শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২  |   ২১ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   বিজয়ের মাস ডিসেম্বর শুরু
  •   হাজীগঞ্জের কিউসি টাওয়ারে আগুন :  আহত ১০ 
  •   ৪৫তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, শূন্যপদ ২৩০৯
  •   করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়ার সুপারিশ
  •   চাঁদপুর শহরে বিদ্যুৎষ্পৃষ্টে এক যুবকের শরীর জ্বলসে গেছে

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫২

প্রায় দেড় বছর পর আজ বাজবে ক্লাসের ঘণ্টা

শিক্ষার্থীদের বরণ করতে প্রস্তুত জেলার সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

রাসেল হাসান
প্রায় দেড় বছর পর আজ বাজবে ক্লাসের ঘণ্টা

আজকের দিনটির জন্যই অপেক্ষায় ছিলো লাখো শিক্ষার্থী। যে শিক্ষার্থীরা স্কুল বন্ধের কথা শুনে আনন্দিত হতো তারাই এখন স্কুল খোলার কথা শুনে আনন্দে নেচে উঠেছে। টানা ৫৪৪ দিন বন্ধ শেষে আজ খুলছে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। প্রায় দেড় বছর পর আবার বাজবে ক্লাসের ঘণ্টা, ব্লাকবোর্ডে চকের চকচকে সাদা লেখা, প্রিয় ক্যাম্পাসের সবুজ ঘাস, প্রিয় শিক্ষকদের মধুর শাসন আর সহপাঠীদের উচ্ছ্বাস সবকিছুর দেখা মিলবে আজ ১২ সেপ্টেম্বর। প্রাণঘাতি মহামারি করোনায় স্তব্ধ হয়ে যাওয়া জেলার প্রতিটি ক্যাম্পাস আবারো সরব হবে।

চাঁদপুরের সব প্রতিষ্ঠানে গতকাল (শনিবার) দিনভর চলে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। কোনো স্কুলে আসন বিন্যাস নির্ধারণ, কোথাও হ্যান্ড ওয়াশ বেসিন স্থাপন, কোথাও শ্রেণি সজ্জাকরণ, কোথাও ক্লাস পরিকল্পনা নিয়ে হয় চূড়ান্ত মিটিং। তবে জেলার বেশ কটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শুধু শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কারই করেনি শিক্ষার্থীদের বরণ করতে পুরো ক্যাম্পাস সাজিয়েছেন নিজেদের মত। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন সবাই। সরকারের ১৯ দফা নির্দেশনা মানতে প্রস্তুত মাতৃপীঠ : জেলা সদরের অন্যতম প্রসিদ্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চাঁদপুর মাতৃপীঠ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বরণ করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। সরকারের নির্দেশিত ১৯ দফার প্রত্যেকটি মানতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে প্রতিষ্ঠানটি। স্কুলের প্রধান শিক্ষক জানান, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি। ১০ম ও এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রতিদিন ক্লাস হলেও একটি ক্লাসের স্টুডেন্টের সাথে যেন অন্য ক্লাসের স্টুডেন্টদের মিশ্রণ না ঘটে সে জন্যে পৃথক ভবনে পৃথক পথে তাদের যাওয়া-আসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ব্যতিক্রম রুটিনের মাধ্যমে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে চায় হাসান আলী : এক ক্লাসের ছাত্রদের সাথে আরেক ক্লাসের ছাত্রদের যেন কোনোভাবেই ক্রস না ঘটে সেজন্যে ব্যতিক্রম রুটিন তৈরি করেছেন বলে জানিয়েছেন স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুলতানা ফেরদৌসী আরা। তিনি বলেন, একটি ক্লাস যখন শুরু হবে তখন অন্য ক্লাসের ছাত্ররা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে। আবার ওই ক্লাসের ছাত্রদের ক্লাস শুরু হলে আরেকটি ক্লাসের ছাত্ররা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে। ছুটির সময়ও একই পদ্ধতিতে ছুটি দেয়া হবে। এতে করে ক্লাসের আগে ও পরে স্টুডেন্ট সমাবেশ বা ক্রসিংয়ের বিষয়টি থাকবে না। এ ছাড়াও সরকারের ১৯ দফা নির্দেশনাতো মানা হবেই। অভ্যর্থনায় অতিরিক্ত মাস্ক মজুদ রাখবে আল-আমিন একাডেমি : কোনোভাবেই মাস্ক ছাড়া কাউকে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না আল আমিন একাডেমিতে। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান ফটকে প্রস্তুত থাকবে শিক্ষকদের সমন্বয়ে গঠিত মনিটরিং টিম। তাদের কাছে মজুত থাকবে অতিরিক্ত মাস্ক। কোনো শিক্ষার্থী কোনো কারণে মাস্ক আনতে ভুলে গেলে বা মাস্ক পথে ছিঁড়ে গেলে অথবা মাস্কটি স্বাস্থ্যসম্মত মনে না হলে ওই শিক্ষার্থীকে প্রতিষ্ঠান থেকে মাস্ক সরবরাহ করা হবে বলে জানান চাঁদপুর আল-আমিন একাডেমির সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম। এছাড়াও একাডেমির মূল গেট থেকে শ্রেণিকক্ষ পর্যন্ত প্রায় ৩ ফুট দূরত্বে গোল বৃত্ত করে দেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা প্রবেশ ও বের হওয়ার সময় প্রতিটি বৃত্তের মধ্যবর্তী দূরত্ব যেন বজায় রাখে তা নিশ্চিত করবে মনিটরিং টিম। ক্যাম্পাসে হাত ধোয়ার জন্য পর্যাপ্ত বেসিন, পৃথক রুটিন, প্রতি বেঞ্চে দাগ কেটে দূরত্ব নির্ধারণসহ সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করবে গণি মডেল হাই স্কুল : স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের আজ ১২ সেপ্টেম্বর ফুল দিয়ে বরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গণি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়। শিক্ষার্থীদের স্কুলমুখী করতে বিভিন্ন শ্রেণিকক্ষ সাজানো হয়েছে রকমারি সাজে। যেন স্কুলের সকল শিক্ষার্থী প্রথম দিনই আনন্দের সাথে স্কুলে ফিরে আসে এবং শিক্ষার আনন্দঘন পরিবেশ পেয়ে পাঠ গ্রহণে আগ্রহী হয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্বাস উদ্দীন চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বারবার স্মরণ করিয়ে দেয়ার জন্য সকল শ্রেণিকক্ষে স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক লেখা সম্বলিত বিভিন্ন ফেস্টুন টানানো হয়েছে। সকল শিক্ষার্থীর মাস্ক পরে ও স্কুলের ইউনিফর্ম গায়ে দিয়ে আসতে বার্তা পাঠানো হয়েছে। যাদের ইউনিফর্ম নেই তারা পৃথক মার্জিত পোশাকে স্কুলে আসলেও এলাউ করা হবে। তবুও যেন সকল শিক্ষার্থী স্কুলমুখী হয়। এছাড়াও স্কুলের দুটি গেট, নিচ তলা, দোতলা ও ৩য় তলায় থাকবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হ্যান্ড ওয়াশের ব্যবস্থা। প্রতিটি সিঁড়ির সামনে থাকবে জীবাণুনাশক পানি মিশ্রিত পাটের বস্তা, যাতে জুতা পরিষ্কার করে উপরে উঠবে শিক্ষার্থীরা।

