চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ২৫ অক্টোবর ২০১৮। ১০ কার্তিক ১৪২৫। ১৪ সফর ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪২-সূরা যূখরুফ

৮৯ আয়াত, ৭ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৫। তারা তাঁর (আল্লাহর) বান্দাদের মধ্য হতে তাঁর অংশ সাব্যস্ত করেছে। মানুষ তো স্পষ্টই অকৃতজ্ঞ।

১৬। তিনি কি তাঁর সৃষ্টি হতে নিজের জন্যে কন্যা সন্তান গ্রহণ করেছেন এবং তোমাদেরকে চয়ন করেছেন পুত্র সন্তান দ্বারা?

১৭। দয়াময় আল্লাহর প্রতি তারা যা আরোপ করে যখন তাদের কাউকেও সেই (কন্যা সন্তানের) সংবাদ দেয়া হলে তার মুখমন্ডল কালো হয়ে যায় এবং সে দুঃখে ভারাক্রান্ত হয়ে পড়ে।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


পাখিকে ধরতে হলে তাকে ভয় দেখানো চলবে না।                             


-জর্জ হার্বাট।


সেই ব্যক্তি শ্রেষ্ঠ মর্যাদার অধিকারী যে স্বল্পাহারে সন্তুষ্ট থাকে, অল্প হাসে এবং লজ্জাস্থান ঢাকিবার উপযোগী বস্ত্রে পরিতুষ্ট।



 


এক ম্যাচ হাতে রেখেই টাইগারদের সিরিজ জয়
২৫ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৪৮:১৭
প্রিন্টঅ-অ+


তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে জিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। তবে সিরিজ জয়ের দিনে দিনশেষে একটু আক্ষেপের বিষয় হলো সেঞ্চুরির কাছে গিয়েও সেঞ্চুরির দেখা পাননি ইমরুল কায়েস। ৯০ রানে আউট হন। এছাড়া হতাশ করেছেন লিটন কুমার দাস। ৮৩ রানে ফিরেন তিনি । আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭ উইকেটের জয় পায় বাংলাদেশ। 



জিম্বাবুয়ের দেয়া ২৪৬ রানের জবাবে উদ্বোধনী জুটিতে ১৪৮ রানের রেকর্ড জুটি গড়েন দুই ওপেনারই। এরপর সেঞ্চুরির পথে থাকা লিটন ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রাজার বলে। ইমরুল কায়েসও সেঞ্চুরি বিসর্জন দিয়ে ফেরেন রাজার বলে। মাঝে শূন্য রানে ফেরেন ফজলে রাব্বি। সর্বশেষ খবর পর্যন্ত ৩৮ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২১৫ রান তুলেছে বাংলাদেশ।



 


শুরুর ১০ ওভারে দুই ওপেনার তুলে ফেলেন ৫০ রান। এরপর দলের রান বাড়িয়ে শতক পার করেন তারা। প্রথমে দারুণ এক ফিফটি তুলে নেন লিটন দাস। এরপর ফিফটি পান আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা ইমরুল কায়েস। দেশের হয়ে ওপেনিংয়ে পঞ্চম সর্বোচ্চ জুটি গড়েন তারা। এরপর ৭৭ বলে ১২ চার ও এক ছক্কায় ব্যক্তিগত ৮৩ রানে ক্যাচ দিয়ে আউট হন লিটন দাস। তার আউটের পর দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নামা ফজলে রাব্বি ক্রিজে আসেন। কিন্তু প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে শূন্য রানে ফেরার পর দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও শূন্য রানে ফেরেন তিনি। এরপর ইমরুল-মুশফিকের ব্যাটে জয়ের দিকে ছুটছিল দল। তারা দু'জন ৬১ রানের জুটি গড়েন। দারুণ খেলা ইমরুল পরপর দুই সেঞ্চুরির পথে ছিলেন। কিন্তু নিজের ৯০ রানে সামনে এসে খেলতে গিয়ে ক্যাচ দেন তিনি। জয় থেকে মাত্র ৩৬ রান দুরে থাকতে আউট হন তিনি। ৪০ রানে অপরাজিত থাকেন মুশফিকুর রহিম। আর ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন মোহাম্মদ মিঠুন। জিম্বাবুয়ের বোলারদের হয়ে ৪৩ রানে ৩টি উইকেট নেন সিকান্দার রাজা। এর আগে জিম্বাবুয়ে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্রেন্ডন টেইলেরের ৭৫ রান ও সিকান্দার রাজার ৪৯ রানের উপর ভর করে ২৪৬ রান তোলে। বাংলাদেশের বোলারদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।


আজকের পাঠকসংখ্যা
৭১০১৩৮
পুরোন সংখ্যা