চাঁদপুর। মঙ্গলবার ১৪ নভেম্বর ২০১৭। ৩০ কার্তিক ১৪২৪। ২৪ সফর ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩১-সূরা লোকমান


৩৪ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩৪। কিয়ামতের জ্ঞান কেবল আল্লাহর নিকট রহিয়াছে, তিনি বৃষ্টি বর্ষণ করেন এবং তিনি জানেন যাহা গর্ভাশয়ে আছে। কেহ জানে না আগামীকাল সে কি অর্জন করিবে এবং কেহ জানে না কোন স্থানে তাহার মৃত্যু ঘটিবে। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ সর্বজ্ঞ, সর্ববিষয়ে অবহিত।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

অতিরিক্ত ঔষধ রোগ বৃদ্ধি করে।  -ভার্জিল।


মায়ের পদতলে সন্তানদের বেহেশত।


চাঁদপুরে শেষ হলো আইজিপি কাপ কাবাডি টুর্নামেন্ট
চৌধুরী ইয়াসিন ইকরাম
১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলার ক্রীড়া সংস্থার দলগুলো নিয়ে শেষ হলো আইজিপি কাপ কাবাডি টুর্নামেন্ট। জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় ও জেলা পুলিশ এবং প্রবাহ অফসেট প্রেসের সহযোগিতায় এ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর আইজিপি কাপ কাবাডি টুর্নামেন্ট একটু ভিন্ন আঙ্গিকে খেলার আয়োজন করেছিলেন আয়োজকরা। আর এই আয়োজনের পেছনে ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী কমিটির সদস্য এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার কাবাডি উপকমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওমর পাটওয়ারীকে।



টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী পর্বগুলো শুরু হয় এবার ৪টি উপজেলাতে। চাঁদপুর সদরের বাইরে ওই উপজেলাগুলোতে একই দিনে ৪টি ভেন্যুতে খেলাতে অংশ নেন উপজেলা দলগুলোর কাবাডি খেলোয়াড়গণ। স্ব স্ব উপজেলার খেলা শেষে টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল ও ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয় চাঁদপুর শহরের তিন নদীর মিলনস্থল মোলহেডে। আর এই মোলহেডে কাবাডি খেলার আয়োজন করার ফলে খেলা চলাকালীন দেখা গেছে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা ছাড়া অসংখ্য ক্রীড়ামোদী দর্শকদের। সেমিফাইনাল খেলায় উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু, কাবাডি উপকমিটির সাধারণ সম্পাদক শাহাজাহান তালুকদার সাহা সহ অনন্য কর্মকতাগণ



ফাইনাল খেলা গত ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। ফাইনালে ফরিদগঞ্জ উপজেলার সাথে ৫২-২২ পয়েন্টে জয় পেয়ে শিরোপা নিশ্চিত করেন কচুয়া উপজেলা কাবাডি দল। আর ১০ নভেম্বর শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর পুলিশ লাইন মাঠে পুলিশের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে কাবাডি টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের সদস্যদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন পুলিশের আইজিপি একেএম শহীদুল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক)-এর সভানেত্রী মিসেস শামসুন্নাহার রহমান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি ড. এসএম মনির উজ্জামান বিপিএম পিপিএম, পুলিশ সদর দপ্তরের ডিআইজি (প্রশাসন ও শৃঙ্খলা) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন, এআইজি (মিডিয়া এ- পাবলিক রিলেশন অফিসার) সহেলী ফেরদৌস, পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, চাঁদপুরের নৌ পুলিশ সুপার সুব্রত হাওলাদার, চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাসিরউদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার এম এ ওয়াদুদ, স্বাধীনতাপদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার, চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আখন্দ সেলিম, বর্তমান সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শরীফ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জি এম শাহীন, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক সফিউদ্দিন আহমেদ, চাঁদপুর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু, জেলা ক্রীড়া সংস্থার কাবাডি উপকমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওমর পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান তালুকদার সাহা, জাতীয় ক্রীড়াবিদ আবুল কালাম, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালীসহ পুলিশ বিভাগের প্রশাসনিক কর্মকতাগণ।



জেলা ক্রীড়া সংস্থার কাবাডি উপকমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওমর পাটওয়ারীর সাথে টুর্নামেন্টের ব্যাপারে আলাপকালে তিনি জানান, সকল উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকতা ও পুলিশ প্রশাসনের আন্তরিকতায় সুন্দরভাবে আমরা এ টুর্নামেন্টটি সফলভাবে শেষ করতে পেরেছি। চাঁদপুর জেলা শহরের চেয়ে উপজেলাগুলোতে অনেক উদীয়মান কাবাডি খেলোয়াড় সৃষ্টি হয়েছে। টুর্নামেন্টের খেলাগুলো চলাকালীন দেখা গেছে দেশের গ্রামীণ জনপদের এ খেলার আয়োজনের কথা শুনে অনেক দূর-দূরান্ত থেকে অনেক লোক ছুটে এসেছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে উপজেলাগুলোর কর্মকর্তাদেরকে অনুরোধ করবো তারা যেনো এই সমস্ত খেলোয়াড়দেরকে নিয়মিতভাবে কাবাডি খেলার অনুশীলন চালিয়ে যায়। এ খেলার মাধ্যমে আমাদের গ্রামীণ খেলাধুলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে হবে।



জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু বলেন, আসছে ক্রীড়া মাস। এর আগে সকল উপজেলাগুলোকে নিয়ে যে কাবাডি টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছিলো এতে বেশ সাড়া পাওয়া গেছে। এবারের টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি দলই মাঠের দর্শকদের ভালোমানের খেলা উপহার দিয়েছেন। এ কাবাডি খেলার সাথে যে সমস্ত খেলোয়াড় জড়িত রয়েছে আমি তাদেরকে অনুরোধ করবো তারা যেনো নিয়মিতভাবে এ খেলাটি অনুশীলন চালিয়ে যায়। তাহলে তাদের খেলার মান আরো ভালো হবে।



হাজীগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা এবং কাবাডি উপকমিটির সম্পাদক শাহাজাহান তালুকদার সাহার সাথে আলাকােেল তিনি বলেন, গত কয়েক বছর ধরে আমরা এ কাবাডি খেলার ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছি। আশা করি এ ধরনের টুর্নামেন্ট থেকে অনেক খেলোয়াড় সৃষ্টি হবে যারা আগামীতে জেলা ও জেলার বাইরে দর্শকদের ভালো মানের খেলা উপহার দিতে পারবে এজন্য খেলার আয়োজন ও খেলোয়াড়দের খেলার আগ্রহের জন্য সকলের সহযোগিতা সহ পৃষ্ঠপোষকতার আশা করছি।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫২৩০৩৬
পুরোন সংখ্যা