চাঁদপুর, রবিবার, ৭ আগস্ট ২০২২, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৯, ৮ মহররম ১৪৪৪  |   ৩০ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   আমরা মানসম্মত শিক্ষা প্রত্যাশা করি
  •   বাসর রাত থেকেই নির্যাতনের শিকার পারভিন আক্তার
  •   হানারচর ইউনিয়নে মুক্তিযোদ্ধা ও অন্ধ নারীসহ ২০ জনের ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ
  •   ময়না তদন্ত হচ্ছে ৪ মাসের শিশু শাহরিনের!
  •   জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে চাঁদপুর জেলা যুবদলের বিক্ষোভ

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ২০:১৮

মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সেলিম আল দীনকে স্মরণ করলো ফরিদগঞ্জ থিয়েটার

মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সেলিম আল দীনকে স্মরণ করলো ফরিদগঞ্জ থিয়েটার
শামীম হাসান

স্মরণ সভা ও আলোচনা সভার মাধ্য দিয়ে শুক্রবার নাট্যচার্য্য ও শিক্ষক সেলিম আল দীনকে স্মরণ করেছে ফরিদগঞ্জ থিয়েটার।

১৫ জানুয়ারি সকালে উপস্থাপক শামীম হাসানের সঞ্চালনায় ফরিদগঞ্জ ফিরোজা কলিম একাডেমি মঞ্চে অর্ধশত শিক্ষার্থীকে নিয়ে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয় ৷ স্মরণ সভায় সেলিম আল দীনের জীবন দশা ও তার নাট্য জীবন সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের তার সম্পর্কে বলেন ফরিদগঞ্জ থিয়েটারের পরিচালক বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সংগঠন ফরিদ আহমেদ রিপন । এরপর শিক্ষার্থীরাসহ ফরিদগঞ্জ থিয়েটারের নেতৃবৃন্দ সেলিম আল দীনের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ফরিদগঞ্জ থিয়েটারের পরিচালক ফরিদ আহম্মেদ রিপন বলেন, সেলিম আল দীন সম্পর্কে আমাদের নতুন প্রজন্মকে জানতে হবে, তার সম্পর্কিত বইগুলো পড়তে হবে, এতে যেমনি তার সম্পর্কে জানা হবে একই ভাবে অসাধারণ কর্মগুলো আমাদের জীবনে প্রতিফলন ঘটিয়ে জীবনকে সমৃদ্ধ করা জাবে। এ সময় তিনি বাংলাদেশ থিয়েটার কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ ও সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হাসান ময়নার প্রতি উদার্থ আহ্বান জানিয়ে বলেন সেলিম আল দীন মহৎকর্মগুলো সবার মাজে ছড়িয়ে দিয়ে সবার নিজের জীবন গঠনে তা সহায়ক হবে এমন কার্যক্রম গ্রহন করতে হবে বাংলাদেশ থিয়েটারকে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফরিদগঞ্জ থিয়েটারের সদস্য তানজিন ইসলাম আলো, মাহাবুবুর রহমান, জাবের আলম ইসলাম সহ ফরিদগঞ্জ থিয়েটারের অন্যান্য সদস্যরা।

উল্লেখ্য, সেলিম আল দীন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। অনেকের মতেই রবীন্দ্র -পরবর্তী বাংলা নাটকের অন্যতম দিকপাল এ নাট্যকার একরকম অকালে ২০০৮ সালের ১৪ জানুয়ারি মারা যান। ১৯৪৯ সালের ১৮ আগস্ট ফেনী জেলার সেনেরখিল গ্রামে তার জন্ম। তার উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে রয়েছে- কীত্তনখোলা, কেরামতমঙ্গল, হাত হদাই,সর্প বিষয়ক গল্প, জন্ডিস ও বিবিধ বেলুন, যৈবতী কন্যার মন, মুনতাসীর ফ্যান্টাসি, চাকা। তার রচনা বিদেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত। ১৯৮৪ সালে সেলিম আল দীন বাংলা একাডেমী পুরস্কার পান। এছাড়া রাষ্ট্রীয় সম্মান একুশে পদকসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা পান তিনি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়