চাঁদপুর। বুধবার ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮। ১২ পৌষ ১৪২৫। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • ফরিদগঞ্জের মনতলা হাজী বাড়ির মোতাহের হোসেনের ছেলে ফাহিম মাহমুদ (৩) নিজ বাড়ির পুকুরে ডুবে মারা গেছেন। ||  শনিবার সকালে ফাহিমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক। || 
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৫-সূরা জাছিয়া :

৩৭ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী

১০। উহাদের পশ্চাতে রহিয়াছে জাহান্নাম; উহাদের কৃতকর্ম উহাদের কোন কাজে আসিবে না, উহারা আল্লাহর পরিবর্তে যাহাদিগকে অভিভাবক স্থির করিয়াছে উহারাও নহে। উহাদের জন্য রহিয়াছে মহাশাস্তি।


assets/data_files/web

সৌভাগ্যবান হওয়ার চেয়ে জ্ঞানী হওয়া ভালো।        


-ডাবলিউ জি বেনহাম।


স্বভাবে নম্রতা অর্জন কর।



 


ফটো গ্যালারি
আমাদের প্রিয় সাহিত্য আসর
সৌম্য সালেক
২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমীর মাসিক সাহিত্য আসরের পাঁচ বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে_এটি চাঁদপুরের সাহিত্য সংশ্লিষ্ট অনেকের মতো আমাকেও আনন্দিত করেছে। মনে পড়ছে ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মাসের কথা। শহীদ মিনারের সেই সান্ধ্যকালীন আসরে উপস্থিত ছিলো চাঁদপুরের আট বা দশজন সাহিত্যকর্মী। আমি তাদের সামনে কিছুটা প্রত্যয়ের সাথে বলেছিলাম সহসাই নতুন আয়োজনে সাহিত্য একাডেমীতে আসর বসবে। সেটি যথাসময়ে বসেছেও। এক্ষেত্রে একাডেমীর তৎকালীন সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোঃ ইসমাইল হোসেন এবং মহাপরিচালক কাজী শাহাদাতের ভূমিকা ছিল অগ্রগণ্য। মাসিক সাহিত্য আসর চাঁদপুরের সাহিত্য অঙ্গনে কী ভূমিকা পালন করেছে_এই প্রশ্নের উত্তর আসলে অনেক বিস্তৃত ও সমপ্রসারিত। ২০১৭ সালে চাঁদপুর জেলায় প্রথম সাহিত্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ আয়োজনটি ছিল চাঁদপুরের জন্যে বিরাট ঘটনা। যা সম্ভব হয়েছে সাহিত্য আসরের সাথে সম্পৃক্ত সকল সাহিত্যকর্মীর প্রচেষ্টা ও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের ফলে। কম-বেশি বিভিন্ন ছোটকাগজের প্রায় ৪০টি সংখ্যা গত বছরের ৫ বছরে চাঁদপুর থেকে বের হয়েছে। এসব কর্মযজ্ঞের প্রণোদনা ও উৎসাহের জায়গা মূলত এই সাহিত্য আসর। গল্পকার রফিকুজ্জামান রণি ও মুহাম্মদ ফরিদ হাসান আাজ মোটামুটি সারাদেশে তাদের নাম ছড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছেন। তারা ২০১৩ সালের আগেই লেখালেখি আরম্ভ করেছেন। কিন্তু তাদের প্রচেষ্টা অনেক বেশি অগ্রবর্তী হয়েছে এ সাহিত্য আসরের মাধ্যমে। কেবল তারা দুজন নয় সাহিত্য আসর এমন আরও অন্তত ১০ জন লেখককে তুলে এনেছে। আজ যাদের লেখা দেশের বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় শোভা পাচ্ছে। সংস্কৃতি চর্চার সাথে সম্পৃক্ত সকলের সাথে আজ সাহিত্যকর্মীরাও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সাদরে আদৃত হচ্ছেন। জেলা প্রশাসক পা-ুলিপি পুরস্কার প্রদানের ঘোষণাও সাহিত্যকর্মীদের সম্মিলিত চর্চা ও কর্মপ্রচেষ্টার সুফল। ২০১৩ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রায় সাড়ে চার বছর কর্মসূত্রে আমি নিজ জেলা শহর চাঁদপুরে অবস্থান করেছি। আমার কাজে ও কথনে চেষ্টা করেছি সংস্কৃতির ধারণা যে আরও সমপ্রসারিত, সেখানে শিল্প-সাহিত্যসহ মানুষের যাপন-কৌশলের সকল সুকুমারবৃত্তির গভীর অবস্থান রয়েছে। সেসব প্রকাশ ও প্রচার করতে চেয়েছি। সাংস্কৃতিক কর্মকা- বাস্তবায়নের পাশাপাশি মাসিক সাহিত্য আসর সঞ্চালনা ছিল আমার প্রিয় কাজের একটি। ৫০তম আসরটি আমরা দারুণ আয়োজনে উদ্যাপন করেছি। সেদিনের স্মৃতি ও প্রীতি আমি কখনোই ভুলবো না। সাহিত্য আসরে কথা বলে, কবিতা পড়ে আমি যেমন শিখেছি তেমনি উপস্থিত উপভোগীরাও আধুনিক সাহিত্যের ধরন প্রকরণ ও কৌশল সম্পর্কে সম্যক জেনেছে বলে মনে করছি। চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমী যে উদ্দেশ্য নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সেই উদ্দেশ্যকে পরিপূর্ণভাবে আমরা বাস্তবায়িত হতে দেখেছি সাহিত্য আসর আরম্ভ হবার পর থেকে। নতুন নতুন ভাবনা চিন্তা ও করণকৌশলের সৃষ্টি ও উদ্ভাবনের লক্ষ্যে একাডেমি গড়ে ওঠে। সাহিত্য একাডেমী চাঁদপুর আজ সেই লক্ষ্যের অনুগামী হয়ে তার কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। যা ইতিমধ্যে দেশের সাহিত্য অঙ্গনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।



চাঁদপুর_জল-শস্য-কাদামাটির লাবণ্যে লালিত এক অনুপম জনপদ। নদী এখানে তার আপন রূপকে আজও ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। আর স্বাদে ঘ্রাণে ভরা রূপালি ইলিশ চাঁদপুরকে দিয়েছে স্বতন্ত্র পরিচিতি। এই অনন্য প্রকৃতিলগ্ন জনপদ অনেক কবি শিল্পীদেরও জন্ম দিয়েছে। আমাদের প্রত্যাশা শিল্প-সাহিত্য ক্ষেত্রে চাঁদপুরের যাত্রা আরো গতিশীল হবে। এক্ষেত্রে সাহিত্য একাডেমী হোক সকল সাহিত্যকর্মীর পীঠস্থান। পাঁচ বছর, দশ বছর_এভাবে যুগ যুগ ধরে চলমান থাকুক আমাদের প্রিয় সাহিত্য আসর। সকল সাহিত্যকর্মীকে শুভেচ্ছা ও অভিবাদন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৯০০৬১৮
পুরোন সংখ্যা