চাঁদপুর, রোববার ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৭ শাওয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা ঃ


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


২০। 'আমি জানিতাম যে, আমাকে আমার হিসাবের সম্মুখীন হইতে হইবে।'


২১। সুতরাং সে যাপন করিবে সন্তোষজনক জীবন;


২২। সুউচ্চ জান্নাতে


 


আল হাদিস


 


যা ইচ্ছা আহার করতে পারো, যা ইচ্ছা পরিধান করতে পারো, যদি তোমাকে অপব্যয় ও গর্ব স্পর্শ না করে।


বাণী চিরন্তন


মধুর ব্যবহার লাভ করতে হলে মাধুর্যময় ব্যক্তিত্বের সংস্পর্শে আসতে হয়। -উইলিয়াম উইন্টার।


 


 


 


 


 


assets/data_files/web

মহৎ মানুষেরা বিধাতার কল্পনার চমৎকার ফসল।


-পি জে বেইলি।


 


 


 


প্রত্যেক কওমের জন্য একটি পরীক্ষা আছে এবং আমার উম্মতদের পরীক্ষা তাদের ধন-দৌলত।


 


 


ফটো গ্যালারি
নিম্ন আদালতও ভার্চুয়ালে চলবে ১৫জুন পর্যন্ত
চৌধুরী ইয়াছিন ইকরাম
৩১ মে, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


করোনা ভাইরাসের কারণে সাধারণ ছুটি আর না বাড়ানো হলেও ভার্চুয়াল পদ্ধতিতেই আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত চলবে অধস্তন আদালতের বিচার কার্যক্রমও।



এর আগে সুপ্রিম কোর্টেও ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে শুনানির জন্য ১৫ জুন পর্যন্ত সময় বাড়িয়ে হাইকোর্ট বিভাগে ১১টি বেঞ্চ গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।



শনিবার (৩০ মে) প্রধান বিচারপতির আদেশক্রমে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।



করোনা ভাইরাস রোধে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা ও শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া বিচারকার্য পরিচালনার লক্ষ্যে 'আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ-২০২০'-এর ৫ ধারার ক্ষমতাবলে এ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।



গত ১০ মে ভার্চুয়াল আদালতের বিষয়ে জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ীই আদালতের কার্যক্রম পরিচালিত হবে। ওই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ভার্চুয়াল আদালতে শুধু হাজতি আসামিদের জামিন শুনানি হবে।



এর আগে গত ১০ মে এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর।



দেশের বিভিন্ন অনলাইন ও আদালত প্রতিবেদকরা জানান যে, বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশের প্রত্যেক জেলার জেলা ও দায়রা জজ, মহানগর এলাকার মহানগর দায়রা জজ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, বিশেষ জজ আদালতের বিচারক, সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক, জননিরাপত্তা বিঘ্নকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিজে অথবা তার নিয়ন্ত্রণাধীন এক বা একাধিক ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা 'আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০' এবং উচ্চ আদালতের জারি করা 'বিশেষ প্র্যাকটিস নির্দেশনা' অনুসরণ করে শুধু জামিন সংক্রান্ত বিষয়গুলো তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার উদ্দেশ্যে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য নির্দেশ দেওয়া হলো।



এ জন্য সুপ্রিম কোর্টের রুলস কমিটি পুনরায় গঠন এবং ভার্চুয়াল কোর্ট চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় আইনগত প্রতিবন্ধকতা দূর করতে পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।



 



গত ৭ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভপতিত্বে গণভবনে মন্ত্রিসভা বৈঠকে 'আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০'-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়।



সরকারি আদেশের সঙ্গে মিল রেখে আদালত অঙ্গনেও সাধারণ ছুটি ছিল। পরে দফায় দফায় সাধারণ ছুটিরও মেয়াদ বাড়ানো হয়। সর্বশেষ গত ১৬ মে দেওয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে সাধারণ ছুটির মেয়াদ ৩০ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তবে সরকার ৩০ মে'র পর সাধারণ ছুটি আর বাড়ায়নি।



 



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৯৩৯২২
পুরোন সংখ্যা