চাঁদপুর, শনিবার ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬, ০৯ শাবান ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
আমাদের স্বাধীনতা
আবুল কালাম আজাদ
০৪ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:০০:২৬
প্রিন্টঅ-অ+


রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বাঙালির শ্রেষ্ঠ অর্জন এই স্বাধীনতা। শুধু কি পাকিস্তান আমলের ২৩ বছর? হাজার বছরের আন্দোলন-সংগ্রামের ফসল এই স্বাধীন বাংলাদেশ...

একটি জাতির আবির্ভাব-সার্বভৌমত্ব, তার আদর্শ অথবা অনুভব, বদ্বীপখ্যাত এক চিলতে ভূখ- শত বছরের শত সংগ্রাম শেষে অতঃপর হয়ে উঠেছে প্রকৃত অর্থে স্বাধীন। মানুষ তার হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসা দিয়ে এঁকেছে মানচিত্র। এরই নাম বাংলাদেশ। এই বাংলাদেশ তথা বদ্বীপের সঙ্গে যে নামটি যুক্ত তা শুধু একটি নাম নয়; একটি সত্তা, একটি মহিরুহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

দীর্ঘ ২৩ বছরের আন্দোলন-সংগ্রাম ও ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বাঙালির শ্রেষ্ঠ অর্জন এ স্বাধীনতা। শুধু কি পাকিস্তান আমলের ২৩ বছর? হাজার বছরের আন্দোলন-সংগ্রামের ফসল এই স্বাধীন বাংলাদেশ। শতবর্ষ আগে মাস্টারদা সূর্য সেন, প্রীতিলতা, ক্ষুদিরামসহ জানা-অজানা শত-সহ¯্র মানুষ আত্মাহুতি দিয়ে স্বাধীন এক ভূ-খ-ের বীজ বপন করে গেছেন। বাঙালির জন্য এই স্বাধীন ভূখ- প্রতিষ্ঠায় শেরেবাংলা একে ফজলুল হক, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মওলানা ভাসানীসহ অনেক নেতা শত শত বছরের মুক্তিসংগ্রামে বিভিন্নভাবে তাদের অবদান রেখে গেছেন। সব শেষে বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একাত্তরে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করে।

বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতা ও বাংলাদেশ শব্দগুলো ওতপ্রোত জড়িত এই কারণে যে, বঙ্গবন্ধুই বাঙালিকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন। তাকে বাংলাদেশের স্থপতি বলা হয়। কারণ বঙ্গবন্ধুর মতো আর কেউ কখনও এমন করে ভাবতে পারেনি যে, বাঙালির জন্য একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র; বাঙালির জন্য আলাদা আবাসভূমি। সেখানকার মানুষ হবে অসাম্প্র্রদায়িক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক মুক্তি ও কল্যাণে নির্মিত হবে একটি উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।

দেশমাতৃকার মুক্তি এবং একটি স্বাধীন-সার্বভৌম ঠিকানা নিশ্চিত করতে তিনি অবিচল ছিলেন এবং দেশের মানুষ এই সত্যটি উপলব্ধি করেছিল বলেই শেখ মুজিব হয়ে উঠেছিলেন অবিসংবাদিত নেতা- বঙ্গবন্ধু। ফলত ১৯৭০-এর নির্বাচনে মানুষ এমনভাবে দাঁড়িয়েছিল তার সমর্থনে; তার এক আঙুলের ইশারায় ১৯৭১ সালের মার্চে একটি শান্তিপূর্ণ অসহযোগ আন্দোলন পরিচালিত হতে পেরেছিল। মার্টিন লুথার কিং ও নেলসন ম্যান্ডেলার পরে বঙ্গবন্ধুই পৃথিবীর একমাত্র রাজনীতিবিদ, যিনি অসহযোগ আন্দোলনকে সার্থক রাজনৈতিক হাতিয়ারে পরিণত করতে পেরেছিলেন। 'পোয়েট অব পলিটিক্স'খ্যাত শেখ মুজিবুর রহমান শত বছরের শত সংগ্রাম শেষে রবীন্দ্রনাথের মতো দৃপ্ত পায়ে হেঁটে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চে ঐতিহাসিক রেসকোর্সের জনসমুদ্রে দৃপ্ত কণ্ঠে রচনা করেছিলেন সর্বকালের শ্রেষ্ঠ কবিতা- 'এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম/ এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।' আজ টুঙ্গিপাড়ার সমাধি থেকে বেরিয়ে এসে তিনি পরিব্যাপ্ত সারা বাংলাদেশে। যে বাংলাদেশের তিনি স্থপতি, সেই বাংলাদেশের বস্তুগত অর্জনের প্রশংসা আজ বিশ্বব্যাপী ধ্বনিত-প্রতিধ্বনিত। তার কাব্যময় অগ্নিস্টম্ফুলিঙ্গ অমিয় কথামালা আজ বিশ্বদরবারে গবেষণার উপাদান।

স্বাধীতনতার ৪৯ বছরে আজ আমরা যে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্লোগান তুলছি, সেটি যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’র পরিবর্তিত রূপ, তা আমাদের অনুধাবন করতে হবে। এ নিয়ে আমাদের তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলার সুযোগ কম। কেবল ‘সময়ের প্রয়োজনে’ বঙ্গবন্ধুর জীবন-যৌবন-আশা-আকাক্সক্ষার নির্যাস, সুনিপুণ সত্তা দিয়ে রচিত অকৃত্রিম স্বপ্ন সোনার বাংলা আজ ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপ পরিগ্রহ করেছে মাত্র। যে কোনো ক্রান্তিকালে অনুধাবন আর অনুভবে থাকতে হবে জাতির পিতার দৃপ্ত উচ্চারণÑ‘যদি হুকুম দিবার নাও পারি...।’ তাহলেই ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন অর্থবহ হবে। এর ব্যত্যয় হলে রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক এবং অর্থনৈতিক মুক্তি আর সত্যিকার সোনার বাংলা বিনির্মাণের সব আয়োজন ব্যর্থতায় পর্যবসিত হবে।


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৮৩-সূরা মুতাফ্ফিফীন


৩৬ আয়াত, ১ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৮। অবশ্যই পুণ্যবানদের আমলনামা 'ইলি্লয়্যীনে'


১৯। 'ইলি্লয়্যীন' সম্পর্কে তুমি কী জান ?


২০। উহা চিহ্নিত আমলনামা।


 


assets/data_files/web

ভালো লোক কখনোই মরে না।


-ক্যালিমাচাস।


 


 


 


পরনিন্দাকারী বেহেশতে প্রবেশ করতে পারবে না।


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৬৪,৯৩২ ৬,৩১,৩৫,৯৭৩
সুস্থ ৩,৮০,৭১১ ৪,৩৬,১২,৩৫৩
মৃত্যু ৬,৬৪৪ ১৪,৬৬,২৮৯
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৯৩৮২৯
পুরোন সংখ্যা