চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১৪ মে ২০১৯, ৩১ বৈশাখ ১৪২৬, ৮ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

১৭। স্মরণ রাখিও, ‘দুই গ্রহণকারী’ ফিরিশ্তা তাহার দক্ষিণে ও বামে বসিয়া তাহার কর্ম লিপিবদ্ধ করে;

১৮। মানুষ যে কথাই উচ্চারণ করে তাহার জন্যে তৎপর প্রহরী তাহার নিকটেই রহিয়াছে।


assets/data_files/web

অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা ও খেলোয়াড় ২ বছরের জন্যে নিষিদ্ধ
ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৪ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের প্রথম রাউন্ড শেষ হয়েছে। আর এই প্রথম রাউন্ডেই মাঠে খারাপ আচরণের কারণে এবং ড্রেসিং রুমের উপর হামলার কারণে প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগের টেকনিক্যাল কমিটি, ক্রিকেট উপ-কমিটি ও আম্পায়ার্স এন্ড স্কোরার্স কমিটির নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা সফিউল আলম রাজন ও খেলোয়াড় শুভকে চাঁদপুর স্টেডিয়ামের সকল কর্মকা- ও খেলাধুলায় ২ বছরের জন্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট উপ-কমিটির দায়িত্বপূর্ণ এমন সিদ্ধান্তে জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্যান্য ক্লাব, খেলোয়াড় ও আম্পায়াররা সঠিক রায় পেয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন।



জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ক্রিকেট উপ-কমিটির আয়োজনে চলতি মাসে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচে একটি দুর্ঘটনা ঘটে। গত ৩ মে চাঁদপুর ইয়ুথ ক্লাব ও ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের খেলার দিন ঘূর্ণিঝড় 'ফণী'র কারণে আয়োজকরা লীগের নিয়ম অনুযায়ী কিছু সিদ্ধান্ত নেন। আর তখনই ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা ও এক খেলোয়াড় মাঠের ভিতর অশোভন আচরণ করেন। এ নিয়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার টেকনিক্যাল উপ-কমিটির জরুরি সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৫ মে চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট উপ-কমিটির সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের সভাকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।



সভায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু, কার্যকরী সদস্য অ্যাডঃ মোঃ হেলাল হোসাইন, ক্রিকেট উপ-কমিটির যুগ্ম সম্পাদক সঞ্জয় কর্মকার সুখন, টেকনিক্যাল উপ-কমিটির সদস্য পার্থ প্রতীম দে নিটুল, জেলা আম্পায়ার্স এন্ড স্কোরার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ বিশ্বজিত কর রানা ও ক্রিকেট উপ-কমিটির সাধারণ সম্পাদক শেখ মোতালেব।



সভার আলোচ্যসূচিতে টেকনিক্যাল উপ-কমিটির সদস্যদের মতামত ও আম্পায়ার্স অ্যাসোসিয়েশেনের রিপোর্টের ভিত্তিতে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।



সিদ্ধান্তগুলো তুলে ধরা হলো- প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগ ২০১৯-এর ৩ মের খেলায় ইয়ুথ ক্লাবের সৃষ্ট ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনান্তে ইয়ুথ ক্লাবের প্রাপ্ত ম্যাচ ফি বাজেয়াপ্ত এবং ভবিষ্যতে এহেন ঘটনা যাতে না ঘটে সে বিষয়ে সর্তক করে সংশ্লিষ্ট ক্লাবকে চিঠি প্রদান।



ইয়ুথ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দলের ম্যানেজার হিসেবে সফিউল আলম রাজনের নেতৃত্বে খেলার মাঠে বিভিন্ন কর্মকা- সংঘটিত হবার দায়ে তাকে এবং দলের খেলোয়াড় শুভকে ২ বছরের জন্যে জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজিত সকল প্রকার ক্রিকেট খেলা সম্পর্কিত কর্মকা- থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।



এ ব্যাপারে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট উপ-কমিটির যুগ্ম সম্পাদক সঞ্জয় দাস সুখনের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের এ ধরনের আচরণ মোটেও শোভন নয়। ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা ও খেলোয়াড় যে ধরনের আচরণ করেছে এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আমাদের ক্রিকেট আইনের ১৭-এর ক, খ ও গ ধারায় যেই অপরাধ করেছে ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা ও খেলোয়াড়, তাদের শাস্তির প্রয়োজন রয়েছে। ৩ মে তাদের সাথে ক্রিকেট কোচিংয়ের খেলার কথা ছিলো। ইয়ুথের কর্মকর্তারা ক্রিকেট কোচিংয়ের ড্রেসিং রুমে গিয়ে যে আচরণ করেছে তা সত্যিই দুঃখজনক।



জেলা আম্পায়ার্স এন্ড স্কোরার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ বিশ্বজিত কর রানার সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, মাঠের মধ্যে যে ধরনের ঘটনা ঘটেছে এটা আমরা কখনও আশা করিনি। উদয়ন ক্লাবও এ ধরনের ঘটনা করেছে। মাঠে এ ধরনের ঘটনায় যে কোনো ক্লাবেরই শাস্তি হওয়া উচিত। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে খেলা চালানো খুবই কঠিন হয়ে পড়বে।



এ ব্যাপারে ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তা সফিউল আলম রাজনের সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি বলেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে আমাদেরকে শোকজ করতে পারতো। কিন্তু এ ব্যাপারে কেউই আমাকে কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করেনি। উনারা এককভাবে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা খুবই দুঃখজনক। আমাদের ক্লাবটি দীর্ঘদিন ধরেই ক্রিকেট খেলে আসছে। ঘটনার দিন আম্পায়াররা তো খেলার জন্যে ক্রিকেট কোচিং ও ইয়ুথ ক্লাবকে দুপুরের পর আমন্ত্রণ জানায়। কিন্তু ইয়ুথ ক্লাব খেলতে রাজি হলেও ক্রিকেট কোচিং খেলতে রাজি ছিলো না। অথচ কর্তৃপক্ষ তাদেরকে পয়েন্ট দিয়ে সুপার ফোরে খেলার সুযোগ করে দিলো। আর আমাদেরকে শোকজ না করে নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিলো।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৩৮৯৫০
পুরোন সংখ্যা