চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫। ৫ রবিউস সানি ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৭। যাহারা আখিরাতে বিশ্বাস করে না তাহারাই নারীবাচক নাম দিয়া থাকে ফিরিশ্তাদিগকে;


২৮। অথচ এই বিষয়ে উহাদের কোন জ্ঞান নাই, উহারা তো কেবল অনুমানেরই অনুসরণ করে; কিন্তু সত্যের মুকাবিলায় অনুমানের কোনই মূল্য নাই।


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


দয়া ঈমানের প্রমাণ; যার দয়া নেই তার ঈমান নেই।


 


ফটো গ্যালারি
এখনই পদক্ষেপ, না হলে মহাসঙ্কট
১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

প্রতিটি সংবাদপত্রেই নানা ঘটনার সংবাদ ও প্রতিবেদনে ভরপুর থাকে। কোনো কোনো সংবাদ মানুষকে আনন্দিত করে, কোনো সংবাদ ভাবিয়ে তোলে, আবার কোনো সংবাদ পুলকিত করে, কোনো কোনো সংবাদ মানুষের মনকে আন্দোলিত করে, বিষাদে ভরিয়ে তোলে। প্রকাশিত সংবাদ বা প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে সরকার ও রাষ্ট্র পরিকল্পনা গ্রহণ করে যাতে ওই সংবাদ বা প্রতিবেদনের নেতিবাচক প্রভাব রাষ্ট্রের ওপর, রাষ্ট্রের জনগণের উপর না পড়ে। তেমনি একটি সংবাদ আমাকে খুবই ভাবিয়ে তুলেছে এবং সংবাদটি দেখার পর চোখ কপালে ওঠার অবস্থা। সংবাদটি দেশের বিজ্ঞজনদেরও ভাবিয়ে তুলেছে বৈকি। পুরো দেশকেই ভাবিয়ে তোলার মতো। দেশের চলমান রাজনৈতিক সঙ্কটের চেয়েও গভীর। গত ৩০ নভেম্বর দৈনিক ইত্তেফাকের ৩য় পৃষ্ঠায় 'দেশে প্রতি তিনজনে ১ জন লিভার রোগে আক্রান্ত' এই শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়। বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ। সঙ্গত কারণেই জনসাধারণের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা একটি বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের বিষয়। যখন প্রতি তিনজনের একজন লিভার রোগে আক্রান্ত এমন বিষয় সামনে আসছে, তখন কোনোভাবেই বিষয়টিকে এড়ানোর সুযোগ নেই। মানুষের রোগ বাড়তে থাকলে কিংবা স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবেলা করা সম্ভব না হলে তা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক বাস্তবতাকেই স্পষ্ট করবে। এই সঙ্কট মোকাবেলায় এখনই কার্যকর পরিকল্পনা গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করতে না পারলে সেইদিন খুব বেশি দূরে নয়, যেইদিন বাংলাদেশে এক মহামারি সঙ্কটে পতিত হবে। দেখা দিবে স্বাস্থ্য ঝুঁকি, অর্থনৈতিক সঙ্কট এবং সামাজিক ও পারিবারিক সঙ্কট। দেশের সাধারণ নাগরিক হিসেবে যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। কোনো পরিবারে যখন কোনো একজন অসুস্থ হয় তখন সামাজিক স্বাস্থ্য ঝুঁকি, অর্থনৈতিক সঙ্কট এবং সামাজিক ও পারিবারিক সঙ্কট দেখা দেয়। পারিবারিক আয় কমে যায়, চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধি পায়, পারিবারিক দুঃশ্চিন্তা বৃদ্ধি পায়, পারিবারিক ও সামাজিকভাবে অসুস্থ পরিবেশের সৃষ্টি হয় এবং পরিচর্চাকারীর কর্মঘণ্টা হয়। যেই সংবাদকে কেন্দ্র করে এই ভাবনার উদয় তা মোকাবেলায় এখনই অতি দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থাগ্রহণ করতে হবে। প্রতি তিনজনে একজন লিভার রোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণ চিহ্নিত করে তার সমাধানে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থাগ্রহণ করতে হবে। দেশের স্বাস্থ্যখাত হুমকীর মুখে পড়লে অর্থনৈতিক সঙ্কট যেমন বাড়বে, তেমনি বাড়বে স্বাস্থ্য ঝুঁকিও। দেশে প্রতি তিনজনে ১ জন লিভার রোগে আক্রান্ত বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলেছেন, একই সঙ্গে ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে। দেশে হেপাটাইটিস বি, সি ও ফ্যাটি লিভার ছাড়াও সারা বছর হেপাটাইটিস ই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব চলতেই থাকে।

এ বছর এপ্রিল থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত চট্টগ্রামে হেপাটাইটিস ই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ব্যাপকভাবে পরিলক্ষিত হয়। আমাদের দেশে ১ কোটি ক্রমিক হেপাটাইটিস এবং সাড়ে ৪ কোটি মানুষ ফ্যাটি লিভার রোগে আক্রান্ত। দেশের প্রতিটি নগর হেপাটাইটিস ই ভাইরাসের মহামারী ঝুঁকিতে রয়েছে। এই সঙ্কট মোকাবেলা করার জন্যে ব্যাপক হারে সচেতনতা বৃদ্ধির প্রয়োজন। ভেজাল খাদ্য ও ভেজাল ওষুধের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি কঠোরভাবে ভেজাল খাদ্য ও ভেজাল ওষুধ দমন করতে হবে। সচেতনতা বৃদ্ধির জন্যে প্রিন্ট মিডিয়া ও ইলেক্ট্রনিঙ্ মিডিয়াকে গুরুত্বপূর্ণ ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই শ্রেষ্ঠ। হেপাটাইটিস বি, সি, ফ্যাটি লিভার হেপাটাইটিস ই রোগ কী, কেনো হয়, কীভাবে ছড়ায় এবং এর প্রতিরোধের উপায় কী ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একটি করে সেমিনার করা যেতে পারে। এই রোগের এমন প্রবণতা মোকাবেলা করার জন্যে দেশে একটি স্বতন্ত্র লিভার ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করা জরুরি এবং দেশে এক হাজারের বেশি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসার প্রয়োজন। বর্তমানে দেশের লিভার বিশেষজ্ঞের সংখ্যা একশ'রও নিচে। প্রতি বিশ লাখে বিশেষজ্ঞ আছে মাত্র একজন। পারিবারিক অভাব-অনটন এবং দেশের অর্থনৈতিক সঙ্কট প্রভৃতি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষ কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে সংশ্লিষ্টদের। রোগ প্রতিরোধ এবং মানুষের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করার বিষয়টিকে সামনে রেখে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ ও তার সুষ্ঠু বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টারা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।

লেখক : শিক্ষক, হাইমচর সরকারি মহাবিদ্যালয়, হাইমচর, চাঁদপুর।

আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৩৭১২৬
পুরোন সংখ্যা