চাঁদপুর। বুধবার ১৮ অক্টোবর ২০১৭। ০৩ কার্তিক ১৪২৪। ২৭ মহররম ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩০-সূরা রূম

৬০ আয়াত, ৬ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪০। আল্লাহ্ই তোমাদেরকে সৃষ্টি করিয়াছেন, অতঃপর তোমাদেরকে রিযিক দিয়াছেন, তিনি তোমাদের মৃত্যু ঘটাইবেন ও পরে তোমাদেরকে জীবিত করিবেন। তোমাদের দেব-দেবীগুলির এমন কেহ আছে কি, যে এ সমস্তের কোন কিছু করিতে পারে? উহারা যাহাদেরকে শরীক করে, আল্লাহ উহা হইতে পবিত্র, মহান।

৪১। মানুষের কৃতকর্মের দরুণ-স্থলে ও সমুদ্রে বিপর্যয় ছড়াইয়া পড়ে; যাহার ফলে উহাদেরকে উহাদের কোন কোন কর্মের শাস্তি তিনি আস্বাদন করান, যাহাতে উহারা ফিরিয়া আসে।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


ডাক্তার বা উকিলের কাছে কোনো কিছু গোপন করো না।                     


-জর্জ হার্বাট।


ঝগড়াটে ব্যক্তি আল্লাহর নিকট অধিক ক্রোধের পাত্র।


ইন্টারনেটে আপনার ওপর কেউ নজর রাখছে কি?
মোখলেছুর রহমান
১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের প্রায় সবাই গুগল ও ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে। তবে গুগল ও ফেসবুকসহ জনপ্রিয় সেবাগুলো ইন্টারনেটে আপনার কার্যক্রম নজরদারির মধ্যে রাখে। এসব প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর এই ধরনের নজরদারি মূল উদ্দেশ্যে হচ্ছে, তারা যেন আপনার প্রয়োজনীয় পণ্যের বিজ্ঞাপনগুলোই আপনার সামনে উপস্থাপন করতে পারে। কিন্তু একই সঙ্গে আপনি সাইবার অপরাধীদের দ্বারাও নজরদারির শিকার হতে পারেন, যাদের মূল উদ্দেশ্যে গোপনীয়তার লগ্ধঘন করে আপনার ক্ষতি করা।



 



নজরদারি যখন ক্ষতিকর :



ইন্টারনেটে সাইবার অপরাধীদের নজরদারিতে পড়লে বড় বিপদের কারণ হতে পারে।



কম্পিউটার, স্মার্ট টিভি এমনকি ওয়েবক্যামে ইনস্টল করার সময় অজ্ঞাতসারে ঢুকে পড়া ম্যালওয়ারের মাধ্যমে আপনি এ ধরনের ক্ষতিকর নজরদারির শিকার হতে পারেন। সুতরাং আপনার ওয়েবক্যাম সর্বদা ঢেকে রাখুন।



যদিও শতভাগ কার্যকারিতার সঙ্গে ইন্টারনেটে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য রক্ষা করা কঠিন, তবে সচেতন হলে অনলাইনে অনেকটাই নিরাপদ থাকা যায়। ক্যাসপারস্কি ল্যাবের মতে, এগুলো এমন কিছু নির্দিষ্ট পদ্ধতি, যেখানে আপনি আপনার গোপনীয়তা বজায় রাখতে পারবেন এবং এটি নিশ্চিত করবে যে, ইন্টারনেটে আপনার ওপর কেউ নজর রাখছে কি-না। একনজরে দেখে নেওয়া যাক সেই সহজ পদক্ষেপগুলো কী কী।



 



আপনার বহির্মুখী ট্র্যাফিক নিরীক্ষণ করুন :



১. উইন্ডোজ স্টার্ট বাটনে ক্লিক করুন এবং কমান্ড উইন্ডোটি চালু করতে 'পসফ' টাইপ করুন, যা সাদা টেঙ্ট পাঠে 'ঈ: টংবৎং ণড়ঁৎ টংবৎঘধসব' নামে একটি কালো বাঙ্ হিসেবে প্রদর্শিত হবে।



২. প্রম্পটে পরবর্তীতে 'নেটস্ট্যাট' টাইপ করুন এবং সব বহির্গামী তথ্য ট্রান্সমিশন একটি তালিকা তৈরি করতে 'এন্টার' চাপুন। আপনাটি যত কম অ্যাপিল্গকেশন খুলবেন (সম্ভব হলে শুধু একটি ইন্টারনেট ব্রাউজার) নেটস্ট্যাট কমান্ডটি তত ভালো কাজ করবে।



নেটস্ট্যাট মূলত ইন্টারনেট প্রোটোকল (আইপি) ঠিকানাগুলোর তালিকা তৈরি করে যার মাধ্যমে আপনার কম্পিউটারে তথ্য প্রেরণ করা হয়। এই আইপি ঠিকানাগুলোর মধ্যে কয়েকটি বৈধ এবং আপনি ব্যবহার করছেন এমন ওয়েবসাইট বা পরিসেবাগুলোর সঙ্গে সংশি্নষ্ট।



