চাঁদপুর। বুধবার ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮। ১২ পৌষ ১৪২৫। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন || চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য দীপু মনি শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন || *
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৫-সূরা জাছিয়া :

৩৭ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী

১০। উহাদের পশ্চাতে রহিয়াছে জাহান্নাম; উহাদের কৃতকর্ম উহাদের কোন কাজে আসিবে না, উহারা আল্লাহর পরিবর্তে যাহাদিগকে অভিভাবক স্থির করিয়াছে উহারাও নহে। উহাদের জন্য রহিয়াছে মহাশাস্তি।


assets/data_files/web

অসৎ আনন্দের চেয়ে পবিত্র বেদনা মহৎ।

-হোমার


দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত জ্ঞান চর্চায় নিজেকে উৎসর্গ করো।

 


ফটো গ্যালারি
সাহিত্যমনার অনুভূতি
নিঝুম খান
২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


সাহিত্য হচ্ছে একজন মানুষের চিন্তাধারার বহিঃপ্রকাশ। তাত্তি্বক শিক্ষার জন্যে যেমন বিদ্যালয়ের প্রয়োজন তেমনি সাহিত্যমনা ব্যক্তির সাহিত্য প্রতিভা বিকাশের জন্যে সাহিত্য একাডেমীর প্রয়োজন। কারণ সাহিত্য আসরই গুরু এবং শিষ্যকে একই সারিতে বসাতে পারে, কাছাকাছি আনতে পারে। চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমীর সাথে সম্পর্কটা অতটা দীর্ঘ না হলেও এর প্রতি ভালোবাসা রয়েছে প্রগাঢ়। যখন সবেমাত্র লেখালেখির জগতে পা রেখেছি তখন পাহাড় সমান ভুলভ্রান্তি সাথে করে নিয়ে এসেছি। নিজের লেখার ভাষাগত, অর্থগত, ব্যবহারগত ভুলের অভাব ছিলো না। কিন্তু একটা কথা বলবো যে, আমার লেখালেখির শুরুতে এই সাহিত্য একাডেমীর সাহিত্য আসরের সাহায্যের সত্যিই প্রয়োজন ছিলো। 'কেউই ভুলের ঊধর্ে্ব নয়, ভুল থেকেই শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত' কথাটি এখান থেকে শেখা।



প্রথমবারে এসে নিজের ভেতর বেশ লজ্জা কাজ করছিলো। কারণ এতো এতো গুণীজনদের সামনে নিজেকে বেশ নগণ্য মনে হচ্ছিলো। গুটিসুটি মেরে বসেছিলাম শেষের চেয়ারটাতে। একে একে সবাই সবার স্বরচিত কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ পাঠ করছিলো। আমি শুধু সকলের দিকে মন্ত্রমুগ্ধের মতো তাকিয়ে ছিলাম। লেখালেখির প্রতি উৎসাহের কিছুটা এখান থেকে আসে। লাভ-ক্ষতির হিসেব করে কখনোও লেখালেখি হয় না। তারপর থেকে সাহিত্য আড্ডায় এসে কবিতা পাঠ করি। কোনো জায়গায় ভালো-খারাপ হলে সেসব নিয়ে সাহিত্য আসরে আলোচনা হয়, সমালোচনা হয়। অভিজ্ঞ লেখকদের কাছ থেকে মূল্যবান মতামত পাই যা পরবর্তী লেখায় উদ্বুদ্ধ করে, প্রেরণা জোগায়। নতুনত্বের সন্ধানে প্রাণিত করে।



আগামী প্রজন্মকে কলম ধরার নিয়ম শিখাতে বর্তমান প্রজন্মের কলম সৈনিকদের প্রয়োজন। একত্রে প্রয়োজন। যা একমাত্র সাহিত্য আড্ডার মাধ্যমেই সম্ভব। একদিন এখান থেকেই উঠে আসবে কালজয়ী কোনো কবি বা লেখক। একজন সাহিত্যপ্রেমী হিসেবে চাইবো সাহিত্য আড্ডার এই ধারা অব্যাহত থাকুক, চলমান থাকুক।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪০৯০৭২
পুরোন সংখ্যা