চাঁদপুর, সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৬ জিলকদ ১৪৪৩  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   রোটারী জেলায় চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের অভাবনীয় সাফল্য অর্জন
  •   বৃহৎ র‌্যালি আল-আমিন একাডেমি ও চেয়ারম্যান সেলিম খানের
  •   পদ্মা সেতুর থিম সং-এর গীতিকার কবির বকুলকে শিক্ষামন্ত্রীর অভিনন্দন
  •   হাইমচরে পানিতে ডুবে শিশুর করুণ মৃত্যু
  •   শনিবার চাঁদপুরে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত

প্রকাশ : ০২ আগস্ট ২০২১, ২৩:২৪

পৌরসভার জরুরি সেবায় ৬দিনে ৮ শতাধিক পরিবারকে খাদ্য ও ১০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান

গোলাম মোস্তফা
পৌরসভার জরুরি সেবায় ৬দিনে ৮ শতাধিক পরিবারকে খাদ্য ও ১০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান

বৈশ্বিক মহামারী করোনা বিস্তার রোধকল্পে এবং পৌরবাসীকে সার্বিক সহযোগিতার জন্যে মেয়র অ্যাডঃ মোঃ জিল্লুর রহমান জুয়েলের সহযোগিতায় পৌর মনিটরিং সেল গত ৬দিনে প্রায় ৮ শতাধিক পৌর নাগরিককে খাদ্য সহায়তা, অক্সিজেন, মেডিসিন, ডাক্তার ও পরিবহন সেবা দিয়েছে। যা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

জানা যায়, চলমান লক ডাউন বাস্তবায়নে এবং করোনা বিস্তার রোধকল্পে পৌর নাগরিকদেরকে খাদ্য সহায়তা, অক্সিজেন, ঔষধ, পরিবহন, ডাক্তারের চিকিৎসা সেবা থেকে শুরু করে সকল সেবা প্রদানের লক্ষ্যে পৌর মেয়র অ্যাডঃ মোঃ জিল্লুর রহমান জুয়েলের সহযোগিতায় গত ২৭ জুলাই গঠন করা হয় পৌর কন্ট্রোল রুম। যা জরুরি সেবার আওতায় জনস্বার্থে ২৪ ঘন্টা চালু রয়েছে। এমনকি মনিটরিং সেলের আওতায় তালিকাভুক্ত করে জনগণকে সেবা দেওয়ার জন্য পৌরসভার ১৫ টি ওয়ার্ডে ২'শ স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে। যারা গ্রুপ ভিওিক এবং মনিটরিং সেলের নির্দেশনায় জনস্বার্থে সার্বক্ষণিক মাঠে রয়েছে।

এদিকে পৌরসভা মনিটরিং সেলের সদস্য সচিব ও চাঁদপুর টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ মেহেদী হাসানের বলেন, পৌর নাগরিকদের সেবায় ২৪ ঘন্টা কন্ট্রোল রুম খোলা রয়েছে। পৌর মেয়র মহোদয়ের নির্দেশে প্রতি ওয়ার্ডে ২টি অটোরিকশা এবং ২টি মটর রিক্সা সার্বক্ষণিক রয়েছে। পৌর নাগরিকদের প্রয়োজনীয় পন্য ও মেডিসিন সরবরাহের জন্য রয়েছে ৬টি বাইক। এক কথায় চলমান লক ডাউন বাস্তবায়নে এবং করোনা বিস্তার রোধকল্পে পৌরবাসীকে ঘরে থাকুন, আসুন করোনা বিস্তার রোধকল্পে চলমান লক ডাউন বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে চাঁদপুর পৌরসভা।

কন্ট্রোল রুমের সদস্য সচিব মোঃ মেহেদী হাসান জানান, গত ৬ দিনে পৌর মনিটরিং সেলের মাধ্যমে ৬৩৪ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা, করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ২৫ জন রোগীকে অক্সিজেন সেবা। ১৪৭ টি পরিবারকে জরুরি প্রয়োজনে পরিবহন সেবাসহ প্রায় ৮ শতাধিক পরিবারকে গত ৬ দিনে উল্লেখিত সেবা দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, শুধু উল্লেখিত সেবাই নয়, আমরা প্রতি মুহূর্তে মুহূর্তে পৌরবাসীর নানাবিধ সমস্যার সমাধানে সন্মুখীন হতে হচ্ছে। পরিস্থিতি অপরিবর্তিত থাকায় এবং প্রতিনিয়ত আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় কঠিন এক পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হচ্ছে। তিনি পৌরবাসীরকে ঘরে থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, আপনাদের পাশে পৌর পিতা অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল রয়েছে। তিনি সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন। আপনারা সচেতন ও সর্তক হয়ে এ পরিস্থিতি থেকে উত্তোরনে কাজ সহযোগিতা করুন।

এছাড়াও পৌরসভার মনিটরিং সেলের সদস্যরা ও কিউআরসির সদস্যরা যৌথভাবে সকাল থেকে সড়কে, বিভিন্ন এলাকায়, শহরের বিভিন্ন মোড়ে মানুষকে মাইকিং করে জনসচেতন করেন। একই ভাবে পৌর পরিষদের সকল কাউন্সিলরগনও চলমান লক ডাউন বাস্তবায়নে মাঠে রয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়