চাঁদপুর, শনিবার ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬, ০৯ শাবান ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
অন্য প্রেমের গান
সোহেল নওরোজ
০৪ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:০৩:১৮
প্রিন্টঅ-অ+


'তোমাকে আমি ঠিক বুঝে উঠতে পারি না। মাঝে মধ্যে কেমন অচেনা মনে হয়।'

আবীরের পাঠানো মেসেজ কম্পিউটারের পর্দায় ভেসে ওঠে। ঝটপট জবাব দেয় মোহনা।

'সারাজীবন একসঙ্গে থেকেও একজন মানুষ কি আরেকজনকে পুরোপুরি চিনতে পারে? কখনও জানতে পারে মনের অব্যক্ত সব কথা? আর তোমার সঙ্গে আমার তো মাত্র কয়েকদিনের পরিচয়! কী দরকার এখনই সবটা বোঝার? কিছু রহস্য থাক না! তাতে আগ্রহের তীব্রতা আরও বাড়বে।'

ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয়, অতঃপর ভাবের বিনিময় শুরু বছর দুয়েক আগে। মাঝরাত অবধি চলে দু'জনের মেসেজ আদান-প্রদান। 'অন্তহীন' চলচ্চিত্রের অভীক-বৃন্দার মতো প্রগাঢ় বন্ধুত্ব হয় আবীর-মোহনার। বন্ধুত্বের সেই মোড়কে ক্রমশ বিশ্বাস, আস্থা আর নির্ভরতা জমা হতে থাকে। নামের মতোই আবীর মুগ্ধতার রঙ ছড়ায়। মোহনার ধূসর জমিন ঝলমলে হয়ে ওঠে আবীরের রঙে। একসময় তা রূপ নেয় পরিচ্ছন্ন ভালোবাসায়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা এই যন্ত্রের সামনে বসে থাকতেও ক্লান্তি নেই। এটিই যে তাদের এনে দিয়েছে স্পর্শনীয় দূরত্বের ভেতর! চাইলেই যেন হাত বাড়িয়ে ছোঁয়া যায়, মন বাড়িয়ে বলা যায় জমে থাকা কথা! ভালোবাসার সম্মোহনে জাগতিক নিয়ম-কানুন তুচ্ছ হয়ে ওঠে দু'জনের কাছে। বাাচ্চাদের মতো মোহনা ভীষণ জোকস পছন্দ করে। ওকে শোনানোর জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট ঘেঁটে শত শত জোকস সংগ্রহ করে আবীর। এত পাগলামির পরও জীবনটাকে সার্থক আর পূর্ণ মনে হয়। ভালোবাসার শক্তি বুঝি এমনই!

মোহনা জানিয়েছিল, ওরা তিন ভাইবোন। ও পরিবারের সঙ্গে থাকে না। বিশেষ কারণে এবং পড়ালেখার স্বার্থে তাকে আলাদা মেসে থাকতে হয়। বিশেষ সেই কারণটা দেখা হওয়ার আগে জানাতে চায় না আবীরকে। পাওয়ার আগেই হারানোর ভয়টা তখন তীব্র হয়। দু'জনের দেখা করার প্রসঙ্গ উঠলে উচ্ছল মোহনা কেমন নিস্তেজ হয়ে পড়ে! চেনা মানুষটাকেও অচেনা মনে হয়। আবীর তাড়াহুড়া করে না। ওকে প্রস্তুত হওয়ার জন্য যথেষ্ট সময় দেয়। তবু ঠিক বুঝে উঠতে পারে না। কোথাও যেন একটা সংশয়ের প্রচ্ছন্ন দেয়াল, যা ভেঙে বেরিয়ে আসতে চায় না। ফেসবুকে আপলোড করা ছবির অর্ধেকটাও যদি মোহনার বাস্তব রূপ হয়, তবু ওর মতো সুন্দরী এক জীবনে খুব বেশি দেখেনি আবীর। খুব চেনা একটি মুখ, অথচ কিছুতেই চোখ ফেরানো যায় না। সময় পেরিয়ে যায়। নিষ্পাপ-মায়াকাড়া মুখখানা সরাসরি দেখতে ব্যাকুল হয়ে ওঠে আবীর। তার ব্যগ্রতার কাছে হার মেনে মোহনাও আর 'না' করতে পারে না। আবীর ভেবে কূল পায় না, দু'জনের সাক্ষাতের দিন যত সন্নিকটে আসে, মোহনাকে তত বেশি ম্রিয়মাণ লাগে। কিন্তু কেন?

