চাঁদপুর, শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬১-সূরা সাফ্ফ


১৪ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১১। উহা এই যে, তোমরা আল্লাহ ও তাঁহার রাসূলে বিশ্বাস স্থাপন করিবে এবং তোমাদের ধন-সম্পদ ও জীবন দ্বারা আল্লাহর পথে জিহাদ করিবে। ইহাই তোমাদের জন্য শ্রেয় যদি তোমরা জানিতে!


 


 


দুঃখীদের মনের জোর কম থাকে।


-রবার্ট হেরিক।


 


 


যে ব্যক্তি বিদ্যার জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন, তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী।


 


 


ফটো গ্যালারি
সাক্ষাৎকার : তৃপ্তি সাহা
জীবনের ঘটনাবলি আমার লেখার উপকরণ
১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


তৃপ্তি সাহা স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিকে দীর্ঘদিন লেখালেখি করছেন। নিয়মিত প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও স্মৃতিকথা লিখেন। অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২০-এ প্রকাশিত হবে তাঁর প্রথম গ্রন্থ 'জীবনের গান'। বঙ্গবন্ধু, বইপাঠ, স্মৃতিতর্পণ, মানবিকতা, প্রকৃতি, যাপন এ গ্রন্থের উপজীব্য বিষয়। সম্প্রতি এ লেখকের মুখোমুখি হয় পাঠক ফোরাম। সাক্ষাৎকারটি আজ প্রকাশিত হলো।



 



বইমেলা-২০২০-এ আপনার প্রথম বই আসছে। দীর্ঘদিন লেখালেখি করলেও বই প্রকাশ হতে দেরি কেনো?



তৃপ্তি সাহা : বই বের করার মতো জটিল এবং সময়-সাপেক্ষ কাজ করার সাহস ছিলো না বলে বই প্রকাশ হতে এতোটা দেরি হলো।



 



এ বইয়ের লেখাগুলো সম্পর্কে বলুন?



তৃপ্তি সাহা : আসলে চলতি পথের যাপিত জীবনের হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া ঘটনা। বঙ্গবন্ধু, দেশ, মাটি, মানুষকে ভালোবাসা বিশেষ করে কচি প্রাণের সুরভিত ছোঁয়া_শুধু সেসব প্রকাশ করা। এটা আর যাই হোক সাহিত্য নয়।



আপনি সাধারণত কখন লিখেন? কীভাবে একটা লেখার উপকরণ পেয়ে যান?



তৃপ্তি সাহা : নিয়মিত লেখা হয় না। তবে যখন লিখি সেটা রাতেরবেলায় বেশি হয়। জীবনে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনাবলি আমার লেখার উপকরণ।



প্রথম বই প্রকাশিত হচ্ছে। আপনার অনুভূতি বলুন।



তৃপ্তি সাহা : স্বপ্ন ছিলো কিন্তু সাহস ছিলো না। ক্রেডিটটা সম্পূর্ণ মুহাম্মদ ফরিদ হাসানের আর পাঠকদের। যারা এ লুকিয়ে থাকা মানুষটাকে অনেক প্রশংসা করেছে। ধন্যবাদ বন্ধু কাজী শাহাদাতকে। আমি আনন্দিত, যে আনন্দ হারিয়ে যাওয়ার ভয় নেই।



 



বই নিয়ে আপনার প্রত্যাশা পাঠকদের বলুন।



তৃপ্তি সাহা : আমি বিশ্বাস করি ইন্টারনেটে তথ্য খোঁজা যায়, জানা যায়। কিন্তু সুখপাঠ্য বই পড়তে হলে অফসেট কাগজের সুন্দর মলাটের বইয়ের বিকল্প নেই। বই আপনার প্রকৃত বন্ধু, যে আপনাকে সবসময় সমস্ত বাধা-বিপত্তি থেকে আগলে রাখবে, পাশে থাকবে। বইটি পড়লে আপনার মনে হবে আরে এ ভাবনাতো আমারই ছিলো, আমিই তো লিখতে পারতাম। আসলেই তাই আমি আপনার মতো করেই লিখেছি। আপনিও লিখতে পারবেন। আর তাই আমার বইটি পড়বেন আপনাদের ভালোবাসায় ঋদ্ধ করবেন। ভালো থাকুন, দেশকে ভালোবাসুন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৪৬৫১৫
পুরোন সংখ্যা