চাঁদপুর। শুক্রবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। ৫ ফাল্গুন ১৪২৩। ১৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


১৯। সুলায়মান উহার উক্তিতে মৃদু হাস্য করিল এবং বলিল, ‘হে আমার প্রতিপালক। তুমি আমাকে সামথ্য দাও যাহাতে আমি তোমার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করিতে পারি, আমার প্রতিও আমার পিতামাতার প্রতি তুমি যে অনুগ্রহ করিয়াছ তাহার জন্য এবং যাহাতে আমি সৎকার্য করিতে পারি, যাহা তুমি পছন্দ কর এবং তোমার অনুগ্রহে আমাকে তোমার সৎকর্মপরায়ণ বান্দাদের শামিল কর।’ 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

ক্ষুধার অগ্নিপ্রবাহ আনবিক অস্ত্র অপেক্ষাও ভয়ংকর।                  -ভ্যান ল্যান্সকটা।


যার দ্বারা মানবতা উপকৃত হয়, মানুষের মধ্যে তিনি উত্তম পুরুষ। 


মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকদের ই-কার্ড গ্রহণের পরামর্শ কাউন্সিলরের
শামছুজ্জামান নাঈম ॥
১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:৪৭:১২
প্রিন্টঅ-অ+


মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী কাগজপত্রহীন প্রবাসী শ্রমিকদের ইমিগ্রেশন কর্তৃক প্রদেয় ই-কার্ড (টেম্পোরারি পাস) গ্রহনের পরামর্শ দিয়েছেন মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনের কাউন্সিলর (লেবার) সায়েদুল ইসলাম।

বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ হাই কমিশনের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাতু শ্রী নাজিব তুন রাজাকের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করে দেশটিতে বসবাসকারী বাংলাদেশী কাগজপত্রহীন প্রবাসী শ্রমিকদের বৈধতার আওতায় আনার অনুরোধ করেন। এ অনুরোধে সাড়া দিয়ে মালয়েশিয়ান সরকার গতকাল (১৫ ফেব্রুয়ারি) থেকে এই ই-কার্ড (টেম্পোরারি পাস) কার্যক্রম শুরু করেন। এটি চলমান রি-হায়ারিং প্রোগ্রামের ই একটি অংশ।

ই-কার্ড (টেম্পোরারি পাস) সম্পর্কে তিনি জানান, যাদের কোন প্রকার কাগজপত্র নেই তাদেরকে ডকুমেন্ট প্রদানের লক্ষে দু ধরণের টেম্পোরারি পাস দেয়া হবে। প্রথমত যাদের কোন ধরণের কাগজপত্র নেই তারা মালিকের সহায়তায় ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে গেলে তাদেরকে একটি 'লাল' টেম্পোরারি পাস দেয়া হবে। পরে সেই কার্ডটি নিয়ে বাংলাদেশ হাই কমিশনে গিয়ে পাসপোর্ট করতে হবে।

সেই পাসপোর্ট নিয়ে আবারও ইমিগ্রেশনে গেলে তাদেরকে 'নীল' টেম্পোরারি পাস দেয়া হবে। এই কার্ডের মেয়াদ হবে একবছর। এই সময়ের মধ্যে চলমান যে রি-হায়ারিং প্রোগ্রাম আছে তাতে অন্তর্ভুক্ত হয়ে বৈধতার আওতায় আসতে সক্ষম হবে। এ সময় তিনি সকল বাংলাদেশী শ্রমিকদের এ প্রোগ্রামের আওতায় আসার পরামর্শ দেন। পুলিশি ঝামেলা এড়াতে ও নির্বিঘেœ কাজ করতে কাগজপত্রহীন প্রবাসী শ্রমিকদের বৈধতার আওতায় আসতে জোর তাগিদ দেন মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতারা।

অন্যদিকে, মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী নিয়োগকর্তাদের কোনো এজেন্ট বা দালাল দিয়ে ই-কার্ডের নিবন্ধন না করতে সতর্ক করেন।

উল্লেখ্য, এই ই-কার্ডের মেয়াদ থাকবে ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ সাল পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে রি-হায়ারিং পদ্ধতিতে শ্রমিককে নির্দিষ্ট মালিকের মাধ্যমে বৈধ ভিসা করতে হবে।

 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩৪২৯৫
পুরোন সংখ্যা