চাঁদপুর, রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯, ১৩ রজব ১৪৪৪  |   ১৬ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   কচুয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নব-নিয়োগপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের সাথে এমপির মতবিনিময়
  •   খলিশাডুলীতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
  •   জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩২২ জনের মৃত্যু
  •   আজ রোটারিয়ান মরহুম দেওয়ান আবুল খায়েরের ২৫তম মৃত্যুবার্ষিকী
  •   ফরিদগঞ্জে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্র ও মাদকসহ আটক তিন

প্রকাশ : ২৩ মে ২০২২, ০০:০০

কচুয়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভবন নির্মাণের অভিযোগ
নিজস্ব প্রতিনিধি ॥

কচুয়া পৌরসভার লক্ষ্মীপুর গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক ভবন নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে সফিকুল ইসলাম গং আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক ভবন নির্মাণ করছে। নালিশি তফসিল ভূমি চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার সাবেক ৮৪নং হালে ৯৮নং লক্ষ্মীপুর মৌজার সিএস খতিয়ান নং-১২, আরএস খতিয়ান নং-১৬, বিএস খতিয়ান নং-১৪৮, সাবেক ২০৫ দাগ হালে ৭৩৯ দাগ, বাড়ি ২.০৫ একরের অন্দরে ১.০১ একরের অন্দরে ০.১২৬৬৫৫একর ভূমি।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উল্লেখিত তফসিলে মোঃ রফিকুল ইসলামের বসতবাড়ির অংশ তার সহোদর সফিকুল ইসলাম জোরপূর্বক দখল করে ভবন নির্মাণের চেষ্টা করলে রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে বিজ্ঞ কচুয়া সহকারী জজ আদালতের নিকট অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন জানান। আবেদনের প্রেক্ষিতে ২৫ এপ্রিল বিবাদী সফিকুল ইসলাম গং আদালতে হাজির হয়ে জবাবদিহি প্রদান করে। বিজ্ঞ সহকারী জজ আদালত চলতি বছরের ১২ জুন আপত্তি শুনানির জন্য তারিখ নির্ধারণ করে।

এদিকে ঈদের ছুটিতে আদালত বন্ধ থাকার সুযোগে স্থিতাবস্থার আদেশ অমান্য করে নালিশি ভূমিতে সফিকুল ইসলাম গং ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে। এ অবস্থায় গত ১৭ মে রফিকুল ইসলাম আদালতের শরণাপন্ন হলে বিজ্ঞ আদালত দেওয়ানী ও ফৌজদারী আদালতের অ্যাডঃ মোঃ আবু তাহের তালুকদারকে কমিশনার নিয়োগ করে আগামী ১১ জুনের মধ্যে বিজ্ঞ আদালতে সরজমিনে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ প্রদান করেন। শনিবার অ্যাডঃ মোঃ আবু তাহের তালুকদার ঘটনাস্থল কচুয়া পৌরসভার লক্ষ্মীপুর গ্রামে নালিশি ভূমি পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বাদী, বিবাদী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করেন।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শফিকুল ইসলাম গং নালিশি ভূমিতে ১৪শ’ ৬ স্কয়ার ফিটে দ্বিতল ভবন নির্মাণ করছে। নিষেধাজ্ঞা থাকা স্বত্ত্বেও ভবন নির্মাণের বিষয়ে বিবাদী সফিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি তার দখলীয় ভূমিতে ভবন নির্মাণের কাজ করছেন বলে দাবি করেন। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করার বিষয়ে তিনি কোনো সদুত্তর দেন নি।

এ ব্যাপারে রফিকুল ইসলাম জানান, বিবাদী সফিকুল ইসলাম গং ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে আমার জায়গা জোরপূর্বক দখল করে সেখানে ভবন নির্মাণের চেষ্টা করলে আমি আইনের সহায়তা নেই এবং সফিকুল ইসলাম গং আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আমার ভূমিতে ভবন নির্মাণ কাজ করে যাচ্ছে। আমি এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

তিনি আরো জানান, আমি বাদী হয়ে ২০২১ সালের ২২ সেপ্টেম্বর ৫জনকে বিবাদী করে চাঁদপুরের বিজ্ঞ কচুয়া সহকারী জজ আদালতে একটি দেওয়ানী মোকদ্দমা দায়ের করি। মোকদ্দমা নং-৩১৩/সন ২০২১খ্রিঃ।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়