'আমাকে দেখার পর যদি তুমি কষ্ট পাও?'

মোহনার উচ্ছ্বাসহীন কাঁপা কণ্ঠকে পাত্তা দেয় না আবীর।

'কী যে বল না! তোমাকে তো দেখেছিই। আমার হৃদয়মন্দিরে তোমার ছবি আঁকা। শুধু সামনে থেকে দেখা, কিছুক্ষণ একসঙ্গে থাকা, এই যা!'

'তারপরও কোনো কারণে যদি মেনে নিতে না পার?'

'তোমার মুখের দিকে চেয়ে সব কষ্ট নিমেষেই ভুলে যাব।'

'যদি সম্ভব না হয়?'

'দেখে নিও, আমি পারবই।'

আর দশটা ছেলে হয়তো মেনে নিতে পারত না, কিন্তু আবীর পারে ভালোবাসার শক্তি দিয়ে বাধার দেয়াল ডিঙাতে। দূর থেকে কল্পলোকের 'পরী'কে আসতে দেখে পেয়ে বসা মুগ্ধতার ঘোরের মধ্যেই বড় একটা ধাক্কা হৃদয়-পাঁজরকে বিদ্ধ করে। স্রষ্টার অনবদ্য কারুকাজম-িত অবয়বের নিচে মানুষের পৈশাচিক হিংস্র্রতার চিহ্ন! যা বহন করছে মোহনা! এসিডে ঝলসানো মোহনার কাঁধের একপাশ। ওর বাবার সঙ্গে এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তির জমিজমা-সংক্রান্ত বিরোধের ফল বয়ে বেড়াতে হচ্ছে তিন বোনের মধ্যে সবচেয়ে রূপবতী মোহনাকে! পরিবার থেকে দূরে থাকার এটিই মূল কারণ।

মোহনার অসহায় চোখে তাকিয়ে কোনোমতে কান্না লুকায় আবীর। কিছু একটা বলতে গিয়েও আঁকে যায় মোহনা। ধরে আসা কণ্ঠে আবীর জানায়, 'সব প্রতিকূলতা মাড়িয়ে তোমাকে আপন করে নিতে প্রস্তুত। কেবল অনুরোধ, করুণা করেছি ভেবে কখনও যেন বিষণ্ন হতে না দেখি। যে দুর্ঘটনায় তোমার কোনো দায় নেই, তার জন্য নিজেকে দোষ দিয়ে অযথা কেন কষ্ট পাবে? আমাদের ভালোবাসা নীরবে নয়, অমলিন ও প্রাণবন্ত রবে সরবে।' আবেগের স্রোতে ভেসে যায় মোহনার দু'চোখ। জীবনের সবচেয়ে আরাধ্য ভালোবাসাটুকু পাওয়ার পরম ভাগ্য মোহনার মতো অঘটনের শিকার আর ক'জন মেয়ের হয়! যে ভালোবাসায় একজন মানুষের অকৃত্রিম মমতা আর অবিচল বিশ্বাস আরেকজন প্রবঞ্চিত মানুষকে সুখী করে অবিরত...!


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৮৩-সূরা মুতাফ্ফিফীন


৩৬ আয়াত, ১ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৮। অবশ্যই পুণ্যবানদের আমলনামা 'ইলি্লয়্যীনে'


১৯। 'ইলি্লয়্যীন' সম্পর্কে তুমি কী জান ?


২০। উহা চিহ্নিত আমলনামা।


 


assets/data_files/web

ভালো লোক কখনোই মরে না।


-ক্যালিমাচাস।


 


 


 


পরনিন্দাকারী বেহেশতে প্রবেশ করতে পারবে না।


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৬৪,৯৩২ ৬,৩১,৩৫,৯৭৩
সুস্থ ৩,৮০,৭১১ ৪,৩৬,১২,৩৫৩
মৃত্যু ৬,৬৪৪ ১৪,৬৬,২৮৯
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৫৪৩১১
পুরোন সংখ্যা