চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২৪ মার্চ ২০২০, ১০ চৈত্র ১৪২৬, ২৮ রজব ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ছেলেটির করোনা ভাইরাস নেগেটিভ পাওয়া গেছে। অর্থাৎ সে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী নয়। তথ্য সূত্র: আরএমও ডাঃ সুজাউদ্দৌলা রুবেল। || বৈদ্যনাথ সাহা ওরফে সনু সাহা করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যায় নি : সিভিল সার্জন
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৭-সূরা মুল্ক


৩০ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৪। অতঃপর তুমি বারবার দৃষ্টি ফিরাও, সেই দৃষ্টি ব্যর্থ ও ক্লান্ত হইয়া তোমার দিকে ফিরিয়া আসিবে।


৫। আমি নিকটবর্তী আকাশকে সুশোভিত করিয়াছি প্রদীপমালা দ্বারা এবং উহাদিগকে করিয়াছি শয়তানের প্রতি নিক্ষেপের উপকরণ এবং উহাদের জন্য প্রস্তুত রাখিয়াছি জ্বলন্ত অগি্নর শাস্তি।


 


 


বই পড়তে যে ভালোবাসে তার শত্রু কম।


-চালর্স ল্যাম্ব।


 


 


রাসূলুল্লাহ (দঃ) বলেছেন, নামাজ আমার নয়নের মণি।


 


 


ফটো গ্যালারি
৩২ বসন্তে পা রাখলেন তামিম ইকবাল
শামছুজ্জামান ডলার
২৪ মার্চ, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


তামিম ইকবাল খান। শুক্রবার ছিল তার ৩১তম জন্মদিন। তিনি বত্রিশ বসন্তে পা রাখলেন। ১৯৮৯ সালের ২০ মার্চ চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী খান পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তামিম ইকবাল। চট্টগ্রামের কাজীর দেউরির খান পরিবারের সন্তান তামিম ইকবালের বাবা প্রয়াত ইকবাল খান। চাচা বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। বড় ভাই নাফিস ইকবালও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার। বংশগতভাবেই তাদের রক্তে মিশে আছে ক্রিকেট। বাংলাদেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও বর্তমান ওডিআই অধিনায়ক। ২০০৭ সালে তামিম ইকবালের একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় এবং একই বছর প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলেন। তামিম ইকবাল ২০১০ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সহ-অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।



আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই দেশসেরা উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি রয়েছে। প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ছয় হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন। সেই সাথে শ্রীলঙ্কার প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে সনাথ জয়াসুরিয়ার করা ২ হাজার ৫১৪ রানের রেকর্ড ভেঙে একই ভেন্যুতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডের জন্ম দিয়ে নিজের নাম লেখান তামিম ইকবাল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বর্তমানে তামিম ইকবালের রান (টেস্ট-৪৪০৫, ওয়ানডে-৭২০২, টি-টোয়েন্টি-১৭৫৮) ১৩ হাজার ৩৬৫।



ক্রিকেটার :



২০১১ সালে তামিম ইকবাল উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালামন্যাক-এ বর্ষসেরা ৪ ক্রিকেটারের মধ্যে অন্যতম ও দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে উইজডেনে বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটার নির্বাচিত হন। তামিম ইকবাল একক বাংলাদেশী হিসেবে সীমিত ওভারের সংস্করণে সর্বোচ্চ রানের মালিক এবং একমাত্র বাংলাদেশী হিসেবে ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই সেঞ্চুরি করার গৌরব অর্জন করেন। এছাড?াও তামিম ইকবাল একমাত্র বাংলাদেশী হিসেবে ক্রিকেটের তিন সংস্করণ মিলিয়ে ২০টিরও অধিক সেঞ্চুরির অধিকারী।



বর্তমানে তিনি টেস্ট, ওডিআই ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসেবে সর্বোচ্চ রানের মালিক। তিনি ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে তার ২০০তম একদিনের ক্রিকেট ম্যাচ খেলেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে তামিম ইকবাল প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ২০১৯-২০ বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ টুর্নামেন্টে ইস্ট জোনের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অপরাজিত ৩৩৪ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন।



ক্রিকেট জীবন :



