চাঁদপুর, শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ৭ সফর ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
করোনা গেলেও থেকে যাবে 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' : বিল গেটস
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বড় বিপর্যয় নেমে এসেছে বিশ্ব অর্থনীতিতে। তবে সেটি পুরোপুরি থমকে যাওয়া থেকে বাঁচিয়ে দিয়েছে বলা যায় 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' বা ঘরে বসে কাজ করার পদ্ধতি। মহামারির কারণে শুরু হলেও এ কর্মসংস্কৃতি এখনই যাচ্ছে না। অর্থাৎ করোনা চলেও গেলেও ওয়ার্ক ফ্রম হোম আরও দীর্ঘদিন থেকে যাবে বলে মনে করছেন মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রধান নির্বাহী বিল গেটস।



সমপ্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনমিক টাইমস আয়োজিত একটি অনলাইন বিজনেস সামিটে অংশ নিয়েছিলেন বিল গেটস। সেখানে তিনি বলেন, মানুষ যেভাবে ওয়ার্ক ফ্রম হোম সংস্কৃতির সঙ্গে মানিয়ে কাজের গতি ধরে রেখেছে তা অসাধারণ। আশা করছি, মহামারি পরিস্থিতি কেটে গেলেও এই কর্মসংস্কৃতি বজায় থাকবে।



মাইক্রোসফটের সাবেক প্রধান বলেন, করোনা মহামারি চলে গেলে আরও একবার ভাবা দরকার অফিসে কতক্ষণ কাটানো উচিত- ২০, ৩০ নাকি ৫০ ভাগ সময়। অনেক প্রতিষ্ঠানই চাইবে কর্মীরা ৫০ শতাংশের কম সময় অফিসে কাটান। আবার অনেকেই পুরোনো অভ্যাসে ফিরে যেতে চাইবে।



বিল গেটসের মতে, ওয়ার্ক ফ্রম হোম পদ্ধতিকে আরও কার্যকর করে তুলতে সফটওয়্যারগুলো উন্নত করতে হবে। বাড়িতে কাজের ক্ষেত্রে আরও কিছু সমস্যা হবে। বাসায় বাচ্চারা থাকলে তাদের সময় দিতে হয়, সংসারের কিছু কাজও সামলাতে হয়। অফিসের কাজে এসবের প্রভাব পড?বে। বিশেষ করে, নারী কর্মীদের জন্য ওয়ার্ক ফ্রম হোম বেশ কষ্টকর।



সূত্র : ইন্ডিয়া অব টাইমস। স্বত্ব : জাগো নিউজ।



 



 


এই পাতার আরো খবর -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৬-সূরা দাহ্র বা ইন্সান


৩১ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২১। তাহাদের আবরণ হইবে সূক্ষ্ম সবুজ রেশম ও স্থুল রেশম, তাহারা অলংকৃত হইবে রৌপ্য নির্মিত কংকনে, আর তাহাদের প্রতিপালক তাহাদিগকে পান করাইবেন বিশুদ্ধ পানীয়।


২২। অবশ্য, ইহাই তোমাদের পুরস্কার এবং তোমাদের কর্মপ্রচেষ্টা স্বীকৃত।


 


 


ভয়কে যারা মানে তারাই জাগিয়ে রাখে ভয়।


-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।


 


 


 


যে ব্যক্তি নীরবতা অবলম্বন করেছে সে মুক্তি লাভ করেছে।


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৬৪,৯৩২ ৬,৩১,৩৫,৯৭৩
সুস্থ ৩,৮০,৭১১ ৪,৩৬,১২,৩৫৩
মৃত্যু ৬,৬৪৪ ১৪,৬৬,২৮৯
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৩০৩৭৭
পুরোন সংখ্যা