পূর্বের মতই চলবে ড্যাফোডিল স্কুল ও কলেজের অনলাইন ক্লাস : আজ সশরীরে ক্লাস শুরু হলেও ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা সপ্তাহের যেদিন স্কুলে এসে ক্লাস করবে সেদিন ব্যতীত সপ্তাহের বাকি দিনগুলোতে পূর্বের মতই অনলাইন ক্লাস সচল রাখবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ চাঁদপুর। প্রতিষ্ঠানের উপাধ্যক্ষ রেজাউল করিম চাঁদপুর কণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এছাড়াও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের শ্রেণি পাঠদানের জন্য নেয়া হয়েছে সব ধরনের প্রস্তুতি। প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের যাদের ইউনিফর্ম ছোট হয়ে গেছে বা পরিধান অযোগ্য বা বানানো হয়নি তাদের ক্ষেত্রে মার্জিত যে কোনো পোশাক পরে আসলে এলাউ করা হবে। নতুন পোশাক বানানোর জন্য সময় দেয়া হবে বলেও জানান তিনি। শতভাগ শিক্ষার্থীদের স্কুলমুখী করতে আপাতত তারা কঠোরতা দেখাতে চাচ্ছেন না।

ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে চাঁদপুর সরকারি কলেজ : চাঁদপুর সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে শুধুমাত্র শিক্ষার্থীরাই প্রবেশ করতে পারবে, কোনো অভিভাবক বা বহিরাগতকে কলেজ ক্যাম্পাসে ঢোকার অনুমতি দেবেন না কর্তৃপক্ষ। তাই করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি বিবেচনা করা অভিভাবকদের কলেজ ক্যাম্পাসের সামনে ভিড় না করতে নিরুৎসাহিত করেছেন কলেজের অধ্যক্ষ অসিত বরণ দাশ। তিনি বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের ক্লাস হবে কলেজের ৫ তলা ভবনে। সেই ভবনে অন্য কোনো শিক্ষার্থী প্রবেশ করবে না। নির্দিষ্ট দূরত্বে জেট ক্রসিং আসন বিন্যাস মেনে আইসোলেশন এনভায়রনমেন্টে ক্লাস পরিচালিত হবে তাদের। সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ক্লাস হবে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের। তারা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে কলেজের পশ্চিম পাশের রাজু তোরণ গেট দিয়ে। সাড়ে ১০টায় ছুটির পর তারা ক্যাম্পাস ত্যাগ করবে কলেজের পূর্ব পাশ দিয়ে মূল পাশের গেট দিয়ে। দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা বেরিয়ে যাওয়ার পর একাদশের শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে পূর্ব পাশের রাজু তোরণ গেট দিয়ে। তাদের ক্লাস চলবে সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত। এতে এক ক্লাসের স্টুডেন্টের সাথে অপর ক্লাসের স্টুডেন্টের ক্রসিং হবে না।

