চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১৪ মে ২০১৯, ৩১ বৈশাখ ১৪২৬, ৮ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

১৭। স্মরণ রাখিও, ‘দুই গ্রহণকারী’ ফিরিশ্তা তাহার দক্ষিণে ও বামে বসিয়া তাহার কর্ম লিপিবদ্ধ করে;

১৮। মানুষ যে কথাই উচ্চারণ করে তাহার জন্যে তৎপর প্রহরী তাহার নিকটেই রহিয়াছে।


assets/data_files/web

একজন ভাগ্যবান ব্যক্তি সাদা কাকের মতোই দুর্লভ। -জুভেনাল।


 


 


মানুষ যে সমস্ত পাপ করে আল্লাহতায়ালা তার কতকগুলো মাপ করে থাকেন, কিন্তু যে ব্যক্তি মাতা-পিতার অবাধ্যতাপূর্ণ আচরণ করে, তার পাপ কখনো ক্ষমা করেন না।


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগ-২০১৯
সুপার ফোরে খেলবে আবাহনী বনাম প্রফেসরপাড়া এবং ক্রিকেট কোচিং বনাম শেখ রাসেল
ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৪ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর স্টেডিয়ামে চলমান প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ডের খেলা শেষ হয়েছে। প্রথম রাউন্ডের অনেক নাটকীয়তা দেখলো এবার চাঁদপুরের ক্রীড়া সংগঠকরা। লীগের বাইলজ অনুযায়ী খেলার ফলাফল না দেয়ার জন্যে লীগের ১১ তম ম্যাচে ক্রিকেটার ও ক্রীড়া সংগঠকরা সাবেক ক্রিকেটার ও রাজনৈতিক পরিবারের জনৈক সন্তানের হুমকি সবাই উপভোগ করেছেন। আর এই হুমকির ফল স্বরপ তিনি সম্ভবত লীগ থেকে এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার খেলাধুলার সকল কার্যক্রম থেকে ২ বছরের জন্যে নিষিদ্ধ হয়েছেন। এবারের ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ডের খেলায় এমনও দেখা গেছে যে, জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্তর্ভুক্ত যে ৮টি ক্লাব অংশ নিয়েছে এর মধ্যে ২টি ক্লাব উপজেলা পর্যায়ের দুটি ক্রিকেট একাডেমীর খেলোয়াড়দের দিয়ে খেলেছেন।



জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ক্রিকেট উপ-কমিটির ব্যবস্থাপনায় প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ডের খেলা শেষে সুপার ফোরে উঠেছে ৪টি ক্লাব । লীগের নিয়ম অনুযায়ী প্রথম রাউন্ডে ৮টি দলকে দুটি গ্রুপে ভাগ করে দেয়া হয়েছিলো। সেই দুটি গ্রুপের খেলার পয়েন্ট অনুযায়ী চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ দলগুলোই সুপার ফোরে খেলার সুযোগ পেয়েছে। এই দলগুলো হচ্ছে চাঁদপুর আবাহনী ক্রীড়া চক্র, প্রফেসর পাড়া ক্রীড়া চক্র, ক্রিকেট কোচিং সেন্টার ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। এই ৪টি দলের খেলা হবে নকআউট পদ্ধতিতে। যে দুটি দল জয়লাভ করবে তারাই লীগের ফাইনালে খেলার সুযোগ পাবে। যদিও ৪ বছর আগে অনুষ্ঠিত হওয়া প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের সুপার ফোরের খেলাগুলো এতোদিনেও হয়নি। আবার চলতি বছর শুরু হওয়া প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের সুপার ফোরের খেলাগুলো আদৌ হবে কিনা এ নিয়ে সুপার ফোরে ওঠা দল ও দলের ক্রিকেটারদের মনে প্রশ্ন উঠেছে।