তামিম ইকবালের উচ্চতা ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি। ২০০৯ মৌসুমের জুলাই-আগস্টে বাংলাদেশের ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে তামিম ইকবাল তার টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম শতক হাঁকান। খেলোয়াড় ও ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে বিবাদের কারণে ক্যারিবীয় দলটি অবশ্য খানিকটা দুর্বল ছিল। ৭ জন খেলোয়াড়ের টেস্ট অভিষেক হয় এ ম্যাচে। তামিমের ব্যাটিং বাংলাদেশকে এক ঐতিহাসিক বিজয় এনে দেয়। এটি ছিল ওয়েস্টইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট বিজয় এবং দেশের বাইরের মাটিতেও প্রথম টেস্ট জয়। তামিম ১২৮ রানে তার ইনিংস শেষ করেন এবং অসাধারণ ক্রীড়াশৈলীর কারণে ম্যান অব দ্যা ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন। এ টেস্টের প্রথম ইনিংসেও তিনি ৩৩ রান করেছিলেন।



২০১৮ সালের ডিসেম্বরে উইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাট হাতে নেমে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তামিম ইকবাল। প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক শতক আসে আয়ারল্যান্ড দলের বিপক্ষে। ভারত, শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ত্রি-দেশীয় সিরিজের আগে বাংলাদেশের সে সময়কার প্রধান কোচ জেমি সিডন্স তামিম সম্পর্কে বলেন, "তামিম ইকবাল একজন আন্তর্জাতিকমানের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান"।



২৫শে জানুয়ারি তামিম, জুনায়েদ সিদ্দিকীকে সঙ্গী করে ভারতের বিপক্ষে ১৫১ রানের রেকর্ড জুটি গড়েন। ২০১০ সালের ১৩ মার্চ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ৮৬ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলে তামিম ইকবাল ১ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন। শুধুমাত্র শচীন তেন্ডুলকার এবং মোহাম্মদ আশরাফুল তারচেয়েও কম বয়সে এ মাইলফলক স্পর্শ করতে পেরেছিলেন। এই টেস্টেরই দ্বিতীয় ইনিংসে এবং পরের টেস্টের প্রথম ইনিংসে তামিম পরপর দুটো সেঞ্চুরি করেন (১০৩ ও ১০৮)। ২০১২ সালে এশিয়া কাপে তামিম ইকবাল ৪ ম্যাচেই হাফসেঞ্চুরি করেন এবং বাংলাদেশ দ্বি-পাক্ষিক সিরিজের বাইরে দ্বিতীয়বারের মতো কোনো ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠে।



পাকিস্তান সিরিজ, ২০১৫ : ২০১৫ সালের ২ মে সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্টের ২য় ইনিংসে ইমরুল কায়েসকে (১৫০) সঙ্গে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৩১২ রানের জুটি গড়েন তামিম ইকবাল। বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি। এরফলে তারা টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৯৬০ সালে কলিন কাউড্রে ও জিওফ পুলারের গড়া ২৯০ রানের রেকর্ড ভঙ্গের মাধ্যমে নতুন রেকর্ড গড়েন। এই টেস্টে তামিম ইকবাল ২০৬ রান করেন, যা তার ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ টেস্ট শতরান। এ রান সংগ্রহের ফলে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের গড়া সর্বোচ্চ ২০০ রানের রেকর্ড ভঙ্গ করে নিজের করে নেন। যদিও পরবর্তীতে মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসান তার ব্যক্তিগত সংগ্রহকে টপকে যান।



ভারত সিরিজ, ২০১৫ : ২০১৫ সালের ১০-১৪ জুন, সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে তামিম ইকবাল বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হন। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বৃষ্টিবিঘি্নত একমাত্র টেস্টের প্রথম ইনিংসে তিনি এ কীর্তিগাঁথা রচনা করেন। এ টেস্টে তামিম ইকবাল ১৫১ রানের এক ঝলমলে ইনিংস খেলেন।



ক্রিকেট বিশ্বকাপ : তামিম ইকবাল ২০০৭ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট বাংলাদেশ স্কোয়াডের অন্যতম সদস্য ছিলেন এবং ভারতের বিপক্ষে প্রথম খেলায় ৫৩ বলে ৫১ রান করেন।



২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ : ২০১৫ সালের ৪ জানুয়ারি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে। চূড়ান্ত স্কোয়াডে তামিম ইকবাল অন্যতম সদস্য হিসেবে জায়গা করে নেন । ২০১৫ সালের ৫ মার্চ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের চতুর্থ খেলায় তিনি ৯৫ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেন। প্রথমে মাহমুদুল্লাহকে সাথে নিয়ে, পরবর্তীতে সাকিব, মুশফিকের অনন্য নৈপুণ্যে এই ম্যাচে বাংলাদেশ দল বিশাল রান তাড়া করে ৬ উইকেটের গুরুত্বপূর্ণ জয় পায়। এর ফলে তখন পর্যন্ত বাংলাদেশ সফলভাবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে বিজয়ী হয়।



উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার : ২০১১ সালে তামিম ইকবাল উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাক ম্যাগাজিন কর্তৃক বছরের সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন হিসেবে নির্বাচিত হন। গ্রায়েম সোয়ান ও বীরেন্দ্র শেবাগকে পেছনে ফেলে তামিম এ খেতাব অর্জন করেন।



জাতীয় দলের অধিনায়ক : চলতি বছরের ৮ মার্চ মাশরাফি বিন মর্তুজা বাংলাদেশের ওডিআই অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত জাতীয় দলের দায়িত্বভার তুলে দেন তামিম ইকবালের কাঁধে। গত শ্রীলঙ্কা সফরেও ওডিআই দলের নেতৃত্ব দেন তিনি।



তামিমের বিয়ে ও ভালোবাসার গল্প : বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অত্যন্ত জনপ্রিয় তারকা ক্রিকেটার ওপেনার তামিম ইববাল খান মাত্র ১৫ বছর বয়সে প্রেমে পড়েছিলেন আয়েশা সিদ্দিকার। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আয়শা বাংলাদেশের অন্যতম ডাকসাইটে সুন্দরী। তিনি বাংলাদেশের এক জনপ্রিয় তারকা ক্রিকেটারের স্ত্রী।



এক বন্ধুর মাধ্যমেই প্রেমের প্রস্তাব দেন তামিম। আয়েশা যদিও তামিম ইকবাল নামে ওই ক্রিকেটারকে প্রথমে পাত্তা দেননি। বয়সে ছোট ছিলেন, পরিবারের কেউ যদি কিছু বলে, তাই ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তামিমকে। পরবর্তীতে যদিও আয়েশা তামিমের প্রস্তাবে সম্মতি দেন। চুটিয়ে প্রেম করার সময় খুব কম ছিল না তাদের। কিন্তু বেশিটাই ছিল দীর্ঘ দূরত্বে! এদিকে আয়েশা ক্রিকেটের তেমন ভক্ত নন, তিনি পছন্দ করেন ফুটবল। পরে অবশ্য ক্রিকেটই হয়ে যায় তার পছন্দের খেলা। মালয়েশিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক স্তরের পড?াশোনা শেষ করেন আয়েশা। তামিম ইকবাল ও আয়েশা সিদ্দিকা দম্পতির ঘরে এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তান রয়েছে।



একটু প্রেমের গল্প : আয়েশা সিদ্দিকা তখন চট্টগ্রাম সানশাইন গ্রামার স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী, এক অনুষ্ঠানে তাঁকে দেখেছিলেন একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের 'এ' লেভেলের ছাত্র তামিম ইকবাল। দেখেই কুপোকাত, যাকে বলে 'লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট'। এক বান্ধবীকে দিয়ে আয়শার কাছে মনের কথা, ভালোবাসার কথা বলে পাঠালেন তামিম। শুনেই যাকে বলে পত্রপাঠ বিদায়।



আয়েশা বলেছিলেন, 'লাভ? আই হেইট দ্য ওয়ার্ডলাভ!' এ রকম প্রত্যাখ্যানের পর ভালোবাসা যে আরও বাড়ে, এটা গুণীজনেরা বলেন। তামিমেরও তা-ই হলো, লেগে রইলেন। ফোন করে, স্কুলের আঙিনায় নানাভাবে বুঝিয়ে তুলে ধরতে চেষ্টা করলেন হৃদয়ের আকুতি। ফলাফল শূন্য। সব চেষ্টা বিফলে যাওয়ার পর একদিন বললাম, আমরা অন্তত বন্ধু তো হতে পারি? এই প্রস্তাবে কাজ হলো। এ রকম নির্দোষ একটি প্রস্তাবে রাজি হয়েই বেচারি ফেঁসে গেল।



তামিমের বিয়ে : বাংলাদেশ ক্রিকেটের জনপ্রিয় তারকা আর মারকুটে ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ২০১৩ সালের ২১ জুন তার নিজের শহর চট্টগ্রামে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। কনে তামিমের দীর্ঘ দিনের প্রেমিকা আয়েশা সিদ্দিকা। আয়েশা আগ্রাবাদের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইয়াসিন ও মমতাজ বেগমের কনিষ্ঠ কন্যা।



লেখক : ক্রীড়া সংগঠক ও সাংবাদিক, মতলব উত্তর, চাঁদপুর



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৭৭৮০
পুরোন সংখ্যা