চাঁদপুর, শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মহররম ১৪৪৪  |   ৩২ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   উদাসীনতা আর কাকে বলে!
  •   ইবাদত ও খেলাফতের মধ্যেই মুসলমানদের শ্রেষ্ঠত্ব নিহিত
  •   আগামী প্রজন্মকে নির্মাণে এ ধরনের অনুষ্ঠানের কোনো বিকল্প নেই
  •   পীর বাদশা মিয়া রোডে ড্রেন ও সড়ক নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করলেন মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল
  •   এলজিইডি চাঁদপুরের সাড়ে ১০ হাজার তালগাছের বীজ রোপণ

প্রকাশ : ২৭ জুন ২০২২, ০০:০০

চাঁদপুরের খ্যাতিমান তিন কলেজের শিক্ষকদের সাথে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মতবিনিময়

চাঁদপুরের খ্যাতিমান তিন কলেজের শিক্ষকদের সাথে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মতবিনিময়
চাঁদপুর কণ্ঠ রিপোর্ট ॥

মেঘনাপাড়ের বাতিঘর বলে খ্যাত চাঁদপুর সরকারি কলেজের কনফারেন্স কক্ষে ২৫ জুন শনিবার চাঁদপুরের ঐতিহ্যবাহী তিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুরানবাজার ডিগ্রি কলেজ, চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজ এবং চাঁদপুর সরকারি কলেজের শিক্ষকবৃন্দের সাথে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মশিউর রহমানের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশের সভাপ্রধানে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি।

চাঁদপুর সরকারি কলেজের পদার্থবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বাহারের সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আরবি ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আল-আমিন। পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন পদার্থবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক গোপাল কৃষ্ণ ভৌমিক। ২০০৯ সাল থেকে চাঁদপুর সরকারি কলেজের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ এডুকেশন ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টে (সিইডিপি) চাঁদপুর সরকারি কলেজের কার্যক্রমের উপর পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন করেন কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কিউএম হাসান শাহরিয়ার। এছাড়া পুরানবাজার ডিগ্রি কলেজের উপর একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শিত হয়। চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ আবুল খায়ের খান তাঁর কলেজের উন্নয়নমূলক কাজের বিবরণ এবং চলমান কার্যক্রম সম্পর্কে সভায় আলোকপাত করেন।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ আবুল খায়ের সরকার ও পুরানবাজার কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মশিউর রহমান চাঁদপুরের তিন কলেজের শিক্ষকবৃন্দের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করেন।

সভাপ্রধানের বক্তব্যে প্রফেসর অসিত বরণ দাশ বলেন, আজ চাঁদপুর সরকারি কলেজ তথা চাঁদপুরবাসীর আনন্দের দিন। আজ ২৫ জুন আমাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন হয়েছে। এটা আমাদের গর্বের বিষয়। আজ আমাদের অহঙ্কারের দিন, বিশ্ববাসীর কাছে আমাদের সক্ষমতা জানানোর দিন। সে দিনই শিক্ষা পরিবারের অভিভাবক, আমাদের চাঁদপুর সরকারি কলেজ যার সংস্পর্শে ধন্য, যিনি চাঁদপুর সরকারি কলেজকে মায়া-মমতার বন্ধনে আগলে রেখেছেন, আমাদের প্রিয় শিক্ষামন্ত্রী আমাদের মাঝে উপস্থিত। একই সাথে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য উপস্থিত থেকে আমাদের কৃতার্থ করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। বাংলাদেশের সামনে শিক্ষায় যে চ্যালেঞ্জগুলো রয়েছে, চাঁদপুরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমকে কার্যকর করার জন্যে যথাযথ ভূমিকা পালন করবে, এ প্রতিশ্রুতি আমি দিচ্ছি। দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে চাঁদপুর সরকারি কলেজের অগ্রযাত্রা আরো বেগবান হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মশিউর রহমান বলেন, সিইডিপি প্রজেক্টে যে এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে, তা অত্যন্ত স্বচ্ছতার সাথে ব্যবহার করা হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কল্যাণে অচিরেই আমরা সিইডিপি-২ নামে ২য় প্রজেক্ট শুরু করতে যাচ্ছি। যেখানে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, গবেষণা, বিদেশে উচ্চতর ডিগ্রি এবং জার্নালে লেখা প্রকাশ প্রভৃতি ক্ষেত্রে বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই শিক্ষকদেরও প্রস্তুত থাকতে হবে। শিক্ষার্থীদের দক্ষ মানব সম্পদ তৈরি করতে হলে অবশ্যই শিক্ষকদেরও দক্ষতার পরিচয় দিতে হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আজ ২৫ জুন আমাদের অত্যন্ত আনন্দের দিন। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে, স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ বাস্তবে রূপ নিয়েছে। ইনশাআল্লাহ্ বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে। আনন্দঘন এই দিনে চাঁদপুরের তিনটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের মাঝে নিজেকে দেখতে পেয়ে আমার খুব ভাল লাগছে। আমাদের এই সময়ে গত সাড়ে তিন বছরে শিক্ষাক্ষেত্রে আমরা অনেক এগিয়েছি। আমরা চেয়েছি কলেজ পর্যায়ে শিক্ষকরা যেন জার্নাল প্রকাশ করে। আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে, চাঁদপুর সরকারি কলেজসহ অনেকগুলো কলেজই এখন নিয়মিতভাবে আন্তর্জাতিক মানের গবেষণা জার্নাল প্রকাশ করছে। এই জার্নালগুলোর মান অনেক উন্নত এবং সেখানে মৌলিক গবেষণা হচ্ছে। যেমনটি আমরা চেয়েছি, ঠিক তেমনটি আমরা পেয়েছি। শিক্ষার মানোন্নয়নে গবেষণার বিকল্প নেই। দক্ষ জনশক্তি ও দক্ষ জনসম্পদ তৈরির চেষ্টায় চাঁদপুরের তিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অগ্রণী ভূমিকা পালন করে চলছে।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি চাঁদপুর সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে পৌঁছলে অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশ, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ আবুল খায়ের সরকার এবং শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুল হাছান তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। কলেজ ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্প-স্তবক অর্পণ করেন।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়