চলতি প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের সুপার ফোরে ওঠা আবাহনী ক্রীড়া চক্র লীগের প্রথম রাউন্ডে চাঁদপুর ক্রিকেট কোচিং সেন্টার , চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব ও পাইওনিয়ার ক্লাবকে হারিয়ে গ্রুপ পর্যায়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়। এই ক্লাবেরই সতী ক্লাব শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র প্রথম রাউন্ডে প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র, উদয়ন ক্লাব ও চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমীকে হারিয়ে অপরাজিতভাবে গ্রুপ পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়। চাঁদপুর ক্রিকেট কোচিং সেন্টার পাইওনিয়ারের সাথে ৩ পয়েন্ট ও ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে বৃষ্টি বিঘি্নত ম্যাচে চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাবের সাথে ১ পয়েন্ট পেয়ে অনেকটা ভাগ্যের সহায়তাতেই প্রথম রাউন্ড শেষ করে এবং প্রফেসর পাড়া ক্রীড়া চক্র লীগের শক্তিশালী দল চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী ও উদয়ন ক্লাবকে হারিয়ে সুপার ফোরে উঠে। তারুণ্য নির্ভর এ ক্লাবটির কর্মকর্তা ও খেলোয়াড়দের আন্তরিকতা ও সাহসিকতার জন্যেই তারা সুপার ফোরে উঠলো।



এবারের প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের মিডিয়া স্পন্সরের দায়িত্বে আছে দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠ। এবার লীগের প্রথম রাউন্ডের খেলার ফলাফলগুলো নিচে তুলে ধরা হলো।



২৩ এপ্রিল লীগের উদ্বোধনী দিনের ম্যাচে অংশগ্রহণ করেন পাইওনিয়ার ক্লাব ও চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব। এ ম্যাচে পাইওনিয়ারের ক্রিকেটার মোদাচ্ছের ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ৪২ রান করেন। অবশ্য উদ্বোধনী ম্যাচে শহরের কোড়ালিয়া রোডস্থ চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাবের কাছে ২২ রানে হেরে যায় জোড়পুকুর পাড়স্থ পাইওনিয়ার ক্লাবটি।



২৪ এপ্রিল লীগের ২য় ম্যাচে অংশ নেয় আউটার স্টেডিয়াম রোডস্থ চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী ও শহরের রহমতপুর কলোনীর উদয়ন ক্লাব। এ খেলায় চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমীর কাছে ৪৭ রানে হেরে যায় উদয়ন ক্লাব। এ ম্যাচে বাংলাদেশ জাতীয় অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট দলের সহ-অধিনায়ক চাঁদপুরের ধানুয়ার শামিম পাটওয়ারীই চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমীর হয়ে ৮৫ বলে ১১৫ রান করেন। যিনি চাঁদপুর প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ডের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান। আর তার সেঞ্চুরীর কারণেই হয়তো লীগের ৩ ম্যাচের মধ্যে নিয়মিত ক্রিকেট খেলোয়াড় দিয়ে গঠন করা দলটি ১টি মাত্র ম্যাচে জয় পেয়েছে।



২৫ এপ্রিল লীগের ৩য় ম্যাচে অংশ নেয় চাঁদপুর আবাহনী ক্রীড়া চক্র ও ক্রিকেট কোচিং সেন্টার । এ ম্যাচে আবাহনী ক্রীড়া চক্রের কাছে ৫ উইকেটে হেরে যায় সিসিসি। এই ম্যাচের শুরুতেই বড় ধরনের হোঁচট খেতে শুরু করে সিসিসি। দলের বাইরের ক্রিকেটার রাফিই একমাত্র সিসিসিকে লজ্জার হাত থেকে রক্ষা করে তার দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের কারণে। সিসিসি'র হয়ে রাফিই একমাত্র ১০১ বলে ৯৫ রান করেন। আর না হলে এ লীগের সবচেয়ে কম স্কোরিংয়ের দল হিসেবে সিসিসির নাম উঠতো।



২৬ এপ্রিলের ম্যাচে অংশ নেয় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র। এ ম্যাচে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের কাছে ২০ রানে হেরে যায় প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র। অবশ্য এ ম্যচে হেরে যাওয়া প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্রের বোলার ও কর্মকতা সাইফুল ইসলাম ভালো বোলিং উপহার দেন । তিনি দু'স্পেলে ১০ ওভার বল করে ৩টি মেডেন সহ ২৪ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট নেন।



