চাঁদপুর, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩  |   ৩৩ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   অবৈধ দখলদারের কারণে বন্ধ রয়েছে বাবুরহাট জেলা পরিষদ মার্কেট নির্মাণ
  •   ভালোমানের সরঞ্জাম ভালো খেলাকে উৎসাহিত করে : শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি
  •   পদ্মা সেতু ভ্রমণে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালো কচুয়ার রিয়াদ
  •   শাহরাস্তিতে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক আটক
  •   চাঁদপুরে ১ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ১০ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশ : ০৪ মে ২০২২, ১২:৩৪

বাজারে সয়াবিন তেলের তীব্র সংকট

অনলাইন ডেস্ক
বাজারে সয়াবিন তেলের তীব্র সংকট

ঈদের আগের মধ্যরাত থেকে সারাদেশে মুদি দোকানগুলোতে চলছে জমজমাট বেচা কেনা। ক্রেতারা আসছেন, ঈদের বাজার করছেন। ক্রেতাদের কেউ এসে কিনছেন সেমাই, চিনি, দুধ, ঘি, মসলা। চাহিদা অনুযায়ী সবই পেয়ে যাচ্ছেন তারা। কিন্তু যখনই চাইছেন সয়াবিন তেল তখনই বিক্রেতার মুখ হয়ে যাচ্ছে গোমড়া স্পট জানিয়ে দিচ্ছেন তেল নেই।

শুধু বিপণীবাগবাজার নয়, পুরো দেশ জুড়েই ঈদের আগের মধ্যরাতে ঈদবাজারের অন্যতম উপকরণ সয়াবিন তেল হন্যে হয়ে খুঁজছেন ক্রেতারা। কিন্তু কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না সয়াবিন তেল। ঈদের আগের রাতে সয়াবিন তেলের জন্য সৃষ্টি হয়েছে ক্রেতাদের হাহাকার।

রাজধানীর অন্যতম বড় বাজার মৌলভীবাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেশিরভাগ দোকানেই নেই সয়াবিন তেল। সেখানকার ব্যবসায়ীরা বলছেন, ডিলাররা কয়েকদিন ধরে অনিয়মিতভাবে তেল দিচ্ছেন। তাই হাতেগোনা দোকানে তেল মজুদ আছে। যাদের কাছে আছে তারাও দাম বেশি রাখছেন। পাশাপাশি রিটেইল চেইন সপ ‘স্বপ্ন’র আরমানিটোলা ব্রাঞ্চে গিয়ে দেশি কোন সয়াবিন তেলের বোতল পাওয়া যায়নি। তারা জানায়, ৩দিন ধরেই তেল আসছে না তাদের শাখায়।

ঈদের আগের রাতে রাজধানীর হাতিরপুল বাজারে ঈদের বাজার করতে এসেছেন বেসরকারি চাকরিজীবী ফরহাদ হোসেন। তিনি সব বাজার শেষে সয়াবিন তেল কিনতে গিয়ে পড়েন বিপাকে। ৭টি খুচরা দোকানে গিয়েও তিনি কোন কোম্পানির সয়াবিন তেল পাননি। ঈদের দিন রান্নার প্রধান উপকরণ তেল ছাড়া কিভাবে রান্না হবে? এই ভেবেই তার মাথায় হাত।

ফরহাদ হোসেন বলেন, ঈদের আগের রাতে কোন দোকানেই সয়াবিন তেল খুঁজে পেলাম না। দোকানিরা বলছে সব আছে ভাই, শুধু সয়াবিন তেল নেই। আমার মত এমন অনেক ক্রেতাই এসে সয়াবিন তেল খুঁজছেন দোকানে, কিন্তু কেউ পাচ্ছেন না। কাল ঈদ বাসায় রান্না তো করতে হবেই, তাই বাধ্য হয়ে সরিষার তেল কিনলাম।

রাজধানীর নিকেতন এলাকার বাসিন্দা মোর্শেদুল ইসলাম মহাখালী কাঁচাবাজারে সয়াবিন তেল খুঁজতে এসেছেন কিন্তু সেখানেও তিনি পাননি তেল। মোর্শেদুল ইসলাম বলেন, সুপারশপ স্বপ্ন, ডেইলি শপের বেশ কয়টি আউটলেট ঘুরেও তেল পাইনি। এছাড়া কাঁচাবাজার, স্থানীয় বেশ কয়েকটি মুদি দোকানেও গিয়েছি কোথাও তেল পেলাম না। দোকানে দোকানে ক্রেতারা হন্যে হয়ে খুঁজছেন সয়াবিন তেল।

ঈদের আগ রাতে রাজধানীর বেশ কয়টি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সয়াবিন তেল বাজারে নেই বললেই চলে। বলতে গেলে সয়াবিন তেল অমাবস্যার চাঁদ হয়ে গেছে। দুই একটি দোকানে অল্প সংখ্যক সয়াবিন তেলের বোতল দেখা গেলেও তা বিক্রি হচ্ছে বেশি দামে। এই নিয়ে ক্ষোভও প্রকাশ করছেন ক্রেতারা।

তবে ভিন্ন কথা শোনালেন বিক্রেতারা। কারওয়ান বাজারের এক দোকানের মালিক দেলোয়ার মিয়া এ বিষয়ে বলেন, তেলের সংকট গত এক সপ্তাহ ধরে বেশি সৃষ্টি হয়েছে। সরবরাহকারীরা মাল দিচ্ছেন না আবার পাইকারি মূল্যও বাড়িয়ে দিয়েছেন। এছাড়া ছোট ছোট দোকানিরা যে সব ডিলারের কাছ থেকে মাল আনেন সেখানেও মাল পাচ্ছেন না তারা। সব মিলিয়ে তেলের তীব্র সংকট সৃষ্টি হয়েছে বাজারে।

রাজধানীর মিরপুর ১০ নম্বরের পর্বতা সেনপাড়া এলাকার মা জেনারেল স্টোরের মালিক আহসান হাবীব বলেন, ক্রেতারা সয়াবিন তেল কিনতে এসে না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন। কোম্পানিতে তেলের অর্ডার দিয়ে রেখেছি কিন্তু তারা মাল সরবরাহ করছে না। আজ বিকেল থেকে প্রচুর কাস্টমার আমার দোকানে সয়াবিন তেল কিনতে এসে ফেরত গেছেন। ডিলারের কাছে গিয়েও আমরা তেল পাচ্ছি না, যে কারণে কাস্টমাররাও তেল কিনতে পারছেন না।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়