‘নো মাস্ক নো এন্ট্রি’ কর্মসূচি শতভাগ পালন করবে পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজ : জেলার দৃষ্টিনন্দন ক্যাম্পাস নামে পরিচিত চাঁদপুর পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজ নতুন করে আর পরিষ্কার করার কিংবা সাজসজ্জার কিছু নেই। সাজানো বাগানের মত পুরো কলেজ চত্বরকে সবসময়ই পরিষ্কার রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার। রেখেছেন করোনাকালীন মুহূর্তেও। আজ দেড় বছর পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলায় শিক্ষার্থীদের রজনীগন্ধায় বরণ করে নেয়া হবে বলে জানান চাঁদপুর কণ্ঠকে। তবে ‘নো মাস্ক, নো এন্ট্রি’ কর্মসূচিটি শতভাগ পালন করা হবে ক্যাম্পাসে। যে শিক্ষার্থীর মাস্ক থাকবে না তাকে কলেজ থেকে মাস্ক সরবরাহ করা হবে। তবুও মাস্ক পরা ছাড়া কোনো শিক্ষার্থীকে কলেজে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। কলেজ ক্যাম্পাসে হ্যান্ড ওয়াশের জন্য প্রচুর পরিমাণে পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা আছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্ধারণ করা হয়েছে আসন বিন্যাস। শিক্ষার্থীদের বরণ করে প্রতিষ্ঠানের প্রাণ ফিরিয়ে আনতে প্রস্তুত পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজ।

তিন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দশ শ্রেণিতে বিভক্ত করেছে ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজ : একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা এই তিনটি বিভাগের শিক্ষার্থীরা স্বাভাবিক সময়ে তিনটি পৃথক কক্ষে ক্লাস করলেও শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজ তাদেরকে বিভক্ত করেছে ১০টি শ্রেণিতে। একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের দুই ভাগে, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীদের ৪ ভাগ করে ৮ ভাগে বিভাজন করা হয়েছে। সরকার নির্দেশিত নিয়মেই এ বিভাজন করা হয়েছে বলে জানান কলেজের অধ্যক্ষ কুন্তল কৃষ্ণ নাথ। শিক্ষার্থীদের বরণের বিষয়ে তিনি বলেন, প্রবেশ পথ থেকে সিরিয়ালে শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করানো হবে। পথিমধ্যে স্যানিটেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। একাদশ শ্রেণির ছুটির আধাঘণ্টা পর দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের একই নিয়মে প্রবেশ করানো হবে ক্যাম্পাসে।

কচুয়া বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজে প্রতিটি শ্রেণিকক্ষে ২শ’ আসনের বিপরীতে বসবে ৭৫ জন : কচুয়া বঙ্গবন্ধু সরকারি ডিগ্রি কলেজ সরকারের ১৯ দফা নির্দেশনা মেনে আগামীকাল প্রতিষ্ঠান খুলতে কাজ করছে কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীগণ। কলেজ থেকে জানা যায়, স্বাস্থ্যবিধি যাতে কোনোভাবেই বিঘ্নিত না হয় সে কারণে কলেজের বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীদের দুটি দলে বিভক্ত করে মোট ৬টি ক্লাসে পাঠদান করানো হবে। কলেজের বড় ৬টি কক্ষে যেখানে ২শ’ জন শিক্ষার্থীর আসন বিন্যাস রয়েছে সেখানে বসবে মাত্র ৭৫ জন শিক্ষার্থী। ৫ ফুটের বড় বেঞ্চগুলোতে দুপাশে দুজন করে বসানোর প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক মাসুম বিল্লাহ চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, ৯ তারিখ আঞ্চলিক জুম মিটিংয়ে আমাদের বিস্তারিত নির্দেশনা দেয়া হয়। সে লক্ষ্যে কাজ করছি আমরা। সকাল সাড়ে ৯টায় কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হবে। কলেজের মূল গেট খোলা হবে সকাল ৯টা ২০ মিনিটে।