২৭ এপ্রিলের ম্যাচে অংশ নেয় চাঁদপুর ক্রিকেট কোচিং সেন্টার ( সিসিসি ) ও পাইওনিয়ার ক্লাব । এ ম্যাচে পাইওনিয়ার ক্লাব ৬ উইকেটে হেরে গেলেও প্রথমবারের মতো ম্যাচ জয়ের স্বাদ গ্রহণ করে সিসিসি। বর্তমানে এ দলটির কর্মকর্তারা সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন কর্মকর্তা হিসেবে বড় বড় প্রতিষ্ঠানে দায়িত্বে রয়েছেন। তবে ক্লাবের সকল কর্মকর্তার মধ্যে রয়েছে আন্তরিক সম্পর্ক। ক্লাবের যে কোনো ভালো কাজের জন্যে সকলেই একসাথে এগিয়ে আসেন। সকলের সমন্বয়েই এবারের লীগে দলটি অংশ নিয়েছে। এ ম্যাচে পাইওনিয়ারের সাথে সিসিসি'র আমদানিকৃত ক্রিকেটার ঢাকার কলাবাগানের ক্রিকেটার কামরুল তার বোলিং নৈপুণ্যে ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন। পাইওনিয়ারের সাথে তার বোলিং ফিগার ছিলো ৯.৩ ওভার বল করে ৩৭ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট।



২৮ এপ্রিলের ম্যাচে অংশ নেয় চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী ও প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র। অবশ্য ওই ম্যাচ চলাকালে স্টেডিয়াম পাড়ায় শোনা যায় যে, যারা একসময় ক্রিকেট একাডেমীর সাথে কিংবা একাডেমীর সকল কিছুরই সাথে জড়িত ছিলেন ওই সমস্ত ত্যাগী ক্রিকেটারই মিলেমিশে খেলছেন প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্রতে। ওই ম্যাচে প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্রের কাছে ৪ উইকেটে হেরে যায় চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী। ওই ম্যাচে অবশ্য শামিম পাটওয়ারী তেমন ভালো কিছু করতে পারেনি। প্রফেসরপাড়া মাঠে এই লক্ষ্যে নেমেছিলো যে, জয়ী হয়ে মাঠ ছাড়বেই। তারা তাদের সেই লক্ষ্য ঠিকই আদায় করে নিয়েছে।



২৯ এপ্রিলের ম্যাচে অংশ নেয় আবাহনী ক্রীড়া চক্র ও চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব। এ ম্যাচেই ইয়ুথ ক্লাবকে হারিয়ে সুপার ফোরে উঠে আবাহনী ক্রীড়া চক্র। ম্যাচে আবাহনী ক্রীড়া চক্রের বোলাররা সকলেই ভালো বোলিং করেন এবং সবার দখলেই ২টি করে উইকেট যায়। অবশ্য এ ম্যাচে ইয়ুথ ক্লাব হেরে গিয়ে অনেকটা লীগ থেকে ছিটকে পড়ে।



৩০ এপ্রিলের ম্যাচে অংশ নেয় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও উদয়ন ক্লাব। এ ম্যাচে উদয়ন ক্লাবকে ৬ উইকেটে হারিয়ে গ্রুপ পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ লাভ করে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। উদয়ন ক্লাবের ভাড়াকৃত ক্রিকেটার ছিলো শাহরাস্তির ক্রিকেট ক্লাবের খেলোয়াড়রা। দলের অধিনায়ক মিঠু সহ সকল খেলোয়াড়ই চেষ্টা করেছেন উদয়ন ক্লাবকে জয়ী করে তোলার জন্য। ব্যাটিংয়ে মিঠু সহ সকলেই ভালো রান করেন।



১ মে'র ম্যাচে অংশ নেয় আবাহনী ক্রীড়া চক্র ও পাইওনিয়ার ক্লাব। খেলায় আবাহনীর কাছে পাইওনিয়ার ক্লাব হেরে যায়। এ ম্যাচে পাইওনিয়ার লীগ থেকে ছিটকে গেলেও আবাহনী জয়ী হয়ে গ্রুপ পর্যায়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়।



২ মে'র ম্যাচে অংশ নেয় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী। এ ম্যাচে ক্রিকেট একাডেমী হেরে গেলেও দলের অলরাউন্ডার তোফায়েল মাল ব্যাটিং ও বোলিংয়ে দর্শকদের ভালো খেলা উপহার দেন।



