চাঁদপুর। শুক্রবার ১৫ জুন ২০১৮। ১ আষাঢ় ১৪২৫। ২৯ রমজান ১৪৩৯
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৭। অতঃপর আমি তাহাদের পশ্চাতে অনুগামী করিয়াছিলাম আমার রাসূলগণকে এবং অনুগামী করিয়াছিলাম মারইয়াম তনয় ঈসাকে, আর তাহাকে দিয়াছিলাম ইঞ্জীল এবং তাহার অনুসারীদের অন্তরে দিয়াছিলাম করুণা ও দয়া। আর সন্নাসবাদ-ইহা তো উহারা নিজেরাই আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য প্রত্যাবর্তন করিয়াছিল। আমি উহাদের ইহার বিধান দেই নাই; অথচ ইহাও উহারা যথাযথভাবে পালন করে নাই। উহাদের মধ্যে যাহারা ঈমান আনিয়াছিল, উহাদিগকে আমি দিয়াছিলাম পুরস্কার এবং উহাদের অধিকাংশই সত্যত্যাগী।


 


 


assets/data_files/web

অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের সাদ্রাসহ শতাধিক গ্রামে ঈদুল ফিতর পালিত হচ্ছে
কামরুজ্জামান টুটুল
১৫ জুন, ২০১৮ ১০:১৩:২৩
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরসহ দেশের প্রায় ১০টি জেলার কয়েক‘শ গ্রামে আজ (শুক্রবার) ঈদ উল ফিতর পালিত হচ্ছে। দেশে আগাম ঈদ বা সৌদি আরবের সাথে সঙ্গতি রেখে ১৯৩২ সাল থেকে দেশে এই রীতির প্রচলন করেন হাজীগঞ্জ উপজেলার ৭নং বড়কুল পশ্চিম ইউনিয়নের সাদ্রা দরবার শরীফের তৎতালীন পীর মরহুম পীর হযরত মাওলানা ইসহাক (রহঃ)। সাদ্রা এলাকার সমেসপুর ঈদগাঁ মাঠে ঈদের প্রথম জামাত শুরু হবে সকাল সাড়ে ৯টায়। আর এ বিষয়গুলো বৃহস্পতিবার রাতে নিশ্চিত করেছেন মরহুম পীর হযরত মাওলানা ইসহাক (রহঃ)-এর ছেলে মাওলানা মোঃ জাকারিয়া চৌধুরী ।

হাজীগঞ্জ উপজেলার রামচন্দ্রপুর কাসেমিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার গভনিং বড়ির সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া ও পাশ্ববর্তী সমেশপুর গ্রামের বাসিন্দা তানজিমুল ইসলাম মামুন জানান, রাত ১০টার পরে সমেশপুর মসজিদ থেকে ঈদুল ফিতর উদ্যাপন এবং জামায়াতের সময়সূচী মাইকে ঘোষণা করা হয়। প্রথম জামায়াত সমেশপুর ঈদগা মাঠে শুক্রবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। একই সময় আরেকটি ঈদ জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে সাদ্রা দরবার শরীফের ঈদগা মাঠে। বাকী ঈদের জামায়াতগুলোও ১০টার পরে ১১টার মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

বর্তমান পীর মাওলানা জাকারিয়া চৌধুরী (মাদানী হুজুর) শীর্ষনিউজকে জানান, মরহুম পীর ইসহাক (রহ.) এর সময় থেকে বিশে^র যে কোন দেশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখাগেলে এবং নির্ভরযোগ্য তথ্যে তা নিশ্চিত হলে ঈদ উদযাপন করা হয়েছে। এবারও ইন্দোনেশিয়া ও মালয়শিয়ায় চাঁদ দেখা যাওয়ার সংবাদ নিশ্চিত হয়ে আমরা ঈদুল ফিতর উদযান এর ঘোষণা দিয়েছে। ইনশাআল্লাহ চাঁদপুরের মধ্যে সাদ্রা, সমেশপুর, অলিপুর, বলাখাল, মনিহার, জাকনী, প্রতাবপুর, বাসারা, ফরিদগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর, কামতা, গল্লাক, ভুলাচোঁ, সোনাচোঁ, উভারামপুর, উটতলি, মুন্সিরহাট, কাইতাড়া, মূলপাড়া, বদরপুর, আইটপাড়া, সুরঙ্গচাইল, বালিথুবা, পাইকপাড়া, নূরপুর, সাচনমেঘ, শোল্লা, গোবিন্দপুর, মতলব উপজেলার দশানী, মোহনপুর, পাঁচানী এবং কচুয়াসহ শাহরাস্তি উপজেলার কয়েকটি গ্রামের অংশসহ জেলার মধ্যে প্রায় দেড়‘শ গ্রামে আজ ঈদ উদযাপন হচ্ছে। এ ছাড়া দেশের ভোলা, মুন্সীগঞ্জ, সিলেট, রাজশাহী, পটুয়াখালী, ফেনি, লক্ষ্মীপুর ও লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি গ্রামে আমাদের সাখে সঙ্গতি রেখে ঈদুল ফিতর উদযাপন হচ্ছে।

 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১২০৬৯৭৫
পুরোন সংখ্যা