রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩  |   ৩১ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   হাইমচরে শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন, দামে অসন্তুষ্ট কৃষক : সবজি ক্ষেতে সবুজ হাসি থাকলেও কৃষকের মুখ ম্লান
  •   অশুভ শক্তি শক্তিশালী হলেও জয়ি হতে পারবে না : শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি

প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:২৩

কোটি টাকার দানকৃত সম্পদ পেলো হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ

কামরুজ্জামান টুটুল
কোটি টাকার দানকৃত সম্পদ পেলো হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ

কোটি টাকার সম্পদ দানে পেলো হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ। রোববার কলেজে নামে দলিলমূলে রেজিষ্ট্রি বুঝিয়ে দেন এর দাতাগণ। উক্ত ১৯.৩৩ শতাংশ জমি রোববার থেকে কাজপত্রে মালিকানা হলেও এর দখলে বহু আগে ডিগ্রি কলেজ ছিলো। এ নিয়ে একই স্থানে একত্রে প্রায় ৭ একর জমির স্থায়ী মালিকানা পেলো ঐতিহাসিক হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন রান্ধুনীমুড়া গ্রামের মরহুম আলহাজ্ব জব্বর আলী ওরফে আব্দুল জব্বরের ছেলে আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল মান্নান ৯.৬৭ শতাংশ এবং মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল মতিনের ছেলে মোঃ সারফারাজ নেওয়াজ খান তার বাবা ও পরিবারের পক্ষে ৯.৬৬ শতাংশ ভূমি হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজকে নিঃশর্তভাবে দান করেন। কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ মোঃ মাসুদ আহাম্মদের নামে এই ভূমি রেজিস্ট্রি করা হয়।

জানা যায়, কলেজ প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ উল্লেখিত ১৯.৩৩ শতাংশ ভূশি ভোগ দখল করে আসছে। কলেজ ক্যাম্পাসে থাকা উক্ত সম্পত্তি তৎকালীন সময়ে আলহাজ্ব জব্বর আলী ওরফে আব্দুল জব্বর কলেজকে এই সম্পত্তি দান করেন। কিন্তু পরবর্তী সময়ে এবং আব্দুল জব্বার মৃত্যুবরণ করায় কলেজের নামে রেজিস্ট্রি সম্পাদন করা হয়নি। দীর্ঘ ৫২ বছর পর বিষয়টি জানতে পেরে বর্তমান অধ্যক্ষ মোঃ মাসুদ আহাম্মদ কলেজের নামের উল্লেখিত ভূমি রেজিস্ট্রি করার উদ্যোগ নেন।

এরপর কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও জেলা প্রশাসনের নির্দেশনাক্রমে রেজিষ্ট্রি কার্য সম্পন্ন করা হয়।

রেজিস্টি সম্পাদন শেষে রোববার কলেজ শিক্ষক মিলনাতয়নে দাতা সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান ও মোঃ সারফারাজ নেওয়াজ খানকে ফুলেল শুভেচ্ছা, অভিনন্দন পত্র, সম্মামনা ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও কলেজের দাতা সদস্য, প্রতিষ্ঠাতা সদস্যসহ কলেজের সাথে জড়িত প্রয়াত সকল সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত ও জীবিতদের মঙ্গল ও উত্তোরত্তোর সাফল্য কামনা করে এ সময় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন কলেজ সহকারী অধ্যাপক আনম মফিজুর রহমান।

রেজিস্ট্রি কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন, কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন রতন, সালাউদ্দিন ফারুক মামুন, মোঃ শাহজামাল, গোলাম ফারুক মুরাদ, এসএম আক্তার হোসেন, সহকারী অধ্যাপক নাজমা আক্তার ও তৌহিদা আকতার। এছাড়াও সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন উপাধ্যক্ষ মোঃ আনোয়ার উল্যাহ্, সহকারী অধ্যাপক মোঃ সেলিম, মোজাম্মেল হোসেন, শরীফুল ইসলাম ভূঁইয়া, কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মোঃ মাকছুদুর রহমান ও আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়