৩ মে'র লীগের ম্যাচটি ছিলো খুবই দুঃখজনক। এ ম্যাচেই ঘটে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। এই ম্যাচের দিনটি ছিলো এ বছরের আবহাওয়ার খারাপ দিন। ফণীর কারণে খেলা হবে কি হবে না এ নিয়ে আয়োজকরাও চিন্তিত ছিলেন। যাক খেলার দিন সকালে ১ ঘন্টাব্যাপী বৃষ্টি হওয়ার কারণে আয়োজকরা লীগের ফিকশ্চার অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেন। ওই দিন খেলা ছিলো চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব ও ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের মধ্যে। আয়োজকরা অংশ নেয়া দু'দল সমান সমান ১-১ করে পয়েন্ট পেয়েছে বলে ঘোষণা করেন। এ সময়ই চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকতা ক্রিকেট কোচিং সেন্টার সহ মাঠের কর্মকর্তাদের সাথে অশোভন আচরণ করেন। আর ওই ম্যাচেই ১ পয়েন্ট পেয়ে সুপার ফোরে খেলার সুযোগ অর্জন করে ক্রিকেট কোচিং সেন্টার (সিসিসি)।



৮ মে'র ম্যাচটি ছিলো প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ডের শেষ ম্যাচ। ম্যাচটি ৪ মে হওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন কারণে সেই ম্যাচিটি অনুষ্ঠিত হয়েছে ৮ মে। ওই ম্যাচটিতে অংশ নেয় উদয়ন ক্লাব ও প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র। খেলায় উদয়ন ক্লাব প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্রের কাছে হেরে যায়। আর এই জয়ের ফলেই সুপার ফোরে খেলার সুযোগ ঘটে প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্রের। অবশ্য ওই ম্যাচে প্রফেসরপাড়া ক্লাবের স্থানীয় ক্রিকেটারগণ খুবই ভালো ব্যাটিং করেছেন। দলের কর্মকর্তা ও খেলোয়াড় সাইফুল ইসলাম ব্যাট হাতে ঝড়ো ইনিংস খেলেন। তিনি ৪৯ বলে ৬২ রান করেন। লীগের ৩টি ম্যাচের মধ্যে এই সাইফুল যে দুটি ম্যাচে বোলিং ও ব্যাটিংয়ে ভালো করেছেন সেই দুটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র। সেমি-ফাইনালে কী করবে তারা আবাহনীর সাথে এটাই এখন দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন ক্রীড়ামোদী দর্শকরা।



জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ২০১৯ সালে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগে অংশ নেয়া দলগুলোর খেলোয়াড়রা হলো-



প্রফেসরপাড়া ক্রীড়া চক্র : সাইফুল, সাখওয়াত, রনি, বাবু, জিসান, রাসেল, রকি, হুমায়ন, হাবিব, মামুন, সোহাগ, রাকিব, মোর্শেদ ও ফয়সাল।



শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র : মাসুদ, ফজলু, রবিন, আলাউদ্দিন, রাকিব, রায়হান, শরীফ, কবির, মহসিন , সবুজ ও আবুল।



আবাহনী ক্রীড়া চক্র : সাদ্দাম, হিরা ঢালী, পলাশ, সাদ্দাম হোসেন, বাবু, রিফাত, ইফনুছ খান, ইসহাক, সবুজ, মনির, ইফনুছ মোল্লা, কামরুল, রাকিব ও ফারুক।



ক্রিকেট কোচিং সেন্টার : মেহেদী হাছান, তোফায়েল, কামরুল, রনি ফয়সাল, নোমান, রাফি, ফারুক, বাবু, প্রতীক, সাবি্বর, অমি ও রাসেল।



উদয়ন ক্লাব : মিঠু, হৃদয়, লিজন, মাসুদ, সোহাগ, আল আমিন, আনোয়ার, মুনাফ, ফাহাদ, আল আমিন-২, সাদ্দাম, জাহিদ পাটওয়ারী ও মাহফুজ।



পাইওনিয়ার ক্লাব : তুহিন, সুমন, জামিল, সায়েম, সেন্টু, হৃদয়, জিকু, নিপু, আনোয়ার , তরিকুল, রাহাদ, নিহাল, আরমান, শুভ ও রাবি্ব।



চাঁদপুর ক্রিকেট একাডেমী : তোফায়েল মাল, জিহান, সাকিল, সাকিব, শামিম, সিয়াম, নকিব, আলাউদ্দিন, সাখওয়াত, বাপ্পি, রাবি্ব, টুটুল, শান্ত, নাইম ও সাগর।



চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব : মোরসালিন, আরিফ, মারুফ, লিমন, জমির, রাকিব, নয়ন, সিফাত, অমিত, সাবি্বর, সজিব, সিপন, সোহেল, হাবিব ও শুভ্র।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৮৮২২৬
পুরোন সংখ্যা