৩. নথিপত্রে নেটস্ট্যাট দ্বারা রিপোর্টকৃত প্রতিটি আইপি ঠিকানা লিপিবদ্ধ করুন এবং একটি ওয়েব ব্রাউজারের মাধ্যমে তা ব্রাউজ করুন। আপনার ব্রাউজারের ঠিকানা বারে প্রতিটি আইপি ঠিকানা লিখুন এবং আপনার কম্পিউটার থেকে কি কি তথ্য পাঠানো হচ্ছে, তা শনাক্ত করার চেষ্টা করার জন্যে 'এন্টার' চাপুন।



 



চটপট অ্যাপ্লিকেশন শনাক্তকরণ :



১. আপনার টাস্কবারের ডানে ক্লিক করুন এবং আপনার টাস্ক ম্যানেজার চালু করার জন্যে 'টাস্ক ম্যানেজার শুরু' নির্বাচন করুন। আপনার কম্পিউটারে চলমান সব প্রসেসগুলোর তালিকা দেখতে পাবেন।



২. একটি ওয়েব ব্রাউজার ছাড়া সব প্রোগ্রাম বন্ধ করুন।



৩. 'প্রসেস' ট্যাব নির্বাচন করুন। তার পর 'ইউজার নেম' নির্বাচন করুন এবং আপনার কম্পিউটারে চলমান সব প্রক্রিয়া দেখতে তালিকাটি ব্রাউজ করুন। আপনার ইউজার নেম অন্তর্ভুক্ত না থাকা প্রসেসগুলো আপনার কম্পিউটারে চলমান ক্ষতিকারক সফটওয়্যারের একটি ইঙ্গিত হতে পারে।



 



গুগল বিজ্ঞাপন সেটিংস পারসনালাইজ নয় :



সম্ভবত, ওয়েবে নিজের সুরক্ষার সবচেয়ে আকর্ষণীয় অংশটি হলো গুগলের বিজ্ঞাপন সেটিংস। ব্যবহারকারীর নির্দিষ্ট পছন্দের ওপর ভিত্তি করে গুগল তার প্রতিটি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত প্রোফাইল তৈরি করে এটি এই প্রোফাইলের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন আপনার সামনে ইন্টারনেটে উপস্থাপন করে। অতএব, আপনার 'অ্যাকাউন্ট ব্যক্তিগতকরণ' খুবই গুরুত্বপূর্ণ যা কি-না আপনার গুগল অ্যাকাউন্টে অনির্বাচিতই থেকে যায়। এই ধরনের সমস্যাগুলো হয় বিশেষ করে যখন আপনি গুগল ক্রোমে একটি নির্দিষ্ট ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্ট থেকে সাইন ইন করেন।



 



ব্যক্তিগত ব্রাউজ এ ক্ষেত্রে সহায়ক নয় :



একটি ধারণা প্রচলিত আছে যে, আপনি যদি ব্রাউজারে ছদ্মবেশী বা ব্যক্তিগত মোডে ব্রাউজ করেন, তাহলে এসব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। কিন্তু এটি বিজ্ঞাপন প্রদর্শন সম্পূর্ণ বন্ধ করতে পারে না। এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্রাউজার অ্যাড-অন সহ আরও আরও কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে, যা আপনাকে অ্যাড বল্গক করার মতো কাস্টমাইজ সেবাগুলো দিতে পারবে।



 



আইপি অ্যাড্রেস লুকিয়ে রাখুন :



আইপি অ্যাড্রেস সাধারণত ডেটা এবং অন্যান্য তথ্য যা একটি ওয়েবসাইট আপনার সম্পর্কে জানে, সেগুলোর সংযোগ লিঙ্ক হিসেবে ব্যবহূত হয়। উদাহরণস্বরূপ, সাইটে আপনার নিবন্ধন বিবরণের ওপর ভিত্তি করে ওয়েবসাইটে আপনার দেশ বা শহর জানতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আইন প্রয়োগকারী কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন তদন্তের সময় ইন্টারনেট পরিসেবা সরবরাহকারীদের আইপি অ্যাড্রেসগুলো জিজ্ঞাসা করে।



 



লগ আউট করুন :



সামাজিক মিডিয়ায় সবসময় লগ ইন থাকবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় সবসময় লগইন থাকলে আপনি সহজেই ট্রাকিংয়ের শিকার হতে পারেন। তবে আপনি লগ আউট হয়ে গেলে সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি আপনার সার্ফিংটি ট্র্যাক করতে পারবে না। ই-মেইলের জন্যে আপনি ট্র্যাকিং বল্গক বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৯৮৮৬
পুরোন সংখ্যা