদন করলে কোর্ট মামলা নিতে নির্দেশ করার পর থানায় মামলা দায়ের করা হয়।



ওসি মোঃ নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, আইনী প্রক্রিয়ায় মামলা নেয়া হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এদিকে মামলার বিবাদীপক্ষের লোকজনকে খোঁজ করলে তাদের পাওয়া যায়নি। মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া গেছে।



মামলার ১নং সাক্ষী আল-আমিন জমাদার বলেন, বাগানবাড়ি বাজারের উত্তর দিকে মেইন রোডের সাথে আমার পিতার সম্পত্তি বাবুল মিয়া অবৈধভাবে দখল করে দোকানঘর তৈরি করে মেঘনা সমবায় সমিতি লিঃ নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছে। সন্ত্রাসী কর্মকা-ের মাধ্যমে তিনি ওই জায়গা দখলে থাকতে চান। বাবুল মিয়া ওই জায়গার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ কোনোভাবেই মালিকানা নন বলেও জানান সাক্ষীরা।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৩৮০৪১
পুরোন সংখ্যা