জীবাণুনাশক ছিটিয়ে পুরো ক্যাম্পাসকে জীবাণুমুক্ত করেছে হাইমচর সরকারি ডিগ্রি কলেজ : গত কয়েকদিন ধরে পুরো ক্যাম্পাসের প্রতিটি স্থানকে শতভাগ জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাইমচর সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মানোয়ার হোসেন মোল্লা। কলেজের প্রতিটি বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রথম ১শ’ জন করে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে। তাদের ক্লাসের পর ক্যাম্পাস ত্যাগ করলে পরবর্তী ১শ’ জন ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে-এভাবে রুটিন সাজিয়েছে হাইমচর কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের প্রবেশ পথে প্রস্তুত থাকবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড ওয়াশের জন্য প্রয়োজনীয় সব উপাদান। মাস্ক ছাড়া কোনো শিক্ষার্থীকে কলেজে ঢুকতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ। কলেজের প্রধান ফটকে ব্যানারের লেখার মাধ্যমে স্বাগতম জানানো হবে একাদশ শ্রেণির নতুন শিক্ষার্থীদের।

তিন স্তরের স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবেশ করতে হবে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে : প্রথমে স্যানিটাইজ স্প্রে, তারপর তাপমাত্রা পরিমাপ এবং সবশেষ সাবান দিয়ে হাত ধৌত করণের মধ্য দিয়ে প্রতিটি শিক্ষার্থীকে প্রবেশ করতে হবে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে। ক্লাসে প্রবেশের পূর্বে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দেয়া হবে ১টি করে রজনীগন্ধা। চাঁদপুর কণ্ঠকে এমনটি জানিয়েছে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মাসুদ আহাম্মদ। তিনি বলেন, সকাল ১০টায় দ্বাদশ শ্রেণিয় শিক্ষার্থীরা এবং সকাল ১১টায় একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা আসবে। শিক্ষার্থীদের প্রথমে মোটিভেশনাল স্পিচ দেয়া হবে। পরে ক্লাসে মনোনিবেশ করানো হবে।

শাহরাস্তি সূচিপাড়া ডিগ্রি কলেজে প্রবেশ করতে হবে তিন ফুট দূরত্ব মেনে : কলেজের দুটি গেইটে টাঙ্গানো আছে ‘নো মাস্ক, নো এন্ট্রি’ ব্যানার। ভেতরে ৩টি করে ৬টি দীর্ঘ দাগ টানা সারি। প্রতিটি সারিতে তিন ফুট দূরত্ব রেখে বৃত্ত অঙ্কন করেছে শাহরাস্তি সূচিপাড়া ডিগ্রি কলেজ। কলেজের অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া জানান, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার জন্য কলেজ থেকে গঠন করা হয়েছে ৭ সদস্যের মনিটরিং সেল। প্রবেশ পথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হাত ধোয়া মেনে শ্রেণি কক্ষে প্রবেশ করতে হবে শিক্ষার্থীদের। একজন শিক্ষক ক্লাসে যাওয়া ছাড়া আরেকজন শিক্ষক ক্লাস ত্যাগ করবেন না। এতে করে শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত আসনে বসা থাকবে। কলেজের রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ভারপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ মোঃ আবুল কালাম জানান, পুরো ক্যাম্পাসে সচেতনতামূলক ব্যানার ফেস্টুন টানানো হয়েছে। যেন তা পড়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা তৈরি হয়।

মতলব ডিগ্রি কলেজে গঠন করা হয়েছে স্যানিটাইজার জোন : প্রবেশ পথেই গঠন করা হয়েছে স্যানিটাইজার জোন। যেখানে হাত ধোয়ার জন্য থাকবে সাবান ও হ্যান্ড ওয়াশ। করা হবে স্যানিটাইজ স্প্রে, মাপা হবে শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা, প্রস্তুত আছে পালস অক্সিমিটার। চাঁদপুর কণ্ঠকে জানিয়েছেন মতলব দক্ষিণ উপজেলার মতলব ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করেছি জেড আকৃতির আসন বিন্যাস করতে। পৃথক একটি আইসোলেশন কক্ষও প্রস্তুত রয়েছে। কেউ অসুস্থ হলে তাকে সেখানে রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হবে।

প্রতি বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য পৃথক কমিটি গঠন করেছে ছেঙ্গারচর ডিগ্রি কলেজ : মতলব উত্তর উপজেলার ছেঙ্গরচর ডিগ্রি কলেজ বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসা শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা আলাদা কমিটি গঠন করে দিয়েছে। প্রতিটি কমিটির কাছে তাপমাত্রা মাপার পৃথক তিনটি মেশিন থাকবে। তাপমাত্রা স্বাভাবিক হলে শিক্ষার্থীকে হ্যান্ড ওয়াশের জন্য পাঠানো হবে আর অস্বাভাবিক হলে তাকে নেয়া হবে আইসোলেশন কক্ষে। এমনটি নিশ্চিত করেছেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হোসেন মোহাম্মদ ইয়াসিন।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়