চাঁদপুর। রোববার ১৩ আগস্ট ২০১৭। ২৯ শ্রাবণ ১৪২৪। ১৯ জিলকদ ১৪৩৮
kzai
muslim-boys

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত

৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

২৮। স্মরণ কর লুতের কথা, সে তাহার সম্প্রদায়কে বলিয়াছিল, ‘তোমরা তো এমন অশ্লীল কর্ম করিতেছ, যাহা তোমাদের পূর্বে বিশ্বে কেহ করে নাই।   

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন




একটি সুন্দর মন থাকা একটি সুন্দর রাজ্যে বসবাস করার আনন্দের মতো।                     

 -জনওয়েলস।


রাসূল (সাঃ) বলেছেন, নামাজ আমার নয়নের মণি।


ফটো গ্যালারি
চিন্তার চাষাবাদে 'চাষারু'
১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


সাম্প্রতিক সময়ে চাঁদপুর থেকে বেশ ক'টি সাহিত্যের ছোটকাগজ প্রকাশিত হয়ে আসছে যার মধ্যে 'চাষারু' অন্যতম। 'মননে মাটিতে চিন্তার চাষাবাদ' এই সস্নোগান ধারণ করে কবি সৌম্য সালেকের সম্পাদনায় চাষারু সপ্তম সংখ্যা জুন ২০১৭-এ প্রকাশিত হয়েছে।



চাষারু'র আলোচিত সংখ্যাটি সাজানো হয়েছে প্রবন্ধ, কবিতা, অনুবাদ কবিতা, গদ্য, সাহিত্য প্রতিবেদন ও বই আলোচনা দিয়ে। চাষারু পাঠ শেষে বলতেই হচ্ছে যে, এ সংখ্যার প্রধান আকর্ষণ হলো এর প্রবন্ধ সমূহ। অতি সম্পতি প্রয়াত হলেন প্রাবন্ধিক গবেষক শান্তনু কায়সার। শান্তনু কায়সারকে স্মরণ করে দুটো প্রবন্ধ লিখেছেন যথাক্রমে আহমেদ মাওলা ও পিয়াস মজিদ। এর মধ্যে আহমেদ মাওলার 'মননশীল গদ্য লেখক শান্তনু কায়সার' শীর্ষক প্রবন্ধটির কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করতে হয়। প্রবন্ধটির মাধ্যমে শান্তনু কায়সারের জীবন ও সাহিত্যকর্ম সম্পর্কে পাঠক অনেকটাই ধারণা পাবেন। শান্তনু কায়সার সম্পর্কে আহমেদ মাওলার অভিব্যক্তি এরকম_তিনি লিখেছেন : 'স্বভাবে লাজুক, কিছুটা নেপথ্যচারী এবং মৃদৃভাষী ছিলেন শান্তনু কায়সার। তুমুল আড্ডায়ও তাঁকে খুব সরব হতে দেখা যায়নি। তবে সাহিত্য আলোচনায়, মঞ্চে বক্তৃতাকালে তাঁর ব্যতিক্রমী ভিন্ন দৃষ্টিকোণ, গভীর বিশ্লেষণ উপস্থিত শ্রোতা-দর্শকদের মুগ্ধ এবং বিমোহিত করতো'। লেখক যথার্থই বলেছেন, 'সমকালীন বাংলা সাহিত্যের একজন গুরুত্বপূর্ণ লেখক শান্তনু কায়সার বিচিত্র ও বহুমুখী লেখালেখির মাধ্যমে নিজস্ব একটি আসন তৈরি করতে সক্ষম হয়েছিলেন'। এছাড়া অধ্যাপিকা লায়লা নূরের 'ধর্ম প্রবণতা' একটি ব্যতিক্রমী লেখা। ড. ফজলুল হক তুহিনের 'চিত্রকল্পের কবি আল মাহমুদ' ও মামুন সিদ্দিকীর 'মুক্তিযুদ্ধের সাংস্কৃতিক সংগ্রাম : কয়েকটি উদ্যোগ' প্রবন্ধ দুটিও নিঃসন্দেহে ভালো লেখা হয়েছে। তবে মতিন বৈরাগীর 'আমিনুল ইসলামের কবিতার ঘরবাড়ি' প্রবন্ধটি নানা কারণে সুখপাঠ্য হয় নি। ইসহাক সিদ্দিকী অনুদৃত ইসরাত জাহানের গদ্য 'অধিচৈতন্য' পাঠ শেষে পাঠক তৃপ্তি ঢেকুর তুলতে পারবেন বলে আমাদের বিশ্বাস। অন্যান্যের মধ্যে এ সংখ্যায় প্রবন্ধ লিখেছেন আরশাদ সিদ্দিকী-রতন ভৌমিক প্রণয় ও তুহিন দাশ।



চাষারুতে যারা কবিতা লিখেছেন তাদের অধিকাংশই পরিচিত মুখ। এঁদের মধ্যে রেজাউদ্দিন স্টালিন, আইউব সৈয়দ, ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, ইকবাল পারভেজ, জুননু রাইন, রাসেল রায়হান প্রমুখের কবিতা পাঠকদের মনোযোগ দাবি করে। চাষারুতে এছাড়া কবিতা লিখেছেন মনোহর আলী, ইকবাল আনোয়ার, বীরেন মুখার্জী, খালেদ হামিদী, দীপ্র আজাদ কাজল, তছলিম হোসেন হাওলাদার, মুজিব রহমান, চন্দন চৌধুরী, চাণক্য বাড়ৈ, মাসুদার রহমান, হাসান হাবিব, পীযূষ কান্তি বড়ূয়া, খালেদ চৌধুরী, সৌম্য সালেক, গিরীশ গৈরিক, জব্বার আল নাঈম, মোস্তফা হায়দার, ইলিয়াস বাবর, রফিকুজ্জামান রণি, মুহাম্মদ ফরিদ হাসান, জাহাঙ্গীর হোসেন বাদশা, আশিক বিন রহিম প্রমুখ। আলোচ্য সংখ্যায় প্রখ্যাত চিলিয়ান কবি গাব্রিয়েলা মিস্ত্রালের কবিতা অনুবাদ করেছেন মাইনুল ইসলাম মানিক, চাঁদপুর সাহিত্য সম্মেলন-২০১৭ নিয়ে লিখেছেন কাজী শাহাদাত। কাদের পলাশের গল্পগ্রন্থ 'দীর্ঘশ্বাসের শব্দ'-এর ওপর আলোচনা করেছেন কথাসাহিত্যিক জাকির তালুকদার।



সার্বিক পাঠের পর এ কথা বলা যায়, চাষারু চলতি সংখ্যাটি সুখপাঠ্য। নানা চিন্তা ও উপস্থাপনের প্রকাশ এই কাগজটিতে ঘটেছে। পাঠকদেরকে এমন একটি চমৎকার সংখ্যা উপহার দেয়ার জন্য চাষারু সম্পাদক প্রশংসার দাবি রাখে।



চাষারু সম্পাদক : সৌম্য সালেক প্রচ্ছদ : জিলানী আলম ৯৬ পৃষ্ঠা মূল্য ১০০ টাকা।



_ তছলিম হোসেন হাওলাদার



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫৬১
পুরোন